পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা কেন হয়, করণীয়
jugantor
পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা কেন হয়, করণীয়

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৪৩:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা কেন হয়, করণীয়

পরিশ্রমের কাজ করার অনেকে বুকে ব্যথা অনুভব করেন। সেটি কখনও তীব্র হয়ে উঠতে পারে। আর মৃদ্যু ব্যথা প্রায়ই হতে পারে।

এমন ব্যথা অনেকে গুরুত্ব দেন না। এটি বড় বিপদের কারণও হতে পারে।

এ ধরণের বুকে ব্যথার কারণ ও উপসর্গ নিয়ে যুগান্তরকে পরামর্শ দিয়েছেন মেডিনোভা হাসপাতালের মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মো. তৌফিকুর রহমান ফারুক।

পরিশ্রমের সময় অথাৎ সিঁড়ি দিয়ে উঠার সময়, পাহাড়ে উঠার সময়, দৌড়ে বাসে উঠার সময়, তাড়াহুড়া করে কোনো কাজ করার সময়, বাজারের ব্যাগ হাতে নিয়ে হাঁটার সময়, ভারী কাজ করার সময়, কোনো ভারী জিনিস তোলার সময়, অত্যাধিক উত্তেজিত হলে, খাবার পর ভরাপেটে হাঁটলে বুকে ব্যথা বা চাপ অনুভূত হতে পারে।

পরিশ্রমের সময় হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লক থাকলে বা রক্তপ্রবাহে বাধাগ্রস্ত হলে বুকে ব্যথা হতে পারে। হৃদপিণ্ডের করোনারী রক্তনালিতে ব্লক থাকলে বা রক্তনালিতে চর্বির আস্তর জমে রক্তনালি সরু হলে পরিশ্রমের সময় অতিরিক্ত রক্ত সরবরাহের প্রয়োজন হয়। কিন্তু রক্তনালিতে ব্লক থাকার কারণে রক্ত সরবরাহের ঘাটতি দেখা যায় ফলে হৃদপিণ্ডের মাংশপেশিতে অক্সিজেন ও খাবার অভাব দেখা যায় এতে বুকে ব্যথা করে।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত ব্যথা সাধারণত বুকের মাঝখানে হয়, কখনও কখনও বামপাশে অথবা ডানপাশেও হতে পারে। এ ব্যথা বুকের ওপর দিকে গলার কাছে একং বাম হাত দিয়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালির ব্লকজনিত ব্যথা ওপরের পেটে হতে পারে বা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা ভেবে ভুল হতে পারে। তাছাড়া এ ধরনের ব্যথা শুধু গলার ওপর চাপ চাপ ধরনের হতে পারে, মনে হয় গলায় কিছু আটকে আছে এবং নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসবে। এ ছাড়া হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত ব্যথা পিঠের পেছনে হতে পারে, ডান হাত বা বামহাতেও হতে পারে।

কী সমস্যা হতে পারে

হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত ব্যথা হলে তা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা ভেবে ভুল হতে পারে। তা পরিণামে সর্বনাশ ডেকে আনতে পারে। অনেক সময় ওপরের পেটে ব্যথা হলে তা রোগী নিজে অথবা অনেকে তা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা মনে করে অ্যান্টাসিড বা গ্যাস্ট্রিক এর অন্য ওষুধ দিয়ে রোগীকে আশ্বস্ত করাতে পারেন যা রোগীর জন্য মারাত্মক হতে পারে।

পেট ব্যথা গ্যাস্ট্রিকের জন্য না রক্তনালির ব্লকের জন্য তা কীভাবে বুঝা যায়

গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা সাধারণত বহুদিন ধরে মাঝে মাঝে হয়। কিন্তু হার্টের রক্তনালির ব্লকের কারণে হার্ট-অ্যাটাক হলে ওপরের পেটের ব্যথা প্রথম বারের জন্য বা নতুন ধরনের ব্যথা অনুভূত হলে এবং এর সঙ্গে যদি প্রচুর ঘাম হয় বা বমি বমি ভাব হয় তবে তা হার্ট অ্যাটাকের জন্য হওয়ার আশংকা বেশি।

পেটে ব্যথা হার্ট অ্যাটাকের কারণে হলে কী করা উচিত

কোনো রোগীর কোনোদিন পেটে ব্যথা না হলে এবং হঠাৎ করে কোনোদিন পেটে ব্যথা হলে, সঙ্গে প্রচুর ঘাম হলে বা বমি হলে সে ক্ষেত্রে যেহেতু হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত কারণে হওয়ার আশংকা বেশি, সে ক্ষেত্রে অতিসত্ত্বর নিকটস্থ হাসপাতাল বা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ইসিজি বা রক্ত পরীক্ষা যেমন কার্ডিয়াক ট্রপোনিন আই পরীক্ষাটি করিয়ে নেওয়া উচিত।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত বুকে ব্যথার বৈশিষ্ট কী

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত বুকে ব্যথা সাধারণত বুকের মাঝখানে হয়। পরিশ্রম করলে বাড়ে, বিশ্রাম নিলে কমে, নাইট্রেট জাতীয় ওষুধ জিহ্বার নিচে দিলে বা জিহ্বার নিচে স্প্রে করলে কমে। বুকের ব্যথা বাম হাতের ভেতরের দিক দিয়ে নিচের দিকে নামে, বুকে ব্যথার সঙ্গে সঙ্গে অতিরিক্ত ঘাম হতে পারে।

করণীয়

পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা হলে তা হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত কারণে হতে পারে বিধায় অতিসত্বর হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। ইসিজি, ইকোকার্ডিওগ্রাম, ইটিটি এবং অন্য পরীক্ষা যেমন- করোনারী এনজিওগ্রাম করতে পারেন।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত কারণে বুকে ব্যথা হলে ইসিজি স্বাভাবিক থাকতে পারে।


পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা কেন হয়, করণীয়

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৪৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা কেন হয়, করণীয়
ফাইল ছবি

 পরিশ্রমের কাজ করার অনেকে বুকে ব্যথা অনুভব করেন। সেটি কখনও তীব্র হয়ে উঠতে পারে। আর মৃদ্যু ব্যথা প্রায়ই হতে পারে।

এমন ব্যথা অনেকে গুরুত্ব দেন না। এটি বড় বিপদের কারণও হতে পারে। 

এ ধরণের বুকে ব্যথার কারণ ও উপসর্গ নিয়ে যুগান্তরকে পরামর্শ দিয়েছেন মেডিনোভা হাসপাতালের মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মো. তৌফিকুর রহমান ফারুক।

পরিশ্রমের সময় অথাৎ সিঁড়ি দিয়ে উঠার সময়, পাহাড়ে উঠার সময়, দৌড়ে বাসে উঠার সময়, তাড়াহুড়া করে কোনো কাজ করার সময়, বাজারের ব্যাগ হাতে নিয়ে হাঁটার সময়, ভারী কাজ করার সময়, কোনো ভারী জিনিস তোলার সময়, অত্যাধিক উত্তেজিত হলে, খাবার পর ভরাপেটে হাঁটলে বুকে ব্যথা বা চাপ অনুভূত হতে পারে।

পরিশ্রমের সময় হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লক থাকলে বা রক্তপ্রবাহে বাধাগ্রস্ত হলে বুকে ব্যথা হতে পারে। হৃদপিণ্ডের করোনারী রক্তনালিতে ব্লক থাকলে বা রক্তনালিতে চর্বির আস্তর জমে রক্তনালি সরু হলে পরিশ্রমের সময় অতিরিক্ত রক্ত সরবরাহের প্রয়োজন হয়। কিন্তু রক্তনালিতে ব্লক থাকার কারণে রক্ত সরবরাহের ঘাটতি দেখা যায় ফলে হৃদপিণ্ডের মাংশপেশিতে অক্সিজেন ও খাবার অভাব দেখা যায় এতে বুকে ব্যথা করে।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত ব্যথা সাধারণত বুকের মাঝখানে হয়, কখনও কখনও বামপাশে অথবা ডানপাশেও হতে পারে। এ ব্যথা বুকের ওপর দিকে গলার কাছে একং বাম হাত দিয়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালির ব্লকজনিত ব্যথা ওপরের পেটে হতে পারে বা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা ভেবে ভুল হতে পারে। তাছাড়া এ ধরনের ব্যথা শুধু গলার ওপর চাপ চাপ ধরনের হতে পারে, মনে হয় গলায় কিছু আটকে আছে এবং নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসবে। এ ছাড়া হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত ব্যথা পিঠের পেছনে হতে পারে, ডান হাত বা বামহাতেও হতে পারে।

কী সমস্যা হতে পারে

হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত ব্যথা হলে তা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা ভেবে ভুল হতে পারে। তা পরিণামে সর্বনাশ ডেকে আনতে পারে। অনেক সময় ওপরের পেটে ব্যথা হলে তা রোগী নিজে অথবা অনেকে তা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা মনে করে অ্যান্টাসিড বা গ্যাস্ট্রিক এর অন্য ওষুধ দিয়ে রোগীকে আশ্বস্ত করাতে পারেন যা রোগীর জন্য মারাত্মক হতে পারে।

পেট ব্যথা গ্যাস্ট্রিকের জন্য না রক্তনালির ব্লকের জন্য তা কীভাবে বুঝা যায়

গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা সাধারণত বহুদিন ধরে মাঝে মাঝে হয়। কিন্তু হার্টের রক্তনালির ব্লকের কারণে হার্ট-অ্যাটাক হলে ওপরের পেটের ব্যথা প্রথম বারের জন্য বা নতুন ধরনের ব্যথা অনুভূত হলে এবং এর সঙ্গে যদি প্রচুর ঘাম হয় বা বমি বমি ভাব হয় তবে তা হার্ট অ্যাটাকের জন্য হওয়ার আশংকা বেশি।

পেটে ব্যথা হার্ট অ্যাটাকের কারণে হলে কী করা উচিত

কোনো রোগীর কোনোদিন পেটে ব্যথা না হলে এবং হঠাৎ করে কোনোদিন পেটে ব্যথা হলে, সঙ্গে প্রচুর ঘাম হলে বা বমি হলে সে ক্ষেত্রে যেহেতু হৃদপিণ্ডের ব্লকজনিত কারণে হওয়ার আশংকা বেশি, সে ক্ষেত্রে অতিসত্ত্বর নিকটস্থ হাসপাতাল বা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ইসিজি বা রক্ত পরীক্ষা যেমন কার্ডিয়াক ট্রপোনিন আই পরীক্ষাটি করিয়ে নেওয়া উচিত।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত বুকে ব্যথার বৈশিষ্ট কী

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত বুকে ব্যথা সাধারণত বুকের মাঝখানে হয়। পরিশ্রম করলে বাড়ে, বিশ্রাম নিলে কমে, নাইট্রেট জাতীয় ওষুধ জিহ্বার নিচে দিলে বা জিহ্বার নিচে স্প্রে করলে কমে। বুকের ব্যথা বাম হাতের ভেতরের দিক দিয়ে নিচের দিকে নামে, বুকে ব্যথার সঙ্গে সঙ্গে অতিরিক্ত ঘাম হতে পারে।

করণীয়

পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা হলে তা হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত কারণে হতে পারে বিধায় অতিসত্বর হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। ইসিজি, ইকোকার্ডিওগ্রাম, ইটিটি এবং অন্য পরীক্ষা যেমন- করোনারী এনজিওগ্রাম করতে পারেন।

হৃদপিণ্ডের রক্তনালিতে ব্লকজনিত কারণে বুকে ব্যথা হলে ইসিজি স্বাভাবিক থাকতে পারে।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন