করোনার উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু
jugantor
সিজিএসের প্রতিবেদন
করোনার উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু

  ঢাবি প্রতিনিধি  

১৭ মে ২০২১, ২১:৫৮:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ পিস অবজারভেটরি (বিপিও) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

সোমবার এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে বাংলাদেশ পিস অবজারভেটরি (বিপিও)। এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজের (সিজিএস) একটি প্রকল্প। মূলত করোনা পরিস্থিতি নিয়ে দেশের ২৫টি গণমাধ্যমের সংবাদ বিশ্লেষণ করে গত বছরের ৮ মার্চ প্রতি সপ্তাহে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে এটি।

২৫টি গণমাধ্যমের সংবাদ বিশ্লেষণ করে সোমবারের প্রতিবেদনে বিপিও জানিয়েছে, ২২ মার্চ থেকে ১২ মে পর্যন্ত সারা দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের লক্ষণ বা উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। উপসর্গ নিয়ে মৃতদের মধ্যে ৭৪১ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৩৯৬ জন ঢাকা বিভাগের, ৩৬৫ জন খুলনা বিভাগের, ২৩৭ জন রাজশাহী বিভাগের, ২৪৪ জন বরিশাল বিভাগের, ১০২ জন সিলেট বিভাগের, ৯৫ জন রংপুর বিভাগের এবং ৬৪ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা। এটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, এসব ক্ষেত্রে পরীক্ষা করে ৮৫ শতাংশের করোনা পাওয়া যায়নি বলেও উলে­খ করা হয়েছে গবেষণা প্রতিবেদনে।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আরও কয়েকটি বিষয়ে তথ্য তুলে ধরেছে বিপিও। তাদের প্রতিবেদন বলছে, স্কুল ও কোচিং চালানো, বিবাহের অনুষ্ঠানের আয়োজন এবং করোনা বিষয়ে সরকারি নির্দেশনা লঙ্ঘনের মতো অনিয়ম ও অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে ৯৫৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, জরিমানা করা হয়েছে ২৬ হাজার ৫০৬ জনকে।

বিওপির গবেষকরা বলছেন, দৈনিক সংবাদপত্র জাতীয় ও আঞ্চলিক, টেলিভিশন, অনলাইন মিলে ২৫টি গণমাধ্যম থেকে প্রতিদিন তথ্য নিচ্ছে বিপিও। এরপর এসব তথ্য থেকে মোটামুটি গ্রহণযোগ্যতা চূড়ান্ত করা হচ্ছে। তবে মাঠপর্যায় থেকে এসব তথ্য যাচাই করা হয় না।

সিজিএসের প্রতিবেদন

করোনার উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু

 ঢাবি প্রতিনিধি 
১৭ মে ২০২১, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনা
ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ পিস অবজারভেটরি (বিপিও) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

সোমবার এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে বাংলাদেশ পিস অবজারভেটরি (বিপিও)। এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজের (সিজিএস) একটি প্রকল্প। মূলত করোনা পরিস্থিতি নিয়ে দেশের ২৫টি গণমাধ্যমের সংবাদ বিশ্লেষণ করে গত বছরের ৮ মার্চ প্রতি সপ্তাহে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে এটি।

২৫টি গণমাধ্যমের সংবাদ বিশ্লেষণ করে সোমবারের প্রতিবেদনে বিপিও জানিয়েছে, ২২ মার্চ থেকে ১২ মে পর্যন্ত সারা দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের লক্ষণ বা উপসর্গ নিয়ে ২ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। উপসর্গ নিয়ে মৃতদের মধ্যে ৭৪১ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৩৯৬ জন ঢাকা বিভাগের, ৩৬৫ জন খুলনা বিভাগের, ২৩৭ জন রাজশাহী বিভাগের, ২৪৪ জন বরিশাল বিভাগের, ১০২ জন সিলেট বিভাগের, ৯৫ জন রংপুর বিভাগের এবং ৬৪ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা। এটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, এসব ক্ষেত্রে পরীক্ষা করে ৮৫ শতাংশের করোনা পাওয়া যায়নি বলেও উলে­খ করা হয়েছে গবেষণা প্রতিবেদনে।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আরও কয়েকটি বিষয়ে তথ্য তুলে ধরেছে বিপিও। তাদের প্রতিবেদন বলছে, স্কুল ও কোচিং চালানো, বিবাহের অনুষ্ঠানের আয়োজন এবং করোনা বিষয়ে সরকারি নির্দেশনা লঙ্ঘনের মতো অনিয়ম ও অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে ৯৫৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, জরিমানা করা হয়েছে ২৬ হাজার ৫০৬ জনকে। 

বিওপির গবেষকরা বলছেন, দৈনিক সংবাদপত্র জাতীয় ও আঞ্চলিক, টেলিভিশন, অনলাইন মিলে ২৫টি গণমাধ্যম থেকে প্রতিদিন তথ্য নিচ্ছে বিপিও। এরপর এসব তথ্য থেকে মোটামুটি গ্রহণযোগ্যতা চূড়ান্ত করা হচ্ছে। তবে মাঠপর্যায় থেকে এসব তথ্য যাচাই করা হয় না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস