দেশে ৭০ শতাংশ মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে: ফেরদৌসী কাদরী
jugantor
দেশে ৭০ শতাংশ মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে: ফেরদৌসী কাদরী

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৫৭:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

‘দেশে ৭০ শতাংশ মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে’

দেশে করোনার সংক্রমণের বিরুদ্ধে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ম্যাগসেসে পুরস্কারজয়ী বাংলাদেশের খ্যাতনামা বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরী।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে এক গণমাধ্যম সংলাপে এ কথা বলেন তিনি। র‍্যামন ম্যাগসাইসাই অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন তার সঙ্গে এ সংলাপের আয়োজন করে।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর-বি) ইমেরিটাস বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী বলেন, ‘দেশে এখন করোনা সংক্রমণ কমে এসেছে। বিশ্বের প্রতিটি দেশেই এ সংক্রমণ বেড়ে গিয়ে আবারও কমছে। কমার পেছনে অন্যতম কারণ হলো অ্যান্টিবডি। ভাইরাসটির বিরুদ্ধে আমাদের দেশেই ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে সম্প্রতি করোনার সংক্রমণ কিছুটা কম। তবুও এটা নিয়ে এখনই উপসংহারে আসার মতো কিছু বলা যাবে না। বাংলাদেশ সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। মানুষের মধ্যে মাস্ক পরার প্রবণতাও বেশি দেখা যাচ্ছে। পাশাপাশি টিকার চলমান উদ্যোগকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। সামাজিক দূরত্ব, হাত ধোয়ার অভ্যাস অবশ্যই বজায় রাখতে হবে।’

গণমাধ্যম সংলাপে জাপানের এনএইচকের সাংবাদিক আইকো ডোডেনের প্রশ্ন ছিল, সারা বিশ্বে টিকা নিয়ে এক অসাম্য পরিস্থিতি চলছে। এর কারণ অর্থনৈতিক না রাজনৈতিক? এটি ধনী রাষ্ট্রের একচ্ছত্র আধিপত্যের নমুনা কি না?

জবাবে ফেরদৌসী কাদরী বলেন, ‘হয়তো এসব কারণে কাজ করছে। কিন্তু এর বিপরীতে বিশ্বে মানবিকতারও অনেক উদাহরণ আছে। যেমন, আমরা কোভ্যাক্স ফ্যাসিলিটি থেকে টিকা পাচ্ছি। এটা একটা অনন্য উদ্যোগ। আমরা কভিড-১৯-সংক্রান্ত গবেষণার কাজে পশ্চিমা অনেক দেশ থেকে সহযোগিতা পেয়েছি। তাই পুরো বিশ্ব বন্ধুহীন হয়ে গেছে, এমনটা ভাবা চলবে না।’

দেশে ৭০ শতাংশ মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে: ফেরদৌসী কাদরী

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘দেশে ৭০ শতাংশ মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে’
ফেরদৌসী কাদরী। ফাইল ছবি

দেশে করোনার সংক্রমণের বিরুদ্ধে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ম্যাগসেসে পুরস্কারজয়ী বাংলাদেশের খ্যাতনামা বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরী।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে এক গণমাধ্যম সংলাপে এ কথা বলেন তিনি। র‍্যামন ম্যাগসাইসাই অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন তার সঙ্গে এ সংলাপের আয়োজন করে।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর-বি) ইমেরিটাস বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী বলেন, ‘দেশে এখন করোনা সংক্রমণ কমে এসেছে। বিশ্বের প্রতিটি দেশেই এ সংক্রমণ বেড়ে গিয়ে আবারও কমছে। কমার পেছনে অন্যতম কারণ হলো অ্যান্টিবডি। ভাইরাসটির বিরুদ্ধে আমাদের দেশেই ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে সম্প্রতি করোনার সংক্রমণ কিছুটা কম। তবুও এটা নিয়ে এখনই উপসংহারে আসার মতো কিছু বলা যাবে না। বাংলাদেশ সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। মানুষের মধ্যে মাস্ক পরার প্রবণতাও বেশি দেখা যাচ্ছে। পাশাপাশি টিকার চলমান উদ্যোগকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। সামাজিক দূরত্ব, হাত ধোয়ার অভ্যাস অবশ্যই বজায় রাখতে হবে।’

গণমাধ্যম সংলাপে জাপানের এনএইচকের সাংবাদিক আইকো ডোডেনের প্রশ্ন ছিল, সারা বিশ্বে টিকা নিয়ে এক অসাম্য পরিস্থিতি চলছে। এর কারণ অর্থনৈতিক না রাজনৈতিক? এটি ধনী রাষ্ট্রের একচ্ছত্র আধিপত্যের নমুনা কি না?

জবাবে ফেরদৌসী কাদরী বলেন, ‘হয়তো এসব কারণে কাজ করছে। কিন্তু এর বিপরীতে বিশ্বে মানবিকতারও অনেক উদাহরণ আছে। যেমন, আমরা কোভ্যাক্স ফ্যাসিলিটি থেকে টিকা পাচ্ছি। এটা একটা অনন্য উদ্যোগ। আমরা কভিড-১৯-সংক্রান্ত গবেষণার কাজে পশ্চিমা অনেক দেশ থেকে সহযোগিতা পেয়েছি। তাই পুরো বিশ্ব বন্ধুহীন হয়ে গেছে, এমনটা ভাবা চলবে না।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২০ অক্টোবর, ২০২১
১৭ অক্টোবর, ২০২১