এখনও চলছে নাৎসি যুগের এনাটমি বই!

বন্দীদের মৃতদেহ ব্যবচ্ছেদ করে রচিত গ্রন্থ

  যুগান্তর ডেস্ক ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৫:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

এখনও চলছে নাৎসি যুগের এনাটমি বই!

অপারেশন করতে গিয়ে জরুরি মুহূর্তে বিংশ শতাব্দীর একটি এনাটমি গ্রন্থের সহায়তা নেন চিকিৎসকরা।

নার্ভ সার্জন ড. সুজান মেককিনন তাদেরই একজন। গ্রন্থটির সহায়তা তিনি প্রায়শই নিয়ে থাকেন। হাতে আঁকা জটিল সব চিত্র সম্বলিত এই গ্রন্থে রয়েছে মানব দেহের বিস্তারিত খুঁটিনাটি। খবর বিবিসির।

রয়েছে পরতের পর পরতে আঁকা মানব শরীরের সচিত্র উপস্থাপন। 'পার্নকপ্ফ টোপোগ্রাফিক এনাটমি অফ ম্যান' বা পার্নকপ্ফ প্রণীত মানবদেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গের সচিত্র বিবরণ সম্বলিত এই গ্রন্থটিই দুনিয়ার সেরা সচিত্র এনাটমি পুস্তক হিসেবে বিবেচিত।

এই বইয়ের আছে এক রক্তাক্ত ইতিহাস। নাৎসিদের হাতে নিহত ব্যক্তিদের দেহ ব্যবচ্ছেদ করে গবেষণালব্ধ ফল সন্নিবেশিত হয়েছে এই গ্রন্থের হাজার-হাজার পৃষ্ঠা জুড়ে।

সমালোচকেরা মনে করেন, গ্রন্থটির যেহেতু কালো ও মর্মান্তিক এক ইতিহাস রয়েছে তাই এটি ব্যবহারের প্রসঙ্গে নৈতিকতার প্রশ্ন জড়িত।

মানবদেহের চামড়া, পেশী, শিরা-উপশিরা, স্নায়ু, দেহের ভেতরের বিভিন্ন অঙ্গ ও হাড় চিত্রের সাহায্যে বিস্তারিত ভাবে এতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

কিন্তু বইটি এখন আর বাজারে নেই। তাই, কয়েক খণ্ডে প্রকাশিত এই গ্রন্থের পুরনো একটি সেট নিজের সংগ্রহে রাখতে এমনকি কয়েক হাজার পাউন্ড খরচ করতেও দ্বিধা করেন না আগ্রহীরা।

চড়া মূল্যের এই গ্রন্থ কেউ কেউ ক্লিনিকে, গ্রন্থাগারে বা বাড়িতে সাজিয়ে রেখে প্রদর্শন করে।

ড. মেককিনন বলেন, বইটির ইতিহাস তাকে অস্বস্তি দেয়। কিন্তু এই বইয়ের সহায়তা ছাড়া অনেক সময় তিনি নির্ভুলভাবে কাজই করতে পারেন না।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় গণহত্যা থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তি রাব্বি জোসেফ পোলক। হেলথ ল বিষয়ের এই অধ্যাপক পার্নকপ্ফের এই গ্রন্থটিকে একটি 'মোরাল এনিগমা' বা 'নৈতিক ধাঁধা' হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

অধ্যাপক পোলকের মতে, গ্রন্থটিকে নৈতিক প্রহেলিকা বা ধাঁধা হিসেবে বর্ণনা করার কারণ হচ্ছে, বইটির একদিকে রয়েছে এক জঘন্য ইতিহাস, অন্যদিকে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে মানুষের কল্যাণে।

নাৎসিবাদী খ্যাতিমান ডাক্তার এডুয়ার্ড পার্নকপ্ফের ২০ বছর মেয়াদী একটি প্রকল্প ছিল এই এনাটমি গ্রন্থ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×