সিলেটে কঠোর পুলিশ, যান ও মানুষ চলাচলে কড়াকড়ি
jugantor
সিলেটে কঠোর পুলিশ, যান ও মানুষ চলাচলে কড়াকড়ি

  সিলেট ব্যুরো  

২৫ জুলাই ২০২১, ২২:৫৮:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদপরবর্তী কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিন ও সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস ছিল রোববার। আগের দুইদিন সিলেটে লকডাউন বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাঠে বেশ কঠোরই ছিল। প্রশাসনের কঠোরতায় প্রয়োজন ছাড়া খুব বেশি মানুষ বের হননি রাস্তায়।

রোববারও সড়কের মোড়ে মোড়ে পুলিশের কঠোর অবস্থান ও তল্লাশির কারণে সিলেটের রাজপথ ছিল অনেকটা যান ও জনশূন্য।

সকাল থেকে নগরীর ৪৬টি চেকপোস্টে অবস্থান নেয় পুলিশ। এছাড়া নগরীর প্রবেশদ্বার কুমারগাঁও তেমুখী, বিমানবন্দর সড়ক, আবদুস সামাদ আজাদ চত্বর (চন্ডিপুল), হুমায়ূন রশিদ চত্বর ও টিলাগড় এলাকায়ও চেকপোস্ট বসানো হয়।

চেকপোস্টগুলোতে পুলিশ রিকশা, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন আটকে যাত্রীদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চায়। সদুত্তর না পেলে ফিরিয়ে দিয়েছে সংশ্লিষ্ট যাত্রীদের। এছাড়া যেসব যানবাহনের কাগজপত্র সঙ্গে ছিল না তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে পুলিশ। পুলিশ ছাড়াও মাঠে র‌্যাব ও সেনাবাহিনী লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করছে।

রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ ৩৫ টি যানবাহন বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে এবং ৩৭টি যানবাহনকে আটক করেছে।

এছাড়া জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। লকডাউন অমান্য করে দোকানপাট খোলা রাখা, প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

এদিকে সকাল থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ও জরুরি সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ছাড়া সবধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অফিস বন্ধ রয়েছে। সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম চলছে। নগরের সবকটি শপিংমল লকডাউনের নির্দেশনা মেনে বন্ধ রেখেছেন সংশ্লিষ্টরা।

সিলেটে কঠোর পুলিশ, যান ও মানুষ চলাচলে কড়াকড়ি

 সিলেট ব্যুরো 
২৫ জুলাই ২০২১, ১০:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদপরবর্তী কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিন ও সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস ছিল রোববার। আগের দুইদিন সিলেটে লকডাউন বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাঠে বেশ কঠোরই ছিল। প্রশাসনের কঠোরতায় প্রয়োজন ছাড়া খুব বেশি মানুষ বের হননি রাস্তায়।

রোববারও সড়কের মোড়ে মোড়ে পুলিশের কঠোর অবস্থান ও তল্লাশির কারণে সিলেটের রাজপথ ছিল অনেকটা যান ও জনশূন্য।

সকাল থেকে নগরীর ৪৬টি চেকপোস্টে অবস্থান নেয় পুলিশ। এছাড়া নগরীর প্রবেশদ্বার কুমারগাঁও তেমুখী, বিমানবন্দর সড়ক, আবদুস সামাদ আজাদ চত্বর (চন্ডিপুল), হুমায়ূন রশিদ চত্বর ও টিলাগড় এলাকায়ও চেকপোস্ট বসানো হয়।

চেকপোস্টগুলোতে পুলিশ রিকশা, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন আটকে যাত্রীদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চায়। সদুত্তর না পেলে ফিরিয়ে দিয়েছে সংশ্লিষ্ট যাত্রীদের। এছাড়া যেসব যানবাহনের কাগজপত্র সঙ্গে ছিল না তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে পুলিশ। পুলিশ ছাড়াও মাঠে র‌্যাব ও সেনাবাহিনী লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করছে।

রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ ৩৫ টি যানবাহন বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে এবং ৩৭টি যানবাহনকে আটক করেছে।

এছাড়া জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। লকডাউন অমান্য করে দোকানপাট খোলা রাখা, প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

এদিকে সকাল থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ও জরুরি সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ছাড়া সবধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অফিস বন্ধ রয়েছে। সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম চলছে। নগরের সবকটি শপিংমল লকডাউনের নির্দেশনা মেনে বন্ধ রেখেছেন সংশ্লিষ্টরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১