করোনা কেড়ে নিল ব্যাংক কর্মকর্তার প্রাণ
jugantor
করোনা কেড়ে নিল ব্যাংক কর্মকর্তার প্রাণ

  পাবনা প্রতিনিধি  

০৬ এপ্রিল ২০২১, ০০:৫০:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে অগ্রণী ব্যাংকের তরুণ কর্মকর্তা মুহিবুল্লাহ বাহার (৩৫) মারা গেছেন। সোমবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। সোমবার বাদ আছর নামাজে জানাজা শেষে তাকে নিজ গ্রামের গোরস্থানে দাফন করা হয়।

মুহিবুল্লাহ বাহার পাবনা সদর উপজেলার কাকিলাখালী গ্রামের আহম্মদ আলী মাস্টারের ছেলে। তিনি অগ্রণী ব্যাংক পাবনা আঞ্চলিক শাখায় প্রিন্সিপ্যাল অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মুহিবুল্লাহ বাহার ৮-১০দিন আগে করোনায় আক্রান্ত হলে নিজ বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবার অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে সোমবার তিনি মারা যান।

স্বজনরা জানান, অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন তরুণ এই ব্যাংক কর্মকর্তা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর করে তিনি সরাসরি অফিসার পদে অগ্রণী ব্যাংকে চাকরি নেন। সদা হাস্যজ্জ্বোল বাহার এর ব্যবহার ছিল অমায়িক। তার অকাল মৃত্যুতে অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

এদিকে পাবনায় এক মাসে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। এ সময়ে সংক্রমণ বেড়েছে কয়েক গুণ।

স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্র মতে, গত ১৫দিনে দুই শতাধিক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্ত ছিল ১ হাজার ৮৩২ জন। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে দ্বিতীয় ঢেউ এ ব্যাংক কর্মকর্তার প্রথম মৃত্যু।

করোনা কেড়ে নিল ব্যাংক কর্মকর্তার প্রাণ

 পাবনা প্রতিনিধি 
০৬ এপ্রিল ২০২১, ১২:৫০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে অগ্রণী ব্যাংকের তরুণ কর্মকর্তা মুহিবুল্লাহ বাহার (৩৫) মারা গেছেন। সোমবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। সোমবার বাদ আছর নামাজে জানাজা শেষে তাকে নিজ গ্রামের গোরস্থানে দাফন করা হয়।

মুহিবুল্লাহ বাহার পাবনা সদর উপজেলার কাকিলাখালী গ্রামের আহম্মদ আলী মাস্টারের ছেলে। তিনি অগ্রণী ব্যাংক পাবনা আঞ্চলিক শাখায় প্রিন্সিপ্যাল অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মুহিবুল্লাহ বাহার ৮-১০দিন আগে করোনায় আক্রান্ত হলে নিজ বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবার অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে সোমবার তিনি মারা যান।

স্বজনরা জানান, অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন তরুণ এই ব্যাংক কর্মকর্তা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর করে তিনি সরাসরি অফিসার পদে অগ্রণী ব্যাংকে চাকরি নেন। সদা হাস্যজ্জ্বোল বাহার এর ব্যবহার ছিল অমায়িক। তার অকাল মৃত্যুতে অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

এদিকে পাবনায় এক মাসে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। এ সময়ে সংক্রমণ বেড়েছে কয়েক গুণ।

স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্র মতে, গত ১৫দিনে দুই শতাধিক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্ত ছিল ১ হাজার ৮৩২ জন। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে দ্বিতীয় ঢেউ এ ব্যাংক কর্মকর্তার প্রথম মৃত্যু।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস