আবারও একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ইন্দোনেশিয়ায়
jugantor
আবারও একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ইন্দোনেশিয়ায়

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:৩২:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ বিস্তার ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ায়। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪৭ হাজার ৭৯১ জন আক্রান্ত হয়েছেন দেশটিতে।

শুধু তাই নয়, টানা দুদিন ধরে দৈনিক মৃত্যুতে রেকর্ড গড়ছে দেশটি। গত ২৪ ঘণ্টায় ইন্দোনেশিয়ায় মারা গেছেন এক হাজার ৮২৪ জন।

একদিনে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে আছে ব্রাজিল (১৩৬৬) এবং তৃতীয় স্থানে আছে রাশিয়া (৭৮৯)। গত একদিনে ভারতে মারা গেছেন ৬৪১ জন এবং যুক্তরাষ্ট্রে ৪৮৩ জন।

আগের দিনও ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বে সর্বোচ্চ দুই হাজার ৭৯ জন মারা গেছে।দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৮৮ হাজার ৬৫৯ জন।

এদিকে সংক্রমণ বাড়ার মধ্যেই জরুরি বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে মালয়েশিয়ার সরকার।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১০ লাখেরও বেশি মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে এবং এতে মারা গেছেন প্রায় ৮ হাজার।

তবে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন যে, সংক্রমণের প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি, কারণ পরীক্ষার হার কম।

হাসপাতালগুলোয় মানুষের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। সাম্প্রতিক এক ছবিতে দেখা গেছে— রোগীরা চেয়ারে বসে অক্সিজেন সিলিন্ডার ভাগ করে ব্যবহার করছেন।

আবারও একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ইন্দোনেশিয়ায়

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ জুলাই ২০২১, ০২:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ বিস্তার ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ায়। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪৭ হাজার ৭৯১ জন আক্রান্ত হয়েছেন দেশটিতে।

শুধু তাই নয়, টানা দুদিন ধরে দৈনিক মৃত্যুতে রেকর্ড গড়ছে দেশটি। গত ২৪ ঘণ্টায় ইন্দোনেশিয়ায় মারা গেছেন এক হাজার ৮২৪ জন।

একদিনে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে আছে ব্রাজিল (১৩৬৬) এবং তৃতীয় স্থানে আছে রাশিয়া (৭৮৯)। গত একদিনে ভারতে মারা গেছেন ৬৪১ জন এবং যুক্তরাষ্ট্রে ৪৮৩ জন।

আগের দিনও ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বে সর্বোচ্চ দুই হাজার ৭৯ জন মারা গেছে।দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৮৮ হাজার ৬৫৯ জন।

 এদিকে সংক্রমণ বাড়ার মধ্যেই জরুরি বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে মালয়েশিয়ার সরকার।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১০ লাখেরও বেশি মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে এবং এতে মারা গেছেন প্রায় ৮ হাজার।

তবে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন যে, সংক্রমণের প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি, কারণ পরীক্ষার হার কম।

হাসপাতালগুলোয় মানুষের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। সাম্প্রতিক এক ছবিতে দেখা গেছে— রোগীরা চেয়ারে বসে অক্সিজেন সিলিন্ডার ভাগ করে ব্যবহার করছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস