বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের টাকা প্রাপ্তি সহজ করলো ট্রান্সপে

প্রকাশ : ০৪ জুলাই ২০১৮, ১৫:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

ট্রান্সপে

অনলাইন সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ গত এক দশকে নিজেকে দক্ষ মানব সম্পদের অন্যতম উৎস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। 

কয়েক বছর আগেও যেখানে দেশের ফ্রিল্যান্সাররা মার্কেটপ্লেস নির্ভর কাজ করতো। এখন অনেকে সরাসরি ক্লাইন্টকে সেবা প্রদান করছে। 

শুধু ফ্রিল্যান্সার না, বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের রিমোট ওয়ার্কার ও কনসালটেন্টও নিয়োগ দিচ্ছে। 

এখন অনেক চাকরিজীবীকে পাওয়া যাবে যারা আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে বাংলাদেশে কোনো অফিস বা প্রাতিষ্ঠানিক অস্তিত্ব ছাড়া। 

কিন্তু কিছু দিন আগেও কোনো সরাসরি পেমেন্ট নেয়ার মাধ্যম ছিলো না; যা কিনা অগ্রগতিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য খুবই প্রয়োজন। উপায় না থাকায় অনেকে ক্লায়েন্টও হারিয়েছে।

আমেরিকা ভিত্তিক ফিনটেক প্রতিষ্ঠান ট্রান্সপে এই সংকটের সমাধান নিয়ে এসেছে বাংলাদেশি ডিজিটাল প্রফেশনালদের জন্য।

ট্রান্সপের মাধ্যমে আমেরিকা থেকে সরাসরি বাংলাদেশি ব্যাংক একাউন্টে টাকা আনতে পারবে যে কেউ। টাকা গ্রহণ করার জন্য কোন ফি নেই।

এই সুবিধা পাওয়া যাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। অন্য যেকোনো পদ্ধতিতে টাকা গ্রহণ করতে হলে পোহাতে হয় দুই থেকে তিনটা ধাপ। 

যেমন, ভার্চুয়াল ওয়ালেট ব্যবহার করলে টাকা প্রথমে আসে ওয়ালেটে, তারপর আসে ব্যাংক একাউন্টে। এতে সময় যেমন নষ্ট হয়, খরচও হয় বারবার। 

ক্লাইন্টের যদি ভার্চুয়াল একাউন্ট না থাকে তাহলে তো আরও বেশি বিড়ম্বনা। ট্রান্সপের ক্ষেত্রে অন্য কোনো একাউন্ট মেইনটেইন করতে হয় না। 

শুধুমাত্র ব্যাংক একাউন্ট যোগ করলেই একাউন্ট রেডি কয়েক মিনিটের মধ্যে! একাধিক ব্যাংক একাউন্ট যোগ করতে কোনো বাধা নেই। 

যেহেতু অধিকাংশ ব্যাংক ট্রান্সপের পার্টনার, ব্যাংক একাউন্ট নম্বর, ব্রাঞ্চ ও ব্যাংকের নাম দিলেই একাউন্ট অ্যাড হয়ে যাবে। বাৎসরিক কোনো ফিও দরকার হবে না। 

একাউন্ট ভেরিফিকেশনের ক্ষেত্রে ট্রান্সপে প্রেরকের সম্পূর্ণ কেওয়াইসি করে থাকে; অর্থাৎ ক্লাইন্টের প্রতিষ্ঠান বৈধ কিনা তা যাচাই করা হয়। এই প্রক্রিয়া নিরাপদ ট্রানজেকশন নিশ্চিত করে। 

ট্রান্সপে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ট্রান্সপে গতানু গতিক ওয়্যার ট্রান্সফারের থেকে ভিন্ন যেখানে ব্যাংকের ফর্ম পূরণ করতে হবে না প্রতিবার। 

এক সঙ্গে সর্বোচ্চ ১০ হাজার মার্কিন ডলার গ্রহণ করা যাবে প্রায় যে কোনো ব্যাংক একাউন্টে। এই সেবা রিমোট ওয়ার্কার, ফ্রিল্যান্সার ও আউটসোর্সিং প্রতিষ্ঠানের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে। 

বাংলাদেশি অনলাইন প্রফেশনালদের গ্লোবাল মার্কেটে অবদান এখন কারো অজানা নেই, তাই এই সেগমেন্টকে ট্রান্সপে বিশেষ গুরুত্ব দেয়। 

২০১২ সাল থেকে ট্রান্সপে বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সারদের সেবা প্রদান করে আসছে ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্মের মাধ্যমে। 

বিগত ছয় বছরের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এবার নিয়ে এসেছে সময় উপযোগী সেবা। সহজে, কম সময়ে ও বিনামূল্যে ট্রান্সপে ব্যবহার করা যাবে এই ঠিকানা থেকে। 

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে অবস্থিত বিটুবি/বিটুপি ক্রস বর্ডার পেমেন্ট সেবা ট্রান্সপে। 

এ সেবাটি বর্তমানে সারাবিশ্বব্যাপী বিশ্বের সবচেয়ে বড়, স্বাধীন পেমেন্ট নেটওয়ার্ক। তাৎক্ষনিক গ্রাহকদের অর্থ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দ্রুত পৌঁছানোর কাজ করে প্রতিষ্ঠানটি। 

অর্থ পাওয়া যায় স্থানীয় মুদ্রায় গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবে, ডিজিটাল ওয়ালেটে অথবা গ্রাহকদের পছন্দসই অর্থ পাওয়ার ব্যবস্থার মাধ্যমে। 

পেমেন্ট ইন্ড্রাস্টির বড় বিনিয়োগকারীদের থেকে প্রায় ১.৮ বিলিয়ন ডলারের প্রাইভে ইক্যুয়িটি ফান্ড নিয়ে কাজ করছে ট্রান্সপে। ট্রান্সপে বিশ্ব্যব্যাপী পেমেন্টের ক্ষেত্রে ব্যবহার বান্ধব, নিরাপদ, সহজে ব্যবহার উপযোগী ব্যবস্থা।