যুক্তরাষ্ট্রের টিকা চেয়ে চিঠি: ‘দু–এক দিনের মধ্যে’ জবাব আসছে
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রের টিকা চেয়ে চিঠি: ‘দু–এক দিনের মধ্যে’ জবাব আসছে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ মে ২০২১, ১৯:৪১:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে বৈঠকে টিকা নিয়ে আলোচনা করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম

করোনাভাইরাসের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে থাকা অক্সফোর্ড-আ্যস্ট্রাজেনেকার ৪০ লাখ টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্র দু-এক দিনের মধ্যেই বাংলাদেশের অনুরোধের আনুষ্ঠানিক জবাব দেবে বলে আশা করছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

সোমবার ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে বৈঠকের পর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

শাহরিয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশের টিকার অনুরোধের বিষয়টি তাদের সক্রিয় বিবেচনায় রয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে যে চিঠি লিখেছেন, তার উত্তর এক-দুই দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে।

তিনি জানান, বাংলাদেশে টিকা উৎপাদন করা যায় কি না, সে বিষয়ে তারা আলোচনা করছেন। তবে অবশ্যই এটি দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা। বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলোর সহযোগিতায় যৌথভাবে টিকা উৎপাদনের বিষয়ে এর মধ্যেই ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

অগ্রিম টাকা নিয়েও ভারত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত সেরামের টিকা বাংলাদেশে রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে।সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত কোভিশিল্ড টিকা পেতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে চিঠি দিয়েছিল বাংলাদেশ সরকার। কোভিশিল্ডের ৬ কোটি ডোজ টিকা অবশিষ্ট রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে। ওই খবর জানার পরপরই এই চিঠি দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের টিকা চেয়ে চিঠি: ‘দু–এক দিনের মধ্যে’ জবাব আসছে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ মে ২০২১, ০৭:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে বৈঠকে টিকা নিয়ে আলোচনা করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম
যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে বৈঠকে টিকা নিয়ে আলোচনা করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

করোনাভাইরাসের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে থাকা অক্সফোর্ড-আ্যস্ট্রাজেনেকার ৪০ লাখ টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ।  যুক্তরাষ্ট্র দু-এক দিনের মধ্যেই বাংলাদেশের অনুরোধের আনুষ্ঠানিক জবাব দেবে বলে আশা করছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

সোমবার ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে বৈঠকের পর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

শাহরিয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশের টিকার অনুরোধের বিষয়টি তাদের সক্রিয় বিবেচনায় রয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে যে চিঠি লিখেছেন, তার উত্তর এক-দুই দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে।

তিনি জানান, বাংলাদেশে টিকা উৎপাদন করা যায় কি না, সে বিষয়ে তারা আলোচনা করছেন। তবে অবশ্যই এটি দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা। বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলোর সহযোগিতায় যৌথভাবে টিকা উৎপাদনের বিষয়ে এর মধ্যেই ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

অগ্রিম টাকা নিয়েও ভারত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত সেরামের টিকা বাংলাদেশে রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে।সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত কোভিশিল্ড টিকা পেতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে চিঠি দিয়েছিল বাংলাদেশ সরকার। কোভিশিল্ডের ৬ কোটি ডোজ টিকা অবশিষ্ট রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে। ওই খবর জানার পরপরই এই চিঠি দেওয়া হয়েছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস