যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ
jugantor
যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১২ এপ্রিল ২০২১, ১৭:২১:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ‘সর্বাত্মক লকডাউনের’ কারণে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। তবে পণ্যবাহী নৌযান চালু থাকবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা আদেশ অনুযায়ী এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক যুগান্তরকে বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধ থাকবে। তবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশ অনুযায়ী, পণ্যবাহী নৌযান ও বন্দরগুলো খোলা থাকবে। যারা ওই পণ্যবাহী নৌযানে কাজ করবেন তারাও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করবেন।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস মহামারীর লকডাউনের কারণে ৫ এপ্রিল থেকে সকাল ছয়টা থেকে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধ রয়েছে। করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকার ৫ এপ্রিল থেকে সাত দিনের জন্য গণপরিবহন চলাচলসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ জারি করেছিল। গতকাল এই বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার দিন তা আরও দুদিন বাড়ানো হয়। এখন নতুন করে ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ হতে যাচ্ছে। এ সময়ে মানুষের কাজ ও চলাচলে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনের পর আজ সোমবার এ বিষয়ে আদেশ জারি করা হয়। এতে সরকারি-বেসরকারি অফিস, গণপরিবহন বন্ধ রাখাসহ ১৩ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে শিল্পকারখানাগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে।

যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১২ এপ্রিল ২০২১, ০৫:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ‘সর্বাত্মক লকডাউনের’ কারণে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। তবে পণ্যবাহী নৌযান চালু থাকবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা আদেশ অনুযায়ী এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক যুগান্তরকে বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধ থাকবে। তবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশ অনুযায়ী, পণ্যবাহী নৌযান ও বন্দরগুলো খোলা থাকবে। যারা ওই পণ্যবাহী নৌযানে কাজ করবেন তারাও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করবেন।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস মহামারীর লকডাউনের কারণে ৫ এপ্রিল থেকে সকাল ছয়টা থেকে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধ রয়েছে। করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকার ৫ এপ্রিল থেকে সাত দিনের জন্য গণপরিবহন চলাচলসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ জারি করেছিল। গতকাল এই বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার দিন তা আরও দুদিন বাড়ানো হয়। এখন নতুন করে ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ হতে যাচ্ছে। এ সময়ে মানুষের কাজ ও চলাচলে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনের পর আজ সোমবার এ বিষয়ে আদেশ জারি করা হয়। এতে সরকারি-বেসরকারি অফিস, গণপরিবহন বন্ধ রাখাসহ ১৩ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে শিল্পকারখানাগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস