অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা ইব্রাহিম
jugantor
অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা ইব্রাহিম

  অনলাইন ডেস্ক  

২৬ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৩:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা ইব্রাহিম

অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফলতা লাভ করছেন মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর। দিন দিন গ্রাহকদের আগ্রহ বাড়ছে তার কাছ থেকে ঘড়ি নেওয়ার।

তাই তিনি অনলাইন শপের পাশাপাশি গ্রাহকদের কাঙ্ক্ষিত চাহিদা পূরণের জন্য তৈরি করেছেন আউটলেটও।যেন আউটলেটে এসে গ্রাহক তার পছন্দমত মত ঘড়ি নিতে পারেন।

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর কয়েক বছর আগে ধর্মান্তরিত হয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর বলেন, নতুন ধর্মে দীক্ষিত হওয়ার আগে আমার মোবাইল ও এক্সেসরিজের ব্যবসা ছিল, যেখানে মোবাইল সার্ভিসিং সহ, মোবাইল ও এক্সেসরিজ বিক্রি হত। ইসলাম গ্রহণ করার পরে সামাজিক ও মানসিকভাবে আমি অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়ি।এ সময় আমি নতুন কিছু শুরু করার পরিকল্পনা করি।

ইব্রাহিম বলেন, আমি আল্লাহতায়ালার কাছে দোয়া করতে থাকি। তিনি যেন আমাকে নতুন কোন হালাল ব্যবসার পথ বের করতে সাহায্য করেন। কারণ আগের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি ছেড়ে আসার পর স্বল্প মূলধন নিয়ে নতুন কিছু শুরু করা আমার জন্য খুবই কষ্টসাধ্য ছিল। আল্লাহর রহমতে আমার অনলাইনে ঘড়ির ব্যবসা করার চিন্তা আসে। এরপরই মূলত আমি ফেসবুকে ‘Ibrahim Mart’ নামে একটি পেজ খুলে ঘড়ির ব্যবসা শুরু করি।

তিনি আরো বলেন, আমার আগের ব্যবসার মোটামুটি ২৯৫০০ টাকার মত মূলধন ছিল। সেটাকেই পুঁজি বানিয়ে আল্লাহর ওপরে ভরসা করে আমি ব্যবসা শুরু করি। আলহামদুলিল্লাহ, এখন আমার এই ব্যবসায় কয়েক লক্ষাধিক টাকার পণ্য স্টক রয়েছে। যা আমি অনলাইনে Ibrahim Mart এর মাধ্যমে বিক্রি করছি। এছাড়া আরো নতুন পণ্য যোগ করার কাজ চলছে।সাভার চৌরঙ্গী সুপারমার্কেটে আমাদের আউটলেটে ভালোই ভিড় করেন গ্রাহকরা।

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর বলেন, মুসলমান হওয়ার পরে আমি খুব দুঃশ্চিন্তায় ছিলাম। পরিবার নিয়ে কীভাবে জীবন ধারণ করব। কিন্তু আল্লাহ আমাকে হতাশ করেননি। আমার জন্য উত্তম ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে আমার এই অনলাইন শপ থেকে প্রত্যেক দিন প্রায় ২০-২৫ হাজার টাকার ঘড়ি বিক্রি হচ্ছে। গ্রাহকদের আমি সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করে আসছি এবং গ্রাহকদের কাছে ভালো সাড়াও পাচ্ছি। গ্রাহকদের কথা চিন্তা করে Ibrahim Mart এর ই-কমার্স ওয়েবসাইটের কাজ চলছে। যেখানে খুব শিগগিরই ঘড়িসহ অন্যান্য পণ্য খুব সহজে কিনতে পারবেন গ্রাহকরা।

অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা ইব্রাহিম

 অনলাইন ডেস্ক 
২৬ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা ইব্রাহিম
মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর।

অনলাইনে ঘড়ি বিক্রি করে সফলতা লাভ করছেন মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর। দিন দিন গ্রাহকদের আগ্রহ বাড়ছে তার কাছ থেকে ঘড়ি নেওয়ার। 

তাই তিনি অনলাইন শপের পাশাপাশি গ্রাহকদের কাঙ্ক্ষিত চাহিদা পূরণের জন্য তৈরি করেছেন আউটলেটও।যেন আউটলেটে এসে গ্রাহক তার পছন্দমত মত ঘড়ি নিতে পারেন। 

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর কয়েক বছর আগে ধর্মান্তরিত হয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর বলেন, নতুন ধর্মে দীক্ষিত হওয়ার আগে আমার মোবাইল ও এক্সেসরিজের ব্যবসা ছিল, যেখানে মোবাইল সার্ভিসিং সহ, মোবাইল ও এক্সেসরিজ বিক্রি হত। ইসলাম গ্রহণ করার পরে সামাজিক ও মানসিকভাবে আমি অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়ি।এ সময় আমি নতুন কিছু শুরু করার পরিকল্পনা করি।

ইব্রাহিম বলেন, আমি আল্লাহতায়ালার কাছে দোয়া করতে থাকি। তিনি যেন আমাকে নতুন কোন হালাল ব্যবসার পথ বের করতে সাহায্য করেন। কারণ আগের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি ছেড়ে আসার পর স্বল্প মূলধন নিয়ে নতুন কিছু শুরু করা আমার জন্য খুবই কষ্টসাধ্য ছিল। আল্লাহর রহমতে আমার অনলাইনে ঘড়ির ব্যবসা করার চিন্তা আসে। এরপরই মূলত আমি ফেসবুকে ‘Ibrahim Mart’ নামে একটি পেজ খুলে ঘড়ির ব্যবসা শুরু করি। 

তিনি আরো বলেন, আমার আগের ব্যবসার মোটামুটি ২৯৫০০ টাকার মত মূলধন ছিল। সেটাকেই পুঁজি বানিয়ে আল্লাহর ওপরে ভরসা করে আমি ব্যবসা শুরু করি।  আলহামদুলিল্লাহ, এখন আমার এই ব্যবসায় কয়েক লক্ষাধিক টাকার পণ্য স্টক রয়েছে। যা আমি অনলাইনে Ibrahim Mart এর মাধ্যমে বিক্রি করছি। এছাড়া আরো নতুন পণ্য যোগ করার কাজ চলছে।সাভার চৌরঙ্গী সুপারমার্কেটে আমাদের আউটলেটে ভালোই ভিড় করেন গ্রাহকরা। 

মোহাম্মদ ইব্রাহিম ওমর বলেন, মুসলমান হওয়ার পরে আমি খুব দুঃশ্চিন্তায় ছিলাম। পরিবার নিয়ে কীভাবে জীবন ধারণ করব। কিন্তু আল্লাহ আমাকে হতাশ করেননি। আমার জন্য উত্তম ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। 

তিনি বলেন, বর্তমানে আমার এই অনলাইন শপ থেকে প্রত্যেক দিন প্রায় ২০-২৫ হাজার টাকার ঘড়ি বিক্রি হচ্ছে। গ্রাহকদের আমি সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করে আসছি এবং গ্রাহকদের কাছে ভালো সাড়াও পাচ্ছি। গ্রাহকদের কথা চিন্তা করে Ibrahim Mart এর ই-কমার্স ওয়েবসাইটের কাজ চলছে। যেখানে খুব শিগগিরই ঘড়িসহ অন্যান্য পণ্য খুব সহজে কিনতে পারবেন গ্রাহকরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন