নোয়াখালীতে বাড়িভিত্তিক লকডাউন
jugantor
নোয়াখালীতে বাড়িভিত্তিক লকডাউন

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

৩১ মে ২০২১, ১৮:০৪:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১২১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১০১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তের হার ২৯ দশমিক ৩৬ ভাগ।

এদিকে জেলায় গত মাসের তুলনায় চলতি মাসে করোনাভাইরাসে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বাড়িভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

সোমবার সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন, জেলা সদরসহ প্রতিটি উপজেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ভাইরাসটির সংক্রমণ রোধে আমরা বাড়িভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছি। এ লক্ষ্যে প্রতিটি উপজেলায় ইউনিয়নভিত্তিক কমিটি করা হয়েছে। যে বাড়িতে করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্ত হবে সেই বাড়ি লকডাউন করা হবে।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় তিনটি ল্যাবে ৩৪৪টি নমুনা পরীক্ষায় ১০১টি পজিটিভ ও ২৪৩টির ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ৫৩৬ জন। যার মধ্যে সর্বোচ্চ নোয়াখালী সদরে ২৮৮৯ ও বেগমগঞ্জে ১৮৩০ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১২১জন, আর সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৩৭২ জন রোগী। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৪ দশমিক ৬৫ভাগ। আইসোলেশনে আছেন ২ হাজার ৪৩ জন এবং কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪৩ জন রোগী।

নোয়াখালীতে বাড়িভিত্তিক লকডাউন

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
৩১ মে ২০২১, ০৬:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১২১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১০১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তের হার ২৯ দশমিক ৩৬ ভাগ।

এদিকে জেলায় গত মাসের তুলনায় চলতি মাসে করোনাভাইরাসে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বাড়িভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

সোমবার সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন, জেলা সদরসহ প্রতিটি উপজেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ভাইরাসটির সংক্রমণ রোধে আমরা বাড়িভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছি। এ লক্ষ্যে প্রতিটি উপজেলায় ইউনিয়নভিত্তিক কমিটি করা হয়েছে। যে বাড়িতে করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্ত হবে সেই বাড়ি লকডাউন করা হবে।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় তিনটি ল্যাবে ৩৪৪টি নমুনা পরীক্ষায় ১০১টি পজিটিভ ও ২৪৩টির ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ৫৩৬ জন। যার মধ্যে সর্বোচ্চ নোয়াখালী সদরে ২৮৮৯ ও বেগমগঞ্জে ১৮৩০ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১২১জন, আর সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৩৭২ জন রোগী। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৪ দশমিক ৬৫ভাগ। আইসোলেশনে আছেন ২ হাজার ৪৩ জন এবং কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪৩ জন রোগী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস