ঈদের দিনও করোনায় মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন করল টিম খোরশেদ
jugantor
ঈদের দিনও করোনায় মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন করল টিম খোরশেদ
ভয়ে পরিবারের কেউ এগিয়ে আসেনি

  সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২২ জুলাই ২০২১, ০০:২১:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকার আশিকুর রহমান (৫৪) ঈদের দিন সকালে করোনা আক্রান্ত হয়ে নারায়ণগঞ্জ কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে পরিবারের সদস্যরা লাশ দাফন করতে আসেনি। এ অবস্থায় লাশ দাফনের অনুরোধ পায় টিম খোরশেদ।

খবর পেয়ে ঈদের দিন রাতে 'টিম খোরশেদ' এর সদস্যরা সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ের স্থানীয় কবরস্থানে লাশ দাফন করেন।

লাশ দাফনে উপস্থিত ছিলেন, নাজমুল কবীর নাহিদ, রানা মুজিব, হাফেজ শিব্বির, আনোয়ার হোসেন, সুমন দেওয়ান, মো. শহীদ, আশরাফুল নীরব ও নাইম মোল্লা।

উল্লেখ্য, সিদ্ধিরগঞ্জে এর আগেও ১৪টি লাশ দাফন করে 'টিম খোরশেদ' এর সদস্যরা। এ পর্যন্ত তারা জেলায় সর্বমোট ২২১টি লাশ দাফন করল।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ আগে পড়েছিল পথেঘাটে ও বাড়ির আঙিনায়। সংক্রমণের ভয়ে স্বজন ও প্রতিবেশীরা কেউ লাশ দাফনে এগিয়ে আসেনি। এ পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লাশ দাফন ও সৎকারে এগিয়ে আসেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।সুস্থ হয়ে আবারও কোভিড রোগীদের লাশ দাফনের কাজ করেছেন দেশে-বিদেশে 'করোনা বীর' উপাধি পাওয়া খোরশেদ।

ঈদের দিনও করোনায় মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন করল টিম খোরশেদ

ভয়ে পরিবারের কেউ এগিয়ে আসেনি
 সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২২ জুলাই ২০২১, ১২:২১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিদ্ধিরগঞ্জের  সানারপাড় এলাকার  আশিকুর রহমান (৫৪) ঈদের দিন সকালে করোনা আক্রান্ত হয়ে নারায়ণগঞ্জ কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে পরিবারের সদস্যরা লাশ দাফন করতে আসেনি। এ অবস্থায় লাশ দাফনের অনুরোধ পায় টিম খোরশেদ।

খবর পেয়ে ঈদের দিন রাতে 'টিম খোরশেদ' এর সদস্যরা সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ের স্থানীয় কবরস্থানে লাশ দাফন করেন।

লাশ দাফনে উপস্থিত ছিলেন, নাজমুল কবীর নাহিদ, রানা মুজিব, হাফেজ শিব্বির, আনোয়ার হোসেন, সুমন দেওয়ান, মো. শহীদ, আশরাফুল নীরব ও নাইম মোল্লা।

উল্লেখ্য,  সিদ্ধিরগঞ্জে এর আগেও ১৪টি লাশ দাফন করে 'টিম খোরশেদ' এর সদস্যরা। এ পর্যন্ত তারা জেলায় সর্বমোট ২২১টি লাশ দাফন করল।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ আগে পড়েছিল পথেঘাটে ও বাড়ির আঙিনায়। সংক্রমণের ভয়ে স্বজন ও প্রতিবেশীরা কেউ লাশ দাফনে এগিয়ে আসেনি। এ পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লাশ দাফন ও সৎকারে এগিয়ে আসেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।সুস্থ হয়ে আবারও কোভিড রোগীদের লাশ দাফনের কাজ করেছেন দেশে-বিদেশে 'করোনা বীর' উপাধি পাওয়া খোরশেদ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন