যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি ‘শেষ’ বলে ঘোষণা বাইডেনের
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি ‘শেষ’ বলে ঘোষণা বাইডেনের

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৩২:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলেও দেশটিতে মহামারি শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বাইডেন বলেছেন, ‘আমাদের একটি সমস্যা থাকলেও’ পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি হচ্ছে। খবর বিবিসির।

পরিসংখ্যান দেখাচ্ছে— করোনাভাইরাসে প্রতিদিন গড়ে চারশরও বেশি আমেরিকানের মৃত্যু হচ্ছে। গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস বলেছিলেন, মহামারির শেষ ‘দেখা যাচ্ছে’।

সিবিএস টেলিভিশনের ‘সিক্সটি মিনিট’ অনুষ্ঠানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্র এখনো ‘অনেক কাজ’ করছে।

তিনি বলেন, আপনি খেয়াল করে দেখেন কেউ মাস্ক পরেনি। সবাই বেশ ভালো আছে বলে মনে হচ্ছে। আমার মনে হয় এটি পরিবর্তিত হচ্ছে।

মহামারি আমেরিকানদের মানসিকতার ওপর একটি ‘গভীর’ প্রভাব রেখে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

বাইডেন বলেন, এটি সব কিছু পরিবর্তন করে দিয়েছে। নিজেদের, পরিবারের, জাতির অবস্থা সম্পর্কে এবং সমাজের অবস্থা সম্পর্কে মানুষের মনোভাব পাল্টে দিয়েছে। এটি খুব কঠিন সময় ছিল। খুব কঠিন।

কিন্তু সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমকে প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলেছেন, প্রেসিডেন্টের মন্তব্যগুলো নীতিতে কোনো পরিবর্তন আনার ইঙ্গিত দিচ্ছে না এবং চলতি কোভিড-১৯ জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই।

অগাস্টে মার্কিন কর্মকর্তারা জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থার মেয়াদ ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ান, এটি ২০২০-এর জানুয়ারি থেকে জারি করা আছে।

এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসজনিত রোগে ১০ লাখেরও বেশি আমেরিকানের মৃত্যু হয়েছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, এখন সাত দিনের গড় মৃত্যু চারশরও বেশিতে দাঁড়িয়েছে , গত সপ্তাহে তিন হাজার জনের বেশি মারা গেছে।

২০২১ এর জানুয়ারিতে এ ভাইরাসটিতে এক একটি সপ্তাহে ২৩ হাজার জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। এখন যুক্তরাষ্ট্রের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬৫ শতাংশের পুরোপুরি টিকা নেওয়া আছে বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ৬৫ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে; তার পর ভারত ও ব্রাজিলে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি ‘শেষ’ বলে ঘোষণা বাইডেনের

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলেও দেশটিতে মহামারি শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বাইডেন বলেছেন, ‘আমাদের একটি সমস্যা থাকলেও’ পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি হচ্ছে। খবর বিবিসির।

পরিসংখ্যান দেখাচ্ছে— করোনাভাইরাসে প্রতিদিন গড়ে চারশরও বেশি আমেরিকানের মৃত্যু হচ্ছে। গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস বলেছিলেন, মহামারির শেষ ‘দেখা যাচ্ছে’।

সিবিএস টেলিভিশনের ‘সিক্সটি মিনিট’ অনুষ্ঠানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্র এখনো ‘অনেক কাজ’ করছে।

তিনি বলেন, আপনি খেয়াল করে দেখেন কেউ মাস্ক পরেনি। সবাই বেশ ভালো আছে বলে মনে হচ্ছে। আমার মনে হয় এটি পরিবর্তিত হচ্ছে।

মহামারি আমেরিকানদের মানসিকতার ওপর একটি ‘গভীর’ প্রভাব রেখে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

বাইডেন বলেন, এটি সব কিছু পরিবর্তন করে দিয়েছে। নিজেদের, পরিবারের, জাতির অবস্থা সম্পর্কে এবং সমাজের অবস্থা সম্পর্কে মানুষের মনোভাব পাল্টে দিয়েছে। এটি খুব কঠিন সময় ছিল। খুব কঠিন।

কিন্তু সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমকে প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলেছেন, প্রেসিডেন্টের মন্তব্যগুলো নীতিতে কোনো পরিবর্তন আনার ইঙ্গিত দিচ্ছে না এবং চলতি কোভিড-১৯ জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই।   

অগাস্টে মার্কিন কর্মকর্তারা জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থার মেয়াদ ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ান, এটি ২০২০-এর জানুয়ারি থেকে জারি করা আছে।

এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসজনিত রোগে ১০ লাখেরও বেশি আমেরিকানের মৃত্যু হয়েছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, এখন সাত দিনের গড় মৃত্যু চারশরও বেশিতে দাঁড়িয়েছে , গত সপ্তাহে তিন হাজার জনের বেশি মারা গেছে।

২০২১ এর জানুয়ারিতে এ ভাইরাসটিতে এক একটি সপ্তাহে ২৩ হাজার জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। এখন যুক্তরাষ্ট্রের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬৫ শতাংশের পুরোপুরি টিকা নেওয়া আছে বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ৬৫ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে; তার পর ভারত ও ব্রাজিলে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস