বাদুড়ের দেহে মিলল ২৪ রকমের নয়া করোনাভাইরাস
jugantor
বাদুড়ের দেহে মিলল ২৪ রকমের নয়া করোনাভাইরাস

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ জুন ২০২১, ১১:৩৪:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বাদুড়ের দেহে বেশ কয়েকটি নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সন্ধান পেলেন চীনের গবেষকরা।

দক্ষিণ-পশ্চিম চীনে বাদুড়ের দেহ থেকে এই ভাইরাস খুঁজে পেয়েছেন তারা। এমনই দাবি করে চীনা বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নতুন গোত্রের এ ভাইরাসই প্রমাণ করে দিচ্ছে যে, কত ধরনের করোনাভাইরাসের বাহক বাদুড়। তাদের মধ্যে বেশ কিছু মানবদেহে সংক্রমণ ঘটায়। খবর সিএনএনের।

স্যানডং বিশ্ববিদ্যালয়ের চীনা গবেষকরা জানিয়েছেন, বেশ কিছু প্রজাতির বাদুড়ের দেহ থেকে ২৪ ধরনের নভেল করোনাভাইরাস সংগ্রহ করা হয়েছে। তার মধ্যে চারটে আবার সার্স কোভ-২ গোত্রের।

গবেষকরা আরও জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের মে থেকে ২০২০ সালের নভেম্বরের মধ্যে ছোট ছোট বাদুড় এবং জঙ্গলের বাদুড়ের মল, মূত্র—এমনকি লালারসের পরীক্ষা করেছেন। সেখান থেকে যেসব করোনাভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন, তার মধ্যে একটি জিনগতভাবে সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয়, যা বর্তমানে প্রাণঘাতী মহামারি সৃষ্টি করেছে।

তারা আরও দাবি করেছেন, ২০২০ সালে থাইল্যান্ড থেকে যে ভাইরাস সংগ্রহ করেছেন, তা সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয়। এই পরীক্ষা থেকে এটিই স্পষ্ট যে, সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয় ভাইরাসের বাহক বাদুড়ই।

করোনার উৎস কী তা নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো উত্তর মেলেনি। অভিযোগ উঠেছে, চীনের উহান থেকেই এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়েছে। যদিও চীন তা অস্বীকার করেছে বারবারই।

করোনার উৎস খুঁজতে একটা তদন্ত কমিটিও গঠন করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু সন্তোষজনক উত্তর না মেলায় চীনের বিরুদ্ধে ফের তদন্তের দাবি জোরালো হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। এমন একটি সময়ে চীনা গবেষকরা দাবি করলেন, বেশ কয়েকটি নতুন গোত্রের করোনাভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন তারা।

বাদুড়ের দেহে মিলল ২৪ রকমের নয়া করোনাভাইরাস

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ জুন ২০২১, ১১:৩৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাদুড়ের দেহে বেশ কয়েকটি নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সন্ধান পেলেন চীনের গবেষকরা।

দক্ষিণ-পশ্চিম চীনে বাদুড়ের দেহ থেকে এই ভাইরাস খুঁজে পেয়েছেন তারা। এমনই দাবি করে চীনা বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নতুন গোত্রের এ ভাইরাসই প্রমাণ করে দিচ্ছে যে, কত ধরনের করোনাভাইরাসের বাহক বাদুড়। তাদের মধ্যে বেশ কিছু মানবদেহে সংক্রমণ ঘটায়। খবর সিএনএনের।

স্যানডং বিশ্ববিদ্যালয়ের চীনা গবেষকরা জানিয়েছেন, বেশ কিছু প্রজাতির বাদুড়ের দেহ থেকে ২৪ ধরনের নভেল করোনাভাইরাস সংগ্রহ করা হয়েছে। তার মধ্যে চারটে আবার সার্স কোভ-২ গোত্রের।

গবেষকরা আরও জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের মে থেকে ২০২০ সালের নভেম্বরের মধ্যে ছোট ছোট বাদুড় এবং জঙ্গলের বাদুড়ের মল, মূত্র—এমনকি লালারসের পরীক্ষা করেছেন। সেখান থেকে যেসব করোনাভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন, তার মধ্যে একটি জিনগতভাবে সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয়, যা বর্তমানে প্রাণঘাতী মহামারি সৃষ্টি করেছে।

তারা আরও দাবি করেছেন, ২০২০ সালে থাইল্যান্ড থেকে যে ভাইরাস সংগ্রহ করেছেন, তা সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয়। এই পরীক্ষা থেকে এটিই স্পষ্ট যে, সার্স কোভ ২-এর সমগোত্রীয় ভাইরাসের বাহক বাদুড়ই।

করোনার উৎস কী তা নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো উত্তর মেলেনি। অভিযোগ উঠেছে, চীনের উহান থেকেই এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়েছে। যদিও চীন তা অস্বীকার করেছে বারবারই।

করোনার উৎস খুঁজতে একটা তদন্ত কমিটিও গঠন করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু সন্তোষজনক উত্তর না মেলায় চীনের বিরুদ্ধে ফের তদন্তের দাবি জোরালো হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। এমন একটি সময়ে চীনা গবেষকরা দাবি করলেন, বেশ কয়েকটি নতুন গোত্রের করোনাভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন তারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস