মাতৃত্বকালীন ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়ে দিলেন ফোয়ারা, অতঃপর...
jugantor
মাতৃত্বকালীন ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়ে দিলেন ফোয়ারা, অতঃপর...

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৩ মার্চ ২০২০, ১৬:৩৩:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

মাতৃত্বকালীন ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন ফোয়ারা ফেরদৌস। এরপর শুরু করেন ব্যবসা। চালু করেন শাড়ির ব্র্যান্ড ‘পটের বিবি’।

সাহসী এই নারীর জীবন সংগ্রাম নিয়ে বিবিসি বাংলা একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

চাকরি ছাড়ার পর গর্ভকালীন পুরো সময়টা ফোয়ারা কাটিয়েছেন ছবি এঁকে। একসময় ছবি আঁকতে শুরু করলেন পোশাকে, বিশেষ করে শাড়িরওপর।

আর এই শাড়িগুলো ফেসবুকে পাতা খুলে বিক্রি করতে গিয়ে পেলেন দারুণ সাড়া।

এখন যদিও তার ব্র্যান্ড ‘পটের বিবি’র শোরুম হয়েছে, কিন্তু তার ব্যবসার অন্যতম মাধ্যম ফেসবুক।

ফোয়ারা ফেরদৌসের ব্যবসার শ্লোগান, ‘সবার জন্য পাটভাঙা শাড়ি’।

নিজের ব্যবসা সম্পর্কে ফোয়ারা বলেন, আমি পুরো চাঁদনী চকে খুঁজে খুঁজে কাপড় কিনেছি। রিকশায় সেই কাপড়ের ওপর বসেই বাসায়এসেছি।

তিনি বলেন, অনেকেই হয়তো এই কাজটা করতে গিয়ে (অন্যরা) কী ভাববে সেটা মনে করে সে কাজই করছেন না।

ফোয়ারা জানান, পটের বিবি শুরু হয়েছে ২০১৫ সালের মে মাসে। আমি অনেক আগেই থেকেই উদ্যোক্তা ছিলাম। পটের বিবিরও আগে থেকে। চাকরির পাশাপাশি তখন নিজে পেইন্টিং করে পণ্য বানাতাম।

‘যখন আমি প্রেগনেন্ট হই তখন ছুটি চেয়েছিলাম। কিন্তু অফিস আমাকে মাতৃত্বকালীন ছুটি দিতে রাজি ছিল না। তখন আমি জবটা ছেড়ে দেই।’

তিনি বলেন, ‍পুরো প্রেগনেন্সি পিরিয়ড আমি পেইন্টিং করে কাটিয়েছি। বাচ্চা হওয়ার পর পেইন্টিংয়ে আর সময় দিতে পারছিলাম না। এরপর স্বাধীনভাবে কাজ করার জন্য উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখি।

মাতৃত্বকালীন ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়ে দিলেন ফোয়ারা, অতঃপর...

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৩ মার্চ ২০২০, ০৪:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাতৃত্বকালীন ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন ফোয়ারা ফেরদৌস। এরপর শুরু করেন ব্যবসা। চালু করেন শাড়ির ব্র্যান্ড ‘পটের বিবি’।

সাহসী এই নারীর জীবন সংগ্রাম নিয়ে বিবিসি বাংলা একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। 
 
চাকরি ছাড়ার পর গর্ভকালীন পুরো সময়টা ফোয়ারা কাটিয়েছেন ছবি এঁকে। একসময় ছবি আঁকতে শুরু করলেন পোশাকে, বিশেষ করে শাড়ির ওপর।

আর এই শাড়িগুলো ফেসবুকে পাতা খুলে বিক্রি করতে গিয়ে পেলেন দারুণ সাড়া।

এখন যদিও তার ব্র্যান্ড ‘পটের বিবি’র শোরুম হয়েছে, কিন্তু তার ব্যবসার অন্যতম মাধ্যম ফেসবুক।

ফোয়ারা ফেরদৌসের ব্যবসার শ্লোগান, ‘সবার জন্য পাটভাঙা শাড়ি’।

নিজের ব্যবসা সম্পর্কে ফোয়ারা বলেন, আমি পুরো চাঁদনী চকে খুঁজে খুঁজে কাপড় কিনেছি। রিকশায় সেই কাপড়ের ওপর বসেই বাসায় এসেছি। 

তিনি বলেন, অনেকেই হয়তো এই কাজটা করতে গিয়ে (অন্যরা) কী ভাববে সেটা মনে করে সে কাজই করছেন না।  

ফোয়ারা জানান, পটের বিবি শুরু হয়েছে ২০১৫ সালের মে মাসে। আমি অনেক আগেই থেকেই উদ্যোক্তা ছিলাম। পটের বিবিরও আগে থেকে। চাকরির পাশাপাশি তখন নিজে পেইন্টিং করে পণ্য বানাতাম। 

‘যখন আমি প্রেগনেন্ট হই তখন ছুটি চেয়েছিলাম। কিন্তু অফিস আমাকে মাতৃত্বকালীন ছুটি দিতে রাজি ছিল না। তখন আমি জবটা ছেড়ে দেই।’

তিনি বলেন, ‍পুরো প্রেগনেন্সি পিরিয়ড আমি পেইন্টিং করে কাটিয়েছি। বাচ্চা হওয়ার পর পেইন্টিংয়ে আর সময় দিতে পারছিলাম না। এরপর স্বাধীনভাবে কাজ করার জন্য উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখি।  

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন