সব ব্যাংকের এমডি-পরিচালকদের সম্পদের হিসাব দিতে হবে প্রতিবছর
jugantor
সব ব্যাংকের এমডি-পরিচালকদের সম্পদের হিসাব দিতে হবে প্রতিবছর

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:২৫:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের সরকারি-বেসরকারি সব ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও তার নিচের দুই স্তরের কর্মকর্তার সব ধরনের সম্পদ বিবরণী এখন থেকে প্রতিবছর নিজ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে জমা দিতে হবে।

শুক্রবার এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলারে এই নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে তাদের পারিবারিক ব্যবসার তথ্যও দিতে বলা হয়েছে। এ তথ্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে সংরক্ষণ করতে বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গেল বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) উল্লেখ করা সার্কুলারটি সব ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এমডি বরাবর পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটেও দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবারই (২১ জানুয়ারি) ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান দেখভাল ও অর্থ পাচার প্রতিরোধে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্বপ্রাপ্ত সব কর্মকর্তার তালিকা ও পরিচয় দাখিলের জন্য গভর্নরকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এরপরই বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সার্কুলার দিয়ে সব ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও তার নিচের দুই স্তরের কর্মকর্তার সব ধরনের সম্পদ বিবরণী চাইল।

সার্কুলারে বলা হয়, ব্যাংক কোম্পানি আইনের ১৮ ধারার উপধারা (২) এ বর্ণিত বিধানের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে। উক্ত ধারার বিধান পরিপালনের লক্ষ্যে প্রত্যেক ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও তার নিম্নতর দুই স্তর পর্যন্ত কর্মকর্তাদের নিজ-নিজ বাণিজ্যিক, আর্থিক, কৃষি, শিল্প এবং অন্যান্য ব্যবসার নাম, ঠিকানা ও অন্যান্য বিবরণী প্রতি পঞ্জিকা বছর শেষে পরবর্তী বছরের ২০ জানুয়ারির মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পারিবারিক ব্যবসায়িক স্বার্থ সংশ্লিষ্টতার বিবরণীও জমা দিতে বলা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, ২০২০ সালের বিবরণীগুলো আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে। দাখিলকৃত বিবরণী পরবর্তী পর্ষদ সভায় উপস্থাপন করতে হবে। ব্যাংক থেকে এসব বিবরণী যথাযথভাবে সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে হবে। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও উল্লেখ করা হয় সার্কুলারে।

সব ব্যাংকের এমডি-পরিচালকদের সম্পদের হিসাব দিতে হবে প্রতিবছর

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৬:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের সরকারি-বেসরকারি সব ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও তার নিচের দুই স্তরের কর্মকর্তার সব ধরনের সম্পদ বিবরণী এখন থেকে প্রতিবছর নিজ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে জমা দিতে হবে।

শুক্রবার এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলারে এই নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে তাদের পারিবারিক ব্যবসার তথ্যও দিতে বলা হয়েছে। এ তথ্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে সংরক্ষণ করতে বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গেল বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) উল্লেখ করা সার্কুলারটি সব ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এমডি বরাবর পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটেও দেওয়া হয়েছে। 

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবারই (২১ জানুয়ারি) ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান দেখভাল ও অর্থ পাচার প্রতিরোধে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্বপ্রাপ্ত সব কর্মকর্তার তালিকা ও পরিচয় দাখিলের জন্য গভর্নরকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এরপরই বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সার্কুলার দিয়ে সব ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও তার নিচের দুই স্তরের কর্মকর্তার সব ধরনের সম্পদ বিবরণী চাইল। 

সার্কুলারে বলা হয়, ব্যাংক কোম্পানি আইনের ১৮ ধারার উপধারা (২) এ বর্ণিত বিধানের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে। উক্ত ধারার বিধান পরিপালনের লক্ষ্যে প্রত্যেক ব্যাংকের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও তার নিম্নতর দুই স্তর পর্যন্ত কর্মকর্তাদের নিজ-নিজ বাণিজ্যিক, আর্থিক, কৃষি, শিল্প এবং অন্যান্য ব্যবসার নাম, ঠিকানা ও অন্যান্য বিবরণী প্রতি পঞ্জিকা বছর শেষে পরবর্তী বছরের ২০ জানুয়ারির মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পারিবারিক ব্যবসায়িক স্বার্থ সংশ্লিষ্টতার বিবরণীও জমা দিতে বলা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, ২০২০ সালের বিবরণীগুলো আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে। দাখিলকৃত বিবরণী পরবর্তী পর্ষদ সভায় উপস্থাপন করতে হবে। ব্যাংক থেকে এসব বিবরণী যথাযথভাবে সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে হবে। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও উল্লেখ করা হয় সার্কুলারে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন