নোয়াখালীতে করোনায় আক্রান্ত আরও ১৯১
jugantor
নোয়াখালীতে করোনায় আক্রান্ত আরও ১৯১

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৫ জুন ২০২১, ০৯:৫৮:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস

নোয়াখালীতে করোনায় আক্রান্তের রেকর্ড ছাড়াল। জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরও ১৯১ জন। আক্রান্তের হার ৩৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ, যা জেলার জন্য একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ হাজার ৮৩৬ জন।

মঙ্গলবার সকালে তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার তিনটি পিসিআর ল্যাবে ৫৬৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যার মধ্যে সদরে ১২৫, বেগমগঞ্জে ২০, সোনাইমুড়ীতে তিন, চাটখিলে ৬, সেনবাগে ২, কোম্পানীগঞ্জে ২৭, সুবর্ণচরে ১, ও কবিরহাট উপজেলার ৭জন রোগী রয়েছে। জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন সাত হাজার ১৩০ জন, শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭২ দশমিক ৪৯শতাংশ। আইসোলেশনে রয়েছেন দুই হাজার ৪৭৯ জন ও শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামের অস্থায়ী কোভিড হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫৭ রোগী।

এদিকে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ৫ জুন থেকে নোয়াখালী পৌরসভা ও সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে সাত দিনের বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি। কিন্তু সংক্রমণ বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় দ্বিতীয় দফায় গত ১২ জুন আরও সাত দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেন ওই কমিটি।

দুই দফায় ১০ দিনের লকডাউন শেষ হলেও কমছে না আক্রান্তের সংখ্যা। প্রতিদিনই বাড়ছে নতুন সংক্রমণ। শনাক্তের হার ২০ শতাংশের নিচে নামছে না।

নোয়াখালীতে করোনায় আক্রান্ত আরও ১৯১

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৫ জুন ২০২১, ০৯:৫৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনাভাইরাস
ফাইল ছবি

নোয়াখালীতে করোনায় আক্রান্তের রেকর্ড ছাড়াল। জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরও ১৯১ জন। আক্রান্তের হার ৩৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ, যা জেলার জন্য একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ হাজার ৮৩৬ জন।

মঙ্গলবার সকালে তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার তিনটি পিসিআর ল্যাবে ৫৬৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যার মধ্যে সদরে ১২৫, বেগমগঞ্জে ২০, সোনাইমুড়ীতে তিন, চাটখিলে ৬, সেনবাগে ২, কোম্পানীগঞ্জে ২৭, সুবর্ণচরে ১, ও কবিরহাট উপজেলার ৭জন রোগী রয়েছে। জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন সাত হাজার ১৩০ জন, শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭২ দশমিক ৪৯শতাংশ। আইসোলেশনে রয়েছেন দুই হাজার ৪৭৯ জন ও শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামের অস্থায়ী কোভিড হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫৭ রোগী।

এদিকে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ৫ জুন থেকে নোয়াখালী পৌরসভা ও সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে সাত দিনের বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি। কিন্তু সংক্রমণ বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় দ্বিতীয় দফায় গত ১২ জুন আরও সাত দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেন ওই কমিটি।

দুই দফায় ১০ দিনের লকডাউন শেষ হলেও কমছে না আক্রান্তের সংখ্যা। প্রতিদিনই বাড়ছে নতুন সংক্রমণ। শনাক্তের হার ২০ শতাংশের নিচে নামছে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস