ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষায় শীতকালে যা খাবেন

  রুবাইয়া পারভীন রীতি ০৮ নভেম্বর ২০১৯, ২১:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষায় শীতকালে যা খাবেন
ফাইল ছবি

শীতকালে নিয়ে আসে কনকনে শীত ও প্রচণ্ড হিমশীতল ভাব। যার প্রভাবে শরীরের বেশ পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। ত্বকের মধ্যে বেড়ে যায় শুষ্কতা ও রুক্ষতা এবং তার পাশাপাশি লাবণ্যতাও কমতে শুরু করে। অনেকের ত্বক কালচে হয়ে যায়। কিন্তু এসব থেকে কি পরিত্রাণের উপায় আছে? অবশ্যই আছে, আর তা হল শুধুমাত্র ত্বকের যত্ন নিলেই হবে না, ভেতর থেকে যেন সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় তার জন্য প্রয়োজন সঠিক খাদ্য নির্বাচন।

আসুন জেনে নেই ত্বকের লাবণ্যতা ও সৌন্দর্য রক্ষায় শীতকালে কী কী খাবেন:

সবুজ ও রঙিন শাক-সবজি: শীতকালের খাবারে শাক-সবজি থাকার গুরুত্ব অনেক বেশি। কারণ এতে বেশি পরিমাণে ভিটামিনস, মিনারেলস ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ইত্যাদি পুষ্টি উপাদান আছে, যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সবজির মধ্যে অন্তর্ভূক্ত হল- ফুলকপি, পাতাকপি, মূলা, গাজর, বরবটি, মটরশুঁটি, বেগুন ইত্যাদি।

মিক্সড ভেজিটেবল স্যুপ: শীতকালে ত্বকের লাবণ্যতা রক্ষায় উষ্ণ তরল খাবার যেমন মিক্সড ভেজিটেবল স্যুপ আদর্শ ও সহজলভ্য খাবার। মিক্সড ভেজিটেবল স্যুপ শরীরের বিপুল পরিমাণে শক্তি যোগাতে সাহায্য করবে।

টকজাতীয় ফল: টক জাতীয় ফলে আছে ভিটামিন-সি, মিনারেলস এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট- যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ত্বকের লাবণ্যতা ও উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে টক জাতীয় ফল অনেক উপকারি।

গ্রিন টি বা আদা চা: গ্রিন টিতে ক্যাটেচিন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে- যা ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে এবং এটি মেটাবলিজম বাড়ায় এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। গ্রিন টির বদলে আদা চাও পান করা যেতে পারে।

দুধ: দুধ একটি আদর্শ পানীয়- যাতে প্রায় সবধরনের পুষ্টি উপাদান পাওয়া যায়। এতে উচ্চমাত্রার প্রোটিন, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি আছে। চুল পড়া রোধে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে দুধের মতো উপকারী পানীয় হয় না।

মধু: মধুতে আছে জিংক ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট- যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। টনসিল, ঠাণ্ডা, কাশি ইত্যাদি রক্ষায় মধু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মধু ত্বকের লাবণ্যতা বাড়াতে সাহায্য করে।

ডিম: ডিমের কুসুমে আছে বায়োটিন- যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে এবং পুরো ডিমে আছে ভিটামিন ডি, এ এবং বি-৬, যা দেহের অনেক উপকার সাধন করে। শীতকালে যেহেতু চুল পড়ে তাই ডিম খাওয়া কমানো যাবে না। কারণ ডিমে উচ্চমাত্রার প্রোটিন রয়েছে।

সামুদ্রিক মাছ: সামুদ্রিক মাছে ওমেগা-৩ ও ওমেগা-৬ এবং ভিটামিন-ডি আছে, যা শীতকালের জন্য বেশি উপকারী। চুল পড়া বন্ধ করবে সামুদ্রিক মাছ।

অলিভ ওয়েল: অলিভ ওয়েল সালাদের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন এ, ডি, ই এবং কে পাওয়া যাবে। সালাদ হিসেবে শশা, টমেটো, গাজর ইত্যাদি খাওয়া যেতে পারে। এতে ত্বক সুন্দর থাকে।

তবে কিছু খাবার আছে যেগুলো শীতকালে এড়িয়ে চলা ভাল। যেমন- দুধ চা, রাস্তার ধারে ফুটপাতের খাবার, অতিরিক্ত তেলে ভাজাপোড়া খাবার, ঠাণ্ডা পানি, বাইরের বারবিকিউ ও গ্রিল্ড খাবার এবং কার্বোনেটেড বেভারেজ ইত্যাদি।

লেখক: রুবাইয়া পারভীন রীতি পুষ্টিবিদ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×