ভারতে অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিক হয়ে ২২ কোভিড রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু
jugantor
ভারতে অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিক হয়ে ২২ কোভিড রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৬:০৩:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

মৃত্যু

ভারতের মহারাষ্ট্রে একটি হাসপাতালে অক্সিজেন ট্যাঙ্কে লিক হয়ে ২২ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার রাজ্যের পবিত্র শহর হিসাবে পরিচিত নাসিকের জাকির হোসেন হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, বুধবার নাসিকে জাকির হোসেন হাসপাতালের ট্যাঙ্কারে অক্সিজেনের ভরার সময় একটি ট্যাঙ্কে লিক ধরা পড়ে। সেই অক্সিজেনের লিকের ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে চারিদিকে সাদা ধোঁয়ায় ঢেকে থাকতে দেখা যায়।

সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, করোনা আক্রান্তদের জন্য সেই হাসপাতাল চালাচ্ছিল নাসিক পৌরসভা। যে হাসপাতালে ১৫০ জন রোগী চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাদের মধ্যে ২৩ জন ভেন্টিলেশনেছিলেন।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, ঘটনার সময় অন্তত ১৭১ জন রোগীর চিকিৎসা চলছিল ওই হাসপাতালে। এর মধ্যে ৩১ জন রোগীকে অন্য হাসপাতালে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়। বাকি রোগীরা হাসপাতালেই ছিলেন।

হাসপাতাল সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মৃত রোগীদের মধ্যে ১০ জন ঘটনার সময় ভেন্টিলেশনে ছিলেন।

সংবাদ সংস্থা এএনআই মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপীকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, অক্সিজেনে ঘাটতির কারণেই ভেন্টিলেশনে থাকা রোগীদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নাসিকের পুরনিগমের কমিশনার কৈলাস যাদবজানিয়েছেন, হাসপাতালে অক্সিজেন লিকের কারণ প্রায় ৩০ মিনিট বন্ধ ছিল অক্সিজেন সরবরাহ। সেজন্যই ভেন্টিলেশনে থাকা রোগীদের মৃত্যু হতে পারে।

ভারতে অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিক হয়ে ২২ কোভিড রোগীর মর্মান্তিক মৃত্যু

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মৃত্যু
নাসিকের হাসপাতালে অক্সিজেন লিকের দৃশ্য। ছবি-সংগৃহীত

ভারতের মহারাষ্ট্রে একটি হাসপাতালে অক্সিজেন ট্যাঙ্কে লিক হয়ে ২২ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার রাজ্যের পবিত্র শহর হিসাবে পরিচিত নাসিকের জাকির হোসেন হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। 

সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, বুধবার নাসিকে জাকির হোসেন হাসপাতালের ট্যাঙ্কারে অক্সিজেনের ভরার সময় একটি ট্যাঙ্কে লিক ধরা পড়ে। সেই অক্সিজেনের লিকের ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে চারিদিকে সাদা ধোঁয়ায় ঢেকে থাকতে দেখা যায়। 

সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, করোনা আক্রান্তদের জন্য সেই হাসপাতাল চালাচ্ছিল নাসিক পৌরসভা। যে হাসপাতালে ১৫০ জন রোগী চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাদের মধ্যে ২৩ জন ভেন্টিলেশনে ছিলেন।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, ঘটনার সময় অন্তত ১৭১ জন রোগীর চিকিৎসা চলছিল ওই হাসপাতালে। এর মধ্যে ৩১ জন রোগীকে অন্য হাসপাতালে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়। বাকি রোগীরা হাসপাতালেই ছিলেন। 

হাসপাতাল সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মৃত রোগীদের মধ্যে ১০ জন ঘটনার সময় ভেন্টিলেশনে ছিলেন। 

সংবাদ সংস্থা এএনআই মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপীকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, অক্সিজেনে ঘাটতির কারণেই ভেন্টিলেশনে থাকা রোগীদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নাসিকের পুরনিগমের কমিশনার কৈলাস যাদব জানিয়েছেন, হাসপাতালে অক্সিজেন লিকের কারণ প্রায় ৩০ মিনিট বন্ধ ছিল অক্সিজেন সরবরাহ। সেজন্যই ভেন্টিলেশনে থাকা রোগীদের মৃত্যু হতে পারে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস