টিকা না নেওয়ায় ৩১২ শিক্ষকের ওপর নিষেধাজ্ঞা
jugantor
টিকা না নেওয়ায় ৩১২ শিক্ষকের ওপর নিষেধাজ্ঞা

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০৬:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জে কোভিড-১৯ এর টিকা না নেয়ায় ৩১২ জন শিক্ষকের ক্লাসে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে জেলা শিক্ষা অফিস। এদের মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ে রয়েছেন ২১২ জন এবং ১০০ জন আছেন প্রাথমিকে।

তবে টিকা না নেয়া এই ৩১২ জন শিক্ষকের অনেকেই স্কুলে যাচ্ছেন এবং শ্রেণিকক্ষে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

যদিও মাধ্যমিক পর্যায়ের যেসব শিক্ষক এখনো টিকা গ্রহণ করেননি তাদেরকে শ্রেণিকক্ষে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুধুমাত্র অফিসকক্ষে থাকতে বলা হয়েছে তাদের।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, রেজিস্ট্রেশন করা শিক্ষকরা যোগাযোগ করলে তাদের টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এদিকে শিক্ষকদের টিকা নেয়া বাকি থাকায় অভিভাবকদের কেউ কেউ সন্তানদের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কারণ কোনো শিক্ষার্থীকে এখনো টিকা দেয়া হয়নি।

যদিও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার করে ক্লাসে গেলে শিক্ষার্থীদের জন্যে ঝুঁকি কম থাকবে।

জেলা শিক্ষা অফিস ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, জেলায় মোট শিক্ষক রয়েছেন ১১ হাজার। এরমধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক চার হাজার এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সাত হাজার জন।

সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তথ্যানুযায়ী, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে গত ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টিকা গ্রহণের জন্যে রেজিস্ট্রেশন করেছেন ৩ হাজার ৯০০ জন। আর রেজিস্ট্রেশন করেননি ১০৩ জন। রেজিস্ট্রেশন করা শিক্ষকদের মধ্যে টিকা গ্রহণ করেছেন ৩ হাজার ৯০০ জন।

মাধ্যমিক পর্যায়ে জেলায় শিক্ষক রয়েছেন ৭ হাজার। এদের মধ্যে ৬ হাজার ৭৮৮ জন টিকা গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম।

তার দেয়া তথ্যানুযায়ী, জেলায় এখনো পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ের ২১২ জন শিক্ষক টিকা গ্রহণ করেননি।

এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিসার শরিফুল ইসলাম বলেন, যেসব শিক্ষক এখনো টিকা নেননি তাদের শ্রেণিকক্ষে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস কক্ষে থাকবেন তারা। তবে টিকা না নেয়া শিক্ষকদের মধ্যে মাতৃত্বকালীন অবস্থা, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত, উচ্চ রক্তচাপ, দুগ্ধদানকারী মা এবং জটিল রোগে আক্রান্তরা রয়েছেন।

অপরদিকে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অহিন্দ্র কুমার মণ্ডল বলেন, আমাদের শিক্ষকদের একেবারেই অল্প সংখ্যকের টিকা বাকি। আশাকরি শীঘ্রই তা পূরণ হবে। তবে যেসব শিক্ষক এখনো টিকা নেননি তাদের মোটিভেশন দেয়া হবে। যারা যৌক্তিক কারণ ছাড়া টিকা নিচ্ছেন না তাদের বিরুদ্ধে গ্রহণ করা হবে আইনগত ব্যবস্থা।

টিকা না নিয়ে ক্লাসে যাওয়া প্রসঙ্গে কথা হয় সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজের সঙ্গে। তিনি বলেন, যেসব শিক্ষক রেজিস্ট্রেশন করেছেন তারা আসলে টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। টিকা না নেয়ার পরও শিক্ষকরা যদি স্বাস্থ্যবিধি কড়াকড়িভাবে পালন করেন তাহলে শিক্ষার্থীরা বড় ধরনের কোনো ঝুঁকির মধ্যে পড়বে না।

টিকা না নেওয়ায় ৩১২ শিক্ষকের ওপর নিষেধাজ্ঞা

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জে কোভিড-১৯ এর টিকা না নেয়ায় ৩১২ জন শিক্ষকের ক্লাসে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে জেলা শিক্ষা অফিস। এদের মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ে রয়েছেন ২১২ জন এবং ১০০ জন আছেন প্রাথমিকে।

তবে টিকা না নেয়া এই ৩১২ জন শিক্ষকের অনেকেই স্কুলে যাচ্ছেন এবং শ্রেণিকক্ষে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

যদিও মাধ্যমিক পর্যায়ের যেসব শিক্ষক এখনো টিকা গ্রহণ করেননি তাদেরকে শ্রেণিকক্ষে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুধুমাত্র অফিসকক্ষে থাকতে বলা হয়েছে তাদের।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, রেজিস্ট্রেশন করা শিক্ষকরা যোগাযোগ করলে তাদের টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এদিকে শিক্ষকদের টিকা নেয়া বাকি থাকায় অভিভাবকদের কেউ কেউ সন্তানদের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কারণ কোনো শিক্ষার্থীকে এখনো টিকা দেয়া হয়নি।

যদিও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার করে ক্লাসে গেলে শিক্ষার্থীদের জন্যে ঝুঁকি কম থাকবে।

জেলা শিক্ষা অফিস ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, জেলায় মোট শিক্ষক রয়েছেন ১১ হাজার। এরমধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক চার হাজার এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সাত হাজার জন।

সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তথ্যানুযায়ী, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে গত ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টিকা গ্রহণের জন্যে রেজিস্ট্রেশন করেছেন ৩ হাজার ৯০০ জন। আর রেজিস্ট্রেশন করেননি ১০৩ জন। রেজিস্ট্রেশন করা শিক্ষকদের মধ্যে টিকা গ্রহণ করেছেন ৩ হাজার ৯০০ জন।

মাধ্যমিক পর্যায়ে জেলায় শিক্ষক রয়েছেন ৭ হাজার। এদের মধ্যে ৬ হাজার ৭৮৮ জন টিকা গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম।

তার দেয়া তথ্যানুযায়ী, জেলায় এখনো পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ের ২১২ জন শিক্ষক টিকা গ্রহণ করেননি।

এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিসার শরিফুল ইসলাম বলেন, যেসব শিক্ষক এখনো টিকা নেননি তাদের শ্রেণিকক্ষে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস কক্ষে থাকবেন তারা। তবে টিকা না নেয়া শিক্ষকদের মধ্যে মাতৃত্বকালীন অবস্থা, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত, উচ্চ রক্তচাপ, দুগ্ধদানকারী মা এবং জটিল রোগে আক্রান্তরা রয়েছেন।

অপরদিকে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অহিন্দ্র কুমার মণ্ডল বলেন, আমাদের শিক্ষকদের একেবারেই অল্প সংখ্যকের টিকা বাকি। আশাকরি শীঘ্রই তা পূরণ হবে। তবে যেসব শিক্ষক এখনো টিকা নেননি তাদের মোটিভেশন দেয়া হবে। যারা যৌক্তিক কারণ ছাড়া টিকা নিচ্ছেন না তাদের বিরুদ্ধে গ্রহণ করা হবে আইনগত ব্যবস্থা।

টিকা না নিয়ে ক্লাসে যাওয়া প্রসঙ্গে কথা হয় সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজের সঙ্গে। তিনি বলেন, যেসব শিক্ষক রেজিস্ট্রেশন করেছেন তারা আসলে টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। টিকা না নেয়ার পরও শিক্ষকরা যদি স্বাস্থ্যবিধি কড়াকড়িভাবে পালন করেন তাহলে শিক্ষার্থীরা বড় ধরনের কোনো ঝুঁকির মধ্যে পড়বে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২০ অক্টোবর, ২০২১