বেনাপোলে করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু, ৩৫ নমুনার মধ্যে শনাক্ত ২৭
jugantor
বেনাপোলে করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু, ৩৫ নমুনার মধ্যে শনাক্ত ২৭

  বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি  

২০ জুন ২০২১, ২২:৪৪:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বেনাপোলে কঠোর লকডাউনের মধ্যে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জনের করোনায় শনাক্ত হয়েছে।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইউসুফ আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শার্শা উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি গত বৃহস্পতিবার থেকে বেনাপোল ও শার্শাকে লকডাউন ঘোষণা করে; যা আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত বলবত থাকবে বলে জানান পুলিশের নাভারন সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান।

তিনি বলেন, সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত শুধুমাত্র নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলা থাকবে। ৩টার পর থেকে কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে না। শুধুমাত্র ওষুধের দোকান ও ভারত ফেরত যাত্রীদের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আবাসিক হোটেল এবং খাবার হোটেল সার্বক্ষণিক খোলা থাকবে।

তবে শহর থেকে গ্রামেও করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকেই করোনা পরীক্ষা করাচ্ছেন না। ফলে স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে করোনা বৃদ্ধি পাওয়ার সঠিক তথ্য আসছে না।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইউসুফ আলি জানান, সীমান্তবর্তী বেনাপোলসহ বিভিন্ন অঞ্চলে করোনার প্রকোপ বেড়ে গেছে। করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্য বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জন করোনায় শনাক্ত হয়েছেন।

বেনাপোল ও শার্শায় এ পর্যন্ত ৬৫০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আহসান হাবিব জানান, ভারত ফেরত প্রত্যেক যাত্রীকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে তাদের নিজ খরচে। ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট যাতে ছড়াতে না পারে সেজন্য তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হচ্ছে।

তিনি জানান, রোববার ভারত থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ৪০ জন দেশে ফিরেছেন। তাদের বেনাপোলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। গত ২৬ এপ্রিল থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত ভারত থেকে ৫ হাজার ৪৩৯ জন পাসপোর্টধারী যাত্রী বাংলাদেশে ফিরেছেন।

বেনাপোলে করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু, ৩৫ নমুনার মধ্যে শনাক্ত ২৭

 বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি 
২০ জুন ২০২১, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বেনাপোলে কঠোর লকডাউনের মধ্যে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জনের করোনায় শনাক্ত হয়েছে।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইউসুফ আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শার্শা উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি গত বৃহস্পতিবার থেকে বেনাপোল ও শার্শাকে লকডাউন ঘোষণা করে; যা আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত বলবত থাকবে বলে জানান পুলিশের নাভারন সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান।

তিনি বলেন, সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত শুধুমাত্র নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলা থাকবে। ৩টার পর থেকে কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে না। শুধুমাত্র ওষুধের দোকান ও ভারত ফেরত যাত্রীদের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আবাসিক হোটেল এবং খাবার হোটেল সার্বক্ষণিক খোলা থাকবে।

তবে শহর থেকে গ্রামেও করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকেই করোনা পরীক্ষা করাচ্ছেন না। ফলে স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে করোনা বৃদ্ধি পাওয়ার সঠিক তথ্য আসছে না।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইউসুফ আলি জানান, সীমান্তবর্তী বেনাপোলসহ বিভিন্ন অঞ্চলে করোনার প্রকোপ বেড়ে গেছে। করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্য বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জন করোনায় শনাক্ত হয়েছেন।

বেনাপোল ও শার্শায় এ পর্যন্ত ৬৫০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আহসান হাবিব জানান, ভারত ফেরত প্রত্যেক যাত্রীকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে তাদের নিজ খরচে। ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট যাতে ছড়াতে না পারে সেজন্য তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হচ্ছে।

তিনি জানান, রোববার ভারত থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ৪০ জন দেশে ফিরেছেন। তাদের বেনাপোলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। গত ২৬ এপ্রিল থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত ভারত থেকে ৫ হাজার ৪৩৯ জন পাসপোর্টধারী যাত্রী বাংলাদেশে ফিরেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস