‘দেশেই করোনার টিকা তৈরি করার চেষ্টা চলছে’
jugantor
‘দেশেই করোনার টিকা তৈরি করার চেষ্টা চলছে’

  মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৫ মে ২০২১, ২২:৪৮:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমাদের দেশেই করোনার টিকা তৈরি করার চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। এছাড়া আমেরিকা ও ভারত থেকে টিকা আনার জোড় চেষ্টা চলছে।

শনিবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জের গড়পাড়ায় মন্ত্রীর বাগানবাড়িতে স্থানীয় পর্যায়ের ব্যক্তিদের সঙ্গে ঈদ পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ঈদ উপলক্ষে মানুষ যেভাবে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল, তাতে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করেছিলাম বলে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, সেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর আন্তরিক চেষ্টা ও জনগণের মাস্ক পরার প্রবণতা বেড়েছে বলে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আছে। আমেরিকা, ইউরোপ, ভারতসহ উন্নত দেশগুলোর চেয়ে বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি অনেকটা ভালো আছে।

তিনি বলেন, দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে। বিভিন্ন হাসপাতালে দেড় হাজার রোগী আছেন। হাসপাতালে শয্যা খালি সাড়ে ১০ হাজার। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে এক হাজার শয্যার করোনা হাসপাতাল নির্মাণ করা হয়েছে। মহামারির সময়েও আমাদের অর্থনীতির চাকা ঘুরছে, কৃষিতে বাম্পার ফলন হয়েছে, এটা খুবই ভালো লক্ষণ। আমাদের এই ভালো অবস্থানকে ধরে রাখতে হলে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, জজ কোর্টের পিপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, মানিকগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. রমজান আলী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ ফটো প্রমুখ।

‘দেশেই করোনার টিকা তৈরি করার চেষ্টা চলছে’

 মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৫ মে ২০২১, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমাদের দেশেই করোনার টিকা তৈরি করার চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। এছাড়া আমেরিকা ও ভারত থেকে টিকা আনার জোড় চেষ্টা চলছে।

শনিবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জের গড়পাড়ায় মন্ত্রীর বাগানবাড়িতে স্থানীয় পর্যায়ের ব্যক্তিদের সঙ্গে ঈদ পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ঈদ উপলক্ষে মানুষ যেভাবে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল, তাতে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করেছিলাম বলে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, সেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর আন্তরিক চেষ্টা ও জনগণের মাস্ক পরার প্রবণতা বেড়েছে বলে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আছে। আমেরিকা, ইউরোপ, ভারতসহ উন্নত দেশগুলোর চেয়ে বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি অনেকটা ভালো আছে।

তিনি বলেন, দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে। বিভিন্ন হাসপাতালে দেড় হাজার রোগী আছেন। হাসপাতালে শয্যা খালি সাড়ে ১০ হাজার। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে এক হাজার শয্যার করোনা হাসপাতাল নির্মাণ করা হয়েছে। মহামারির সময়েও আমাদের অর্থনীতির চাকা ঘুরছে, কৃষিতে বাম্পার ফলন হয়েছে, এটা খুবই ভালো লক্ষণ। আমাদের এই ভালো অবস্থানকে ধরে রাখতে হলে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, জজ কোর্টের পিপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, মানিকগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. রমজান আলী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ ফটো প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস