দেশের সর্ববৃহৎ করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন 
jugantor
দেশের সর্ববৃহৎ করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৫০:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের যাত্রা শুরু হল। এক হাজার বেডের এই হাসপাতালের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল’।

রোববার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই হাসপাতাল উদ্বোধন করেন। তিনি বলেন, ‘এটা দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল।’

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, এখানে থাকবে ১০০ শয্যার (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) আইসিইউ। ১১২টি এইচডিইউ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া রোগীদের জন্য সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থাও রয়েছে।

ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির বলেন, আগামীকাল সোমবার সকাল ৮টা থেকে এই হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু হবে।

মহাখালীতে অবস্থিত ঢাকা নর্থ সিটি করপোরেশন মার্কেটে অবস্থিত এই হাসপাতালটির বিভিন্ন ফ্লোরে এখনও আইসোলেশন ফ্যাসিলিটি নির্মাণের কাজ চলছে।

এই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ, বিভিন্ন সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এমন সময় এই হাসপাতালটি উদ্বোধন করা হয়েছে, যখন হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য শয্যা বিশেষ করে আইসিইউর তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে সংক্রমণ মৃত্যু অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো।

দেশের সর্ববৃহৎ করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের যাত্রা শুরু হল। এক হাজার বেডের এই হাসপাতালের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল’। 

রোববার  স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই হাসপাতাল উদ্বোধন করেন। তিনি বলেন, ‘এটা দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল।’

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, এখানে থাকবে ১০০ শয্যার (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) আইসিইউ। ১১২টি এইচডিইউ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া রোগীদের জন্য সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থাও রয়েছে।

ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির বলেন, আগামীকাল সোমবার সকাল ৮টা থেকে এই হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু হবে।

মহাখালীতে অবস্থিত ঢাকা নর্থ সিটি করপোরেশন মার্কেটে অবস্থিত এই হাসপাতালটির বিভিন্ন ফ্লোরে এখনও আইসোলেশন ফ্যাসিলিটি নির্মাণের কাজ চলছে। 

এই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ, বিভিন্ন সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এমন সময় এই হাসপাতালটি উদ্বোধন করা হয়েছে, যখন হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য শয্যা বিশেষ করে আইসিইউর তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে সংক্রমণ মৃত্যু অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস