তৃতীয় ধাপের লকডাউন আজ মধ্যরাত থেকে  
jugantor
তৃতীয় ধাপের লকডাউন আজ মধ্যরাত থেকে  

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৪৩:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন আজ মধ্যরাতে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকায় আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত এই লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যে এটি তৃতীয় ধাপের লকডাউন।

মঙ্গলবার নতুন বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার।

তৃতীয় ধাপের এই লকডাউনে চলমান থাকবে আগের সব বিধিনিষেধ। তবে এবারের লকডাউনে নতুনভাবে কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে, যা ঘোষণা আসতে পারে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। এছাড়া নতুন লকডাউনের সময় বেশ কিছু দেশে প্রবাসী শ্রমিক যাতায়াতে বিশেষ ফ্লাইট চলবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মারাত্মক আকার ধারণ করায় সরকার প্রথমে চলতি মাসের ৫ এপ্রিল থেকে ৭ দিনের জন্য গণপরিবহন চলাচলসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ জারি করেছিল। পরে তা আরও ২ দিন বাড়ানো হয়। এতেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সর্বাত্মক লকডাউন দেয় সরকার।

বাংলাদেশে প্রথম করোনা দেখা দেয় গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। বাংলাদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ২৭ হাজার ৭৮০ জনে। মৃত্যু বরণ করেছে ১০ হাজার ৫৮৮ জন।

তৃতীয় ধাপের লকডাউন আজ মধ্যরাত থেকে  

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০২:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন আজ মধ্যরাতে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকায় আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত এই লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।  করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যে এটি তৃতীয় ধাপের লকডাউন।

মঙ্গলবার নতুন বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার।

তৃতীয় ধাপের এই লকডাউনে চলমান থাকবে আগের সব বিধিনিষেধ। তবে এবারের লকডাউনে নতুনভাবে কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে, যা ঘোষণা আসতে পারে আগামীকাল বৃহস্পতিবার।  এছাড়া নতুন লকডাউনের সময় বেশ কিছু দেশে প্রবাসী শ্রমিক যাতায়াতে বিশেষ ফ্লাইট চলবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মারাত্মক আকার ধারণ করায় সরকার প্রথমে চলতি মাসের ৫ এপ্রিল থেকে ৭ দিনের জন্য গণপরিবহন চলাচলসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ জারি করেছিল। পরে তা আরও ২ দিন বাড়ানো হয়। এতেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সর্বাত্মক লকডাউন দেয় সরকার। 

বাংলাদেশে প্রথম করোনা দেখা দেয় গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। বাংলাদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ২৭ হাজার ৭৮০ জনে। মৃত্যু বরণ করেছে ১০ হাজার ৫৮৮ জন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস