কানাডায় করোনায় মৃত্যু ২৬ হাজার ছাড়াল, মাস্ক বাধ্যতামূলক
jugantor
কানাডায় করোনায় মৃত্যু ২৬ হাজার ছাড়াল, মাস্ক বাধ্যতামূলক

  রাজীব আহসান, কানাডা থেকে  

১৭ জুন ২০২১, ১৪:৩৬:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডায় করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২৬ হাজার ছাড়িয়েছে। গত বছর মার্চ মাসে প্রথম ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর পর থেকে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে বাড়তে এখন ২৬ হাজার ছাড়িয়ে গেল।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ লাখ ৫ হাজার ১৪৬ জনে। মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার একজনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১৩ লাখ ৬৪ হাজার ৯৯৭ জন। কানাডায় প্রতিদিন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও তা আগের তুলনায় অনেক কম।

অন্যদিকে কানাডার টরন্টোতে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিধিবিধানের মেয়াদ বাড়িয়েছে। ফলে আগামী ফল পর্যন্ত টরন্টোবাসীকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মাস্ক পরতে হবে।

বুধবার বিধানটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ওইদিনই তা ৩০ সেপ্টেম্বর বা ১ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলের বৈঠক পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। টরন্টো জনস্বাস্থ্য বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. এইলিন দ্য ভিলার সুপারিশে এই মেয়াদ বর্ধিত করা হয়েছে।

টরন্টোবাসীকে সিটি পার্ক বা পাবলিক স্কোয়ারে মাস্ক পরিধান অব্যাহত রাখতে হবে। সেই সঙ্গে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অ্যাপার্টমেন্ট ও কন্ডোমিনিয়ামের যেখানে জনসমাগম হয়, সেখানে মাস্ক পরিধানও জারি রাখতে হবে। পাশাপাশি অ্যাপার্টমেন্টের জিম ও সুইমিংপুলগুলোও বন্ধ রাখতে হবে।

ডি ভিলা বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে আমরা উপাত্ত ব্যবহার অব্যাহত রেখেছি এবং এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। কোভিড ১৯-এ সংক্রমণের সংখ্যা কমে আসছে। কিন্তু উদ্বেগ এখনও দূর হয়নি এবং ভাইরাসের বিস্তার কমাতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

বিশিষ্ট কলামিস্ট, উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মো. মাহমুদ হাসান বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ আর বিধিনিষেধ মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই। নিয়ম-কানুন মেনে ধৈর্য ধরলেই কেবল দ্রুত সুদিন ফিরে আসবে এমনটিই আমার বিশ্বাস।

বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী কিরণ বণিক শংকর জানালেন, করোনা কমতে শুরু করায় মনের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসছে, প্রকৃতি নতুন করে জেগে উঠবে, সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে নতুন আলোয় উদ্ভাসিত হবে আগামীর দিনগুলো— এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।।

উল্লেখ্য, কানাডা ২০২২ থেকে ২০২৪ সালের মধ্যে ভ্যাকসিনের কোনো ঘাটতি যেন না পড়ে, সে জন্য কয়েক কোটি ডোজ টিকার ব্যবস্থা করেছে। চুক্তিবদ্ধ হয়েছে একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে। কয়েক কোটি ডোজ ভ্যাকসিন সুরক্ষিত রাখার কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।


কানাডায় করোনায় মৃত্যু ২৬ হাজার ছাড়াল, মাস্ক বাধ্যতামূলক

 রাজীব আহসান, কানাডা থেকে 
১৭ জুন ২০২১, ০২:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডায় করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২৬ হাজার ছাড়িয়েছে। গত বছর মার্চ মাসে প্রথম ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর পর থেকে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে বাড়তে এখন ২৬ হাজার ছাড়িয়ে গেল। 

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ লাখ ৫ হাজার ১৪৬ জনে। মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার একজনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১৩ লাখ ৬৪ হাজার ৯৯৭ জন। কানাডায় প্রতিদিন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও  তা আগের তুলনায় অনেক কম। 

অন্যদিকে কানাডার টরন্টোতে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিধিবিধানের মেয়াদ বাড়িয়েছে। ফলে আগামী ফল পর্যন্ত টরন্টোবাসীকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মাস্ক পরতে হবে।

বুধবার বিধানটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ওইদিনই তা ৩০ সেপ্টেম্বর বা ১ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলের বৈঠক পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। টরন্টো জনস্বাস্থ্য বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. এইলিন দ্য ভিলার সুপারিশে এই মেয়াদ বর্ধিত করা হয়েছে।

টরন্টোবাসীকে সিটি পার্ক বা পাবলিক স্কোয়ারে মাস্ক পরিধান অব্যাহত রাখতে হবে। সেই সঙ্গে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অ্যাপার্টমেন্ট ও কন্ডোমিনিয়ামের যেখানে জনসমাগম হয়, সেখানে মাস্ক পরিধানও জারি রাখতে হবে। পাশাপাশি অ্যাপার্টমেন্টের জিম ও সুইমিংপুলগুলোও বন্ধ রাখতে হবে।

ডি ভিলা বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে আমরা উপাত্ত ব্যবহার অব্যাহত রেখেছি এবং এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। কোভিড ১৯-এ সংক্রমণের সংখ্যা কমে আসছে। কিন্তু উদ্বেগ এখনও দূর হয়নি এবং ভাইরাসের বিস্তার কমাতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

বিশিষ্ট কলামিস্ট, উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মো. মাহমুদ হাসান বলেন,  স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ আর বিধিনিষেধ মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই। নিয়ম-কানুন মেনে ধৈর্য ধরলেই কেবল দ্রুত সুদিন ফিরে আসবে এমনটিই আমার বিশ্বাস।

বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী কিরণ বণিক শংকর জানালেন, করোনা কমতে শুরু করায় মনের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসছে, প্রকৃতি নতুন করে জেগে উঠবে, সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে নতুন আলোয় উদ্ভাসিত হবে আগামীর দিনগুলো— এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।।

উল্লেখ্য, কানাডা ২০২২ থেকে ২০২৪ সালের মধ্যে ভ্যাকসিনের কোনো ঘাটতি যেন না পড়ে, সে জন্য কয়েক কোটি ডোজ টিকার ব্যবস্থা করেছে। চুক্তিবদ্ধ হয়েছে একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে। কয়েক কোটি ডোজ ভ্যাকসিন সুরক্ষিত রাখার কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন