করোনায় মোটা মানুষের মৃত্যু ঝুঁকি বেশি
jugantor
করোনায় মোটা মানুষের মৃত্যু ঝুঁকি বেশি

  অনলাইন ডেস্ক  

০৫ মার্চ ২০২১, ১২:৪৪:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সঙ্গে স্থূলতার একটি যোগসূত্র পাওয়ার দাবি করেছেন গবেষকরা। তারা দেখেছেন, যেসব দেশে মানুষের স্থূলতার হার বেশি, কোভিড ১৯-এ মৃত্যুও সেসব দেশে বেশি।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃত্যু নিয়ে জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য বিশ্লেষণ করে ওয়ার্ল্ড ওবেসিটি ফেডারেশন এই চিত্র পেয়েছে। খবর রয়টার্সের।

ওবেসিটি ফেডারেশনের গবেষকরা দেখেছেন, যেসব দেশে পূর্ণবয়স্ক মানুষের কমপক্ষে ৫০ শতাংশ স্থূল, সেসব দেশে মৃত্যুর হার অন্য দেশের তুলনায় ১০ গুণ বেশি।

জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন অবধি করোনাভাইরাসে সাড়ে ১১ কোটি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে, এর মধ্যে ২৫ লাখ ৬১ হাজারের মৃত্যু ঘটেছে।

মৃতদের পাঁচ লাখের বেশি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। ব্রাজিলে আড়াই লাখের বেশি মৃত্যু ঘটেছে। মেক্সিকো ও ভারতে মারা গেছে দেড় লাখের বেশি।

এর পর সবচেয়ে বেশি মারা গেছে যুক্তরাজ্যে সোয়া লাখ। ইতালিতে ৯৮ হাজার, ফ্রান্সে ৮৭ হাজার, রাশিয়ায় ৮৬ হাজার, জার্মানিতে ৭১ হাজার, স্পেনে ৭০ হাজার মানুষ মারা গেছেন।

ওবেসিটি ফেডারেশনের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ এ বিশ্বে যে ২৫ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটেছে।এরমধ্যে ২২ লাখ মানুষই সেসব দেশের, যেখানকার মানুষের মধ্যে মেদবহুল হওয়ার প্রবণতা রয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তথ্য বিশ্লেষণে এমন কোনো দেশ পাওয়া যায়নি, যেখানে স্থূলতার হার কম; অথচ করোনাভাইরাসে মৃত্যুর হার বেশি, যা বেশ চমকপ্রদ।

এই প্রতিবেদন তৈরিতে যুক্ত ওবেসিটি ফেডারেশনের বিশেষজ্ঞ উপদেষ্টা ও অস্ট্রেলিয়ার সিডনি ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক টম লবস্টাইন বলেন, দেখুন জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার দিকে, এ দেশ দুটিতে কোভিড ১৯-এ মৃত্যু হার কম, আবার পূর্ণবয়স্ক স্থূল মানুষও কম সেখানে।

করোনায় মোটা মানুষের মৃত্যু ঝুঁকি বেশি

 অনলাইন ডেস্ক 
০৫ মার্চ ২০২১, ১২:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সঙ্গে স্থূলতার একটি যোগসূত্র পাওয়ার দাবি করেছেন গবেষকরা। তারা দেখেছেন, যেসব দেশে মানুষের স্থূলতার হার বেশি, কোভিড ১৯-এ মৃত্যুও সেসব দেশে বেশি।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃত্যু নিয়ে জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য বিশ্লেষণ করে ওয়ার্ল্ড ওবেসিটি ফেডারেশন এই চিত্র পেয়েছে। খবর রয়টার্সের।

ওবেসিটি ফেডারেশনের গবেষকরা দেখেছেন, যেসব দেশে পূর্ণবয়স্ক মানুষের কমপক্ষে ৫০ শতাংশ স্থূল, সেসব দেশে মৃত্যুর হার অন্য দেশের তুলনায় ১০ গুণ বেশি।

জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন অবধি করোনাভাইরাসে সাড়ে ১১ কোটি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে, এর মধ্যে ২৫ লাখ ৬১ হাজারের মৃত্যু ঘটেছে।

মৃতদের পাঁচ লাখের বেশি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। ব্রাজিলে আড়াই লাখের বেশি মৃত্যু ঘটেছে। মেক্সিকো ও ভারতে মারা গেছে দেড় লাখের বেশি।

এর পর সবচেয়ে বেশি মারা গেছে যুক্তরাজ্যে সোয়া লাখ। ইতালিতে ৯৮ হাজার, ফ্রান্সে ৮৭ হাজার, রাশিয়ায় ৮৬ হাজার, জার্মানিতে ৭১ হাজার, স্পেনে ৭০ হাজার মানুষ মারা গেছেন।

ওবেসিটি ফেডারেশনের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ এ বিশ্বে যে ২৫ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটেছে।এরমধ্যে ২২ লাখ মানুষই সেসব দেশের, যেখানকার মানুষের মধ্যে মেদবহুল হওয়ার প্রবণতা রয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তথ্য বিশ্লেষণে এমন কোনো দেশ পাওয়া যায়নি, যেখানে স্থূলতার হার কম; অথচ করোনাভাইরাসে মৃত্যুর হার বেশি, যা বেশ চমকপ্রদ।

এই প্রতিবেদন তৈরিতে যুক্ত ওবেসিটি ফেডারেশনের বিশেষজ্ঞ উপদেষ্টা ও অস্ট্রেলিয়ার সিডনি ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক টম লবস্টাইন বলেন, দেখুন জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার দিকে, এ দেশ দুটিতে কোভিড ১৯-এ মৃত্যু হার কম, আবার পূর্ণবয়স্ক স্থূল মানুষও কম সেখানে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস