‘জুলাই থেকে আবার গণ টিকাদান শুরু’
jugantor
‘জুলাই থেকে আবার গণ টিকাদান শুরু’

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ জুন ২০২১, ১৫:৪৪:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

জুলাই মাসে আবারও সারা দেশে গণটিকাদান শুরু করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, বাজেটে করোনাভাইরাসের টিকা কেনার জন্য ১৪ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। জুলাই মাস থেকে আমরা হয়তো আবার মাসস্কেলে টিকাদান শুরু করতে পারবো। টিকা পেতে সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে।

আহমদ কায়কাউস বলেন, ভ্যাকসিন পেতে আমরা প্রতিদিনই অন্তত পক্ষে একটা দেশ বা কোম্পানির সঙ্গে কথা বলে যাচ্ছি। একই সঙ্গে বাংলাদেশেও উৎপাদন করার চেষ্টা করছি। আমরা কিন্তু কারো দয়া চাই না। আমরা বারবার বলছি, বাংলাদেশ সরকার, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কিন্তু সব সময় বলছেন, আমাদের ফ্রি দরকার নাই। আমরা টাকা দিয়ে কিনব। যেখানে পাওয়া যায় সেখান থেকে কেনা হবে এবং আমরা কিন্তু অনেক দূর এগিয়েছি।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকা দিয়ে সারাদেশে গণটিকাদান শুরু হয়েছিল। কিন্তু ভারত রপ্তানি বন্ধ রাখায় টিকার সঙ্কটে পড়ে বাংলাদেশ।

পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় দেশে প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ রয়েছে। ইতোমধ্যে যারা প্রথম ডোজ পেয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার মত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাও সরকারের হাতে নেই। এ অবস্থায় সরকারকে অন্য উৎস থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহের চেষ্টা করতে হচ্ছে।


‘জুলাই থেকে আবার গণ টিকাদান শুরু’

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ জুন ২০২১, ০৩:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জুলাই মাসে আবারও সারা দেশে গণটিকাদান শুরু করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি। 

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, বাজেটে করোনাভাইরাসের টিকা কেনার জন্য ১৪ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। জুলাই মাস থেকে আমরা হয়তো আবার মাসস্কেলে টিকাদান শুরু করতে পারবো। টিকা পেতে সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে।

আহমদ কায়কাউস বলেন, ভ্যাকসিন পেতে আমরা প্রতিদিনই অন্তত পক্ষে একটা দেশ বা কোম্পানির সঙ্গে কথা বলে যাচ্ছি। একই সঙ্গে বাংলাদেশেও উৎপাদন করার চেষ্টা করছি। আমরা কিন্তু কারো দয়া চাই না। আমরা বারবার বলছি, বাংলাদেশ সরকার, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কিন্তু সব সময় বলছেন, আমাদের ফ্রি দরকার নাই। আমরা টাকা দিয়ে কিনব। যেখানে পাওয়া যায় সেখান থেকে কেনা হবে এবং আমরা কিন্তু অনেক দূর এগিয়েছি।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকা দিয়ে সারাদেশে গণটিকাদান শুরু হয়েছিল। কিন্তু ভারত রপ্তানি বন্ধ রাখায় টিকার সঙ্কটে পড়ে বাংলাদেশ।

পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় দেশে প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ রয়েছে। ইতোমধ্যে যারা প্রথম ডোজ পেয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার মত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাও সরকারের হাতে নেই। এ অবস্থায় সরকারকে অন্য উৎস থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহের চেষ্টা করতে হচ্ছে। 


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস