করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিনামূল্যে চিকিৎসার আবেদন
jugantor
করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিনামূল্যে চিকিৎসার আবেদন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২২ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৪৩:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরকারি খরচে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ভর্তি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা ও জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

একইসঙ্গে কোভিড-১৯ টিকাদানের ক্ষেত্রেও আইনজীবীদের অগ্রাধিকার দেয়ার জন্য দাবি জানিয়েছেন তিনি।

আবেদনে বলা হয়েছে, মানুষের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার কাজে নিয়োজিত ফ্রন্টলাইনার আইনজীবীরা। তাই সকল সরকারি হাসপাতালে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আইনজীবীদের জন্য এই ব্যবস্থা করা প্রয়োজন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লেখা আবেদনে বলা হয়েছে, আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আইনজীবীরা দেশের মানুষের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার চালিকাশক্তি হিসেবে আইনি সহায়তা কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছে। আইনজীবীদের প্রধান কাজ দেশের মানুষের মানবাধিকার নিশ্চিত ও আইনি সুরক্ষা প্রদান করা।

করোনার এই ভয়াল মহামারিতেও আইনজীবীদের প্রতিদিন আদালতে এসে হাজার হাজার বিচারপ্রার্থী মানুষের সংস্পর্শে এসে বিচারিক কাজে অংশগ্রহণ করতে হয়। যার ফলে সারা দেশে পাঁচ শতাধিক আইনজীবী করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এখনো শতশত আইনজীবী করোনায় আক্রান্ত আছে। আইনজীবীরা হলো দেশের মানুষের সাংবিধানিক অধিকার ও মানবাধিকার রক্ষার কার্যক্রমের ফ্রন্টলাইনার। অতএব আইনজীবীদের করোনার হাত থেকে সুরক্ষা প্রদান করা, জীবন রক্ষার ক্ষেত্রে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব।

কিন্তু দুঃখের বিষয়, করোনা মহামারির টিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে আইনজীবীদের কোনো মূল্যায়ন করা হয়নি। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগের ক্ষেত্রে যে নীতিমালা ও শ্রেণি বিন্যাস সংক্রান্ত যে তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে, এর কোনো স্তরে আইনজীবীদের শ্রেণির উল্লেখ নাই। যা সত্যিই লজ্জার।

গত ১৯ এপ্রিল করা আবেদনে মাহাবুব উদ্দিন খোকন বলেন, অতি দুঃখের বিষয় যে, আইনের শাসনের অতন্দ্র প্রহরী আইনজীবীদের নাম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক (কোভিড-১৯) এর ভ্যাকসিন প্রয়োগের চূড়ান্ত তালিকায় রাখা হয়নি।

অগ্রাধিকার কোটায় আইনজীবীদের নাম না থাকায় আমরা হতবাক ও বিস্মিত। এছাড়াও সারা দেশে অনেক জেলা উপজেলায় করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করানো হচ্ছে না ও ভর্তি করা হলেও সম্মানজনকভাবে কেবিন ও সিট দেয়া হচ্ছে না মর্মে অভিযোগ রয়েছে। ফলে অনেক আইনজীবীকে অর্থাভাবে বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিতে গিয়ে সর্বশান্ত হতে হচ্ছে।

অতএব জরুরি ভিওিতে অগ্রাধিকার তালিকায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের তালিকাভুক্ত আইনজীবীদের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টিকল্পে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি এবং করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের দেশের সব জেলা, উপজেলা ও মহানগর পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালে দ্রুত কোভিড-১৯ টিকা প্রদান এবং প্রয়োজনে আইনের শাসনের অতন্দ্র প্রহরী আইনজীবীদের ভর্তি ও সম্মানজনক কেবিন ও সিট প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নিকট বিনীত অনুরোধ করছি।

করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিনামূল্যে চিকিৎসার আবেদন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২২ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরকারি খরচে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ভর্তি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা ও জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

একইসঙ্গে কোভিড-১৯ টিকাদানের ক্ষেত্রেও আইনজীবীদের অগ্রাধিকার দেয়ার জন্য দাবি জানিয়েছেন তিনি।

আবেদনে বলা হয়েছে, মানুষের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার কাজে নিয়োজিত ফ্রন্টলাইনার আইনজীবীরা। তাই সকল সরকারি হাসপাতালে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আইনজীবীদের জন্য এই ব্যবস্থা করা প্রয়োজন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লেখা আবেদনে বলা হয়েছে, আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আইনজীবীরা দেশের মানুষের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার চালিকাশক্তি হিসেবে আইনি সহায়তা কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছে। আইনজীবীদের প্রধান কাজ দেশের মানুষের মানবাধিকার নিশ্চিত ও আইনি সুরক্ষা প্রদান করা।

করোনার এই ভয়াল মহামারিতেও আইনজীবীদের প্রতিদিন আদালতে এসে হাজার হাজার বিচারপ্রার্থী মানুষের সংস্পর্শে এসে বিচারিক কাজে অংশগ্রহণ করতে হয়। যার ফলে সারা দেশে পাঁচ শতাধিক আইনজীবী করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এখনো শতশত আইনজীবী করোনায় আক্রান্ত আছে। আইনজীবীরা হলো দেশের মানুষের সাংবিধানিক অধিকার ও মানবাধিকার রক্ষার কার্যক্রমের ফ্রন্টলাইনার। অতএব আইনজীবীদের করোনার হাত থেকে সুরক্ষা প্রদান করা, জীবন রক্ষার ক্ষেত্রে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব।

কিন্তু দুঃখের বিষয়, করোনা মহামারির টিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে আইনজীবীদের কোনো মূল্যায়ন করা হয়নি। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগের ক্ষেত্রে যে নীতিমালা ও শ্রেণি বিন্যাস সংক্রান্ত যে তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে, এর কোনো স্তরে আইনজীবীদের শ্রেণির উল্লেখ নাই। যা সত্যিই লজ্জার।

গত ১৯ এপ্রিল করা আবেদনে মাহাবুব উদ্দিন খোকন বলেন, অতি দুঃখের বিষয় যে, আইনের শাসনের অতন্দ্র প্রহরী আইনজীবীদের নাম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক (কোভিড-১৯) এর ভ্যাকসিন প্রয়োগের চূড়ান্ত তালিকায় রাখা হয়নি।

অগ্রাধিকার কোটায় আইনজীবীদের নাম না থাকায় আমরা হতবাক ও বিস্মিত। এছাড়াও সারা দেশে অনেক জেলা উপজেলায় করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করানো হচ্ছে না ও ভর্তি করা হলেও সম্মানজনকভাবে কেবিন ও সিট দেয়া হচ্ছে না মর্মে অভিযোগ রয়েছে। ফলে অনেক আইনজীবীকে অর্থাভাবে বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিতে গিয়ে সর্বশান্ত হতে হচ্ছে।

অতএব জরুরি ভিওিতে অগ্রাধিকার তালিকায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের তালিকাভুক্ত আইনজীবীদের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টিকল্পে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি এবং করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের দেশের সব জেলা, উপজেলা ও মহানগর পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালে দ্রুত কোভিড-১৯ টিকা প্রদান এবং প্রয়োজনে আইনের শাসনের অতন্দ্র প্রহরী আইনজীবীদের ভর্তি ও সম্মানজনক কেবিন ও সিট প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নিকট বিনীত অনুরোধ করছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন