করোনাভাইরাস শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন!
jugantor
করোনাভাইরাস শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন!

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া  

০৭ জুন ২০২১, ১৬:৫৬:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাস শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন

মালয়েশিয়ায় কোভিড-১৯ শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন। ভাইরাসের তাপমাত্রা শনাক্তে এ ড্রোন ব্যবহার করছে দেশটির আইন শৃঙ্খলাবাহিনী।

এদিকে সংক্রমণ নির্মূলে দেশটিতে চলছে দুই সপ্তাহের কড়া লকডাউন। আর এ লকডাউনের মাঝেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে ড্রোন ব্যবহার করবে বলে দেশটির পুলিশ সতর্ক করে দিয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মালয়েশিয়ার পুলিশ কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অংশ হিসেবে প্রকাশ্য স্থানে উচ্চ তাপমাত্রার লোকদের সনাক্ত করতে ড্রোন ব্যবহার করছে।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বার্নামার উদ্ধৃতি দিয়ে দ্য-গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ড্রোনগুলো মানুষের তাপমাত্রা স্থল থেকে ২০ মিটার উপরে উচ্চতর তাপমাত্রা শনাক্ত করতে পারে, কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করার জন্য একটি লাল আলো প্রদর্শন করবে।

এদিকে ১ জুন থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত কঠোর লকডাউনের আগে মে মাসের শেষদিকে সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ৯ হাজারেরও বেশি।

এতে যদিও প্রতিদিনের শনাক্তের হার কমেছে, তবুও স্বাস্থ্য মহাপরিচালক নূর হিশাম আবদুল্লাহ সতর্ক করেছেন, নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর সিংহভাগই অজানা যোগাযোগের কারণে।

ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে সোমবার এক বিবৃতিতে নূর হিশাম আব্দুল্লাহ বলেছেন, এর অন্যতম কারণ হল নতুন রোগের উত্থান যার কারণে উচ্চরোগে আক্রান্ত হওয়া এবং মৃত্যুর সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে চলমান লকডাউন নিয়মের অধীনে, প্রতিটি পরিবারের কেবল দু'জন ব্যক্তিকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে অনুমতি দেয়া হয়েছে। লকডাউনে বন্ধ রয়েছে স্কুল এবং শপিংমলগুলো।

তেরেংগানু রাজ্যের পুলিশ প্রধান রোহাইমী মো. ওংধসা জানিয়েছেন, কর্মকর্তারা সাম্প্রতিক দিনগুলোতে তাপমাত্রা পর্যবেক্ষণে ড্রোন ব্যবহার শুরু করেছেন।

এদিকে সোমবার ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন ৮২ জন। এ নিয়ে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৩ হাজার ৪৬০ জন।

একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ২৭১ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ২২ হাজার ৮৬ জন। সুস্থ হয়েছেন মোট ৫ লাখ ৩৪ হাজার ৩৫৭ জন।

করোনাভাইরাস শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন!

 আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া 
০৭ জুন ২০২১, ০৪:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাস শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন
ছবি: দ্য গার্ডিয়ান

মালয়েশিয়ায় কোভিড-১৯ শনাক্তে যুক্ত হল ড্রোন। ভাইরাসের তাপমাত্রা শনাক্তে এ ড্রোন ব্যবহার করছে দেশটির আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। 

এদিকে সংক্রমণ নির্মূলে দেশটিতে চলছে দুই সপ্তাহের কড়া লকডাউন। আর এ লকডাউনের মাঝেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে ড্রোন ব্যবহার করবে বলে দেশটির পুলিশ সতর্ক করে দিয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মালয়েশিয়ার পুলিশ কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অংশ হিসেবে প্রকাশ্য স্থানে উচ্চ তাপমাত্রার লোকদের সনাক্ত করতে ড্রোন ব্যবহার করছে।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বার্নামার উদ্ধৃতি দিয়ে দ্য-গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ড্রোনগুলো মানুষের তাপমাত্রা স্থল থেকে ২০ মিটার উপরে উচ্চতর তাপমাত্রা শনাক্ত করতে পারে, কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করার জন্য একটি লাল আলো প্রদর্শন করবে। 

এদিকে ১ জুন থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত কঠোর লকডাউনের আগে মে মাসের শেষদিকে সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ৯ হাজারেরও বেশি।

এতে যদিও প্রতিদিনের শনাক্তের হার কমেছে, তবুও স্বাস্থ্য মহাপরিচালক নূর হিশাম আবদুল্লাহ সতর্ক করেছেন, নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর সিংহভাগই অজানা যোগাযোগের কারণে। 

ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে সোমবার এক বিবৃতিতে নূর হিশাম আব্দুল্লাহ বলেছেন, এর অন্যতম কারণ হল নতুন রোগের উত্থান যার কারণে উচ্চরোগে আক্রান্ত হওয়া এবং মৃত্যুর সম্ভাবনা রয়েছে। 

এদিকে চলমান লকডাউন নিয়মের অধীনে, প্রতিটি পরিবারের কেবল দু'জন ব্যক্তিকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে অনুমতি দেয়া হয়েছে। লকডাউনে বন্ধ রয়েছে স্কুল এবং শপিংমলগুলো। 

তেরেংগানু রাজ্যের পুলিশ প্রধান রোহাইমী মো. ওংধসা জানিয়েছেন, কর্মকর্তারা সাম্প্রতিক দিনগুলোতে তাপমাত্রা পর্যবেক্ষণে ড্রোন ব্যবহার শুরু করেছেন। 

এদিকে সোমবার ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন ৮২ জন। এ নিয়ে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৩ হাজার ৪৬০ জন। 

একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ২৭১ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ২২ হাজার ৮৬ জন। সুস্থ হয়েছেন মোট ৫ লাখ ৩৪ হাজার ৩৫৭ জন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস