ঋণ নিলে পরিচালকদের তথ্য দিতে হবে
jugantor
ঋণ নিলে পরিচালকদের তথ্য দিতে হবে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৪ জুন ২০২১, ০০:৫৩:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিমের আওতায় ঋণ নিতে হলে প্রতিষ্ঠানের মালিক বা পরিচালকদের তথ্য দিতে হবে। একই সঙ্গে দিতে হবে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তথ্যও। উদ্যোক্তার ও ব্যবসার ধরনসহ অন্যান্য তথ্যও দিতে হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে।

এ বিষয়ে রোববার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একটি সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র জানায়, করোনার নেতিবাচক প্রভাব মোকাবিলা করতে বাংলাদেশ ব্যাংক মাইক্রো, অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার একটি প্রণোদনা তহবিল গঠন করেছে। এ তহবিল থেকে মাঝারি উদ্যোক্তারা ঋণ পেলেও মাইক্রো ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ঋণ পাচ্ছেন না। এছাড়া অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের উদ্যোক্তারাও ঋণ পাচ্ছেন না। ফলে তহবিলের প্রায় ৪০ শতাংশ অর্থ অব্যবহৃত রয়ে গেছে। এ তহবিল থেকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে বাংলাদেশ ব্যাংক ২ হাজার কোটি টাকার একটি ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে। এ স্কিম থেকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে গ্যারান্টি দেওয়া হবে। কোন কারণে গ্রাহক ঋণ দিতে না পারলে ঋণের একটি অংশ গ্যারান্টির আওতায় বাংলাদেশ ব্যাংক পরিশোধ করবে।

সার্কুলারে বলা হয়, এই গ্যারান্টি স্কিম ব্যবহার করে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিলে ব্যাংকগুলোকে কিছু শর্ত পালন করতে হবে। ঋণের বিবরণী বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রতি মাসের ৫ তারিখের মধ্যে পাঠাতে হবে। গ্যারান্টি ইস্যুর তারিখ ও অন্যান্য তথ্যও পাঠাতে হবে।

ঋণ নিলে পরিচালকদের তথ্য দিতে হবে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৪ জুন ২০২১, ১২:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিমের আওতায় ঋণ নিতে হলে প্রতিষ্ঠানের মালিক বা পরিচালকদের তথ্য দিতে হবে। একই সঙ্গে দিতে হবে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তথ্যও। উদ্যোক্তার ও ব্যবসার ধরনসহ অন্যান্য তথ্যও দিতে হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে।

এ বিষয়ে রোববার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একটি সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র জানায়, করোনার নেতিবাচক প্রভাব মোকাবিলা করতে বাংলাদেশ ব্যাংক মাইক্রো, অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার একটি প্রণোদনা তহবিল গঠন করেছে। এ তহবিল থেকে মাঝারি উদ্যোক্তারা ঋণ পেলেও মাইক্রো ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ঋণ পাচ্ছেন না। এছাড়া অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের উদ্যোক্তারাও ঋণ পাচ্ছেন না। ফলে তহবিলের প্রায় ৪০ শতাংশ অর্থ অব্যবহৃত রয়ে গেছে। এ তহবিল থেকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে বাংলাদেশ ব্যাংক ২ হাজার কোটি টাকার একটি ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে। এ স্কিম থেকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে গ্যারান্টি দেওয়া হবে। কোন কারণে গ্রাহক ঋণ দিতে না পারলে ঋণের একটি অংশ গ্যারান্টির আওতায় বাংলাদেশ ব্যাংক পরিশোধ করবে। 

সার্কুলারে বলা হয়, এই গ্যারান্টি স্কিম ব্যবহার করে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিলে ব্যাংকগুলোকে কিছু শর্ত পালন করতে হবে। ঋণের বিবরণী বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রতি মাসের ৫ তারিখের মধ্যে পাঠাতে হবে। গ্যারান্টি ইস্যুর তারিখ ও অন্যান্য তথ্যও পাঠাতে হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন