কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের ১০০ কমিটি
jugantor
কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের ১০০ কমিটি

  নওগাঁ প্রতিনিধি  

২৯ এপ্রিল ২০২১, ২১:৩৮:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি মৌসুমে ইরি বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু হয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। নওগাঁ জেলা যুবলীগের উদ্যোগে অসহায় কৃষকদের ধান কাটা-মাড়াই করে দেওয়া হচ্ছে। কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের ১০০ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নওগাঁ সদর উপজেলায় দ্বিতীয় দিনের মতো টিএন্ডটিপাড়া মাঠে দরিদ্র চাষী হারুনুর রশীদের জমির পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দেন যুবলীগ কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার দিনভর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায়ের নেতৃত্বে এ কাজ করা হয়।

দুর্যোগ মোকাবিলায় অসহায় কৃষকের জমি থেকে ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিতে নওগাঁয় ১০০ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছে। যুবলীগের এই কাজে উপকৃত হচ্ছেন কৃষকরা। জেলা যুবলীগের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বিশিষ্টজনরা।

কৃষক হারুনুর রশীদ বলেন, বোরো ধান কাটার মৌসুম চলছে। ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। আবার শ্রমিক পাওয়া গেলেও মজুরি বেশি। ঝড়বৃষ্টি শুরু হলে ধানের ক্ষতি হয়ে যাবে এবং বিপদে পড়তে হবে। পরে যুবলীগের ভাইদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা ধান কেটে দিলেও কোনো মজুরি নেয়নি। আমার অনেক উপকার হয়েছে।

নওগাঁ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায় বলেন, কৃষকরা কষ্ট করে তাদের সোনার ফসল ফলিয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বোরো ধান কাটার ভরা মৌসুমে নওগাঁয় শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। শ্রমিক সংকটে কৃষকরা পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন। ধান কাটার খরচও পড়ছে বেশি। তাই অনেক দরিদ্র কৃষক ক্ষেতের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছেন না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে কৃষকদের সুবিধার জন্য ধান কেটে দিয়েছি। জেলার ১১টি উপজেলায় ধান কাটার জন্য যুবলীগ ১০০ কমিটি গঠন করেছে। কৃষক ফোন করলেই কমিটির সদস্যরা ধান কেটে দিয়ে তাদের সহায়তা করছে।

কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের ১০০ কমিটি

 নওগাঁ প্রতিনিধি 
২৯ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি মৌসুমে ইরি বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু হয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। নওগাঁ জেলা যুবলীগের উদ্যোগে অসহায় কৃষকদের ধান কাটা-মাড়াই করে দেওয়া হচ্ছে। কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের ১০০ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নওগাঁ সদর উপজেলায় দ্বিতীয় দিনের মতো টিএন্ডটিপাড়া মাঠে দরিদ্র চাষী হারুনুর রশীদের জমির পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দেন যুবলীগ কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার দিনভর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায়ের নেতৃত্বে এ কাজ করা হয়।

দুর্যোগ মোকাবিলায় অসহায় কৃষকের জমি থেকে ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিতে নওগাঁয় ১০০ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছে। যুবলীগের এই কাজে উপকৃত হচ্ছেন কৃষকরা। জেলা যুবলীগের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বিশিষ্টজনরা।

কৃষক হারুনুর রশীদ বলেন, বোরো ধান কাটার মৌসুম চলছে। ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। আবার শ্রমিক পাওয়া গেলেও মজুরি বেশি। ঝড়বৃষ্টি শুরু হলে ধানের ক্ষতি হয়ে যাবে এবং বিপদে পড়তে হবে। পরে যুবলীগের ভাইদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা ধান কেটে দিলেও কোনো মজুরি নেয়নি। আমার অনেক উপকার হয়েছে।

নওগাঁ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায় বলেন, কৃষকরা কষ্ট করে তাদের সোনার ফসল ফলিয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বোরো ধান কাটার ভরা মৌসুমে নওগাঁয় শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। শ্রমিক সংকটে কৃষকরা পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন। ধান কাটার খরচও পড়ছে বেশি। তাই অনেক দরিদ্র কৃষক ক্ষেতের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছেন না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে কৃষকদের সুবিধার জন্য ধান কেটে দিয়েছি। জেলার ১১টি উপজেলায় ধান কাটার জন্য যুবলীগ ১০০ কমিটি গঠন করেছে। কৃষক ফোন করলেই কমিটির সদস্যরা ধান কেটে দিয়ে তাদের সহায়তা করছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস