দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ
jugantor
দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২২:৫৩:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ

বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঘুষ দাবি সংক্রান্ত অভিযোগ প্রত্যাহারে ডেল্টা লাইফের কর্মকর্তাকে চাপ দেওয়া হয়েছে। ডেল্টা লাইফের নতুন প্রশাসক সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা বুধবার প্রতিষ্ঠানটির জয়েন্ট এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট পল্লব ভৌমিককে চিঠি দিয়ে এই চাপ দেন। চিঠি দেওয়ার বিষয়টি প্রশাসক স্বীকার করেন।

উল্লে­খ্য, ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবির অভিযোগে সম্প্রতি আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) অভিযোগ করে ডেল্টা লাইফ। এই অভিযোগের চিঠিতে পল্ল­ব ভৌমিকের স্বাক্ষর ছিল। সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠানের পর্ষদ ভেঙে সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে প্রশাসক নিয়োগ দেয় আইডিআরএ। এরপর দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ দেওয়া হলো।

জানতে চাইলে সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা বৃহস্পতিবার যুগান্তরকে বলেন, প্রতিষ্ঠানটির সাবেক অডিট কমিটি পল্ল­ব ভৌমিককে চাপ দিয়ে এই অভিযোগ দাখিল করতে বাধ্য করেছিল। প্রশাসক নিয়োগের পর বিষয়টি নিয়ে নতুন করে একটি তদন্ত কমিটি হয়। এই কমিটির ৪ জন সদস্য। তদন্ত শেষে কমিটি জানতে পেরেছে এটি অভিযোগ বানোয়াট। এরপর ওই কমিটিই আমাকে চিঠি দিয়েছে, প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে, আমি যাতে পল্লব ভৌমিককে এই অভিযোগ প্রত্যাহার করতে বলি। ফলে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি কমিটির সিদ্ধান্ত।

দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহার সংক্রান্ত চিঠিতে উল্লে­খ করা হয়, ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ অডিট কমিটির সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আইডিআরএ'র চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবির অভিযোগ দাখিলে আপনাকে বাধ্য করেছিল। আপনি ভীত ও বিভ্রান্ত হয়ে এটা দাখিল করেছেন। এই অভিযোগ অসত্য বানোয়াট এবং হয়রানি করার জন্য। ফলে এ সংক্রান্ত তদন্ত কমিটির সুপারিশে দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত দেওয়া হলো।

জানা গেছে, আইডিআরএ এবং ডেল্টা লাইফের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই টানাপোড়েন চলছে। এর আগে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ এনে প্রশাসক নিয়োগ দেওয়া হয়। এসব অভিযোগের মধ্যে রয়েছে- গ্রাহককে পলিসির টাকা না দেওয়া, তহবিল বাড়িয়ে দেখানো এবং সরকারের রাজস্ব ফাঁকি। এছাড়াও ভাড়াটিয়ার কাছ থেকে টাকা আদায় হলেও তা কোম্পানির হিসাবে দেখানো হয়নি। ব্যাংক হিসাবে ব্যাপক গড়মিল। কোম্পানির আর্থিক রিপোর্ট তৈরির ক্ষেত্রেও মানদণ্ড মানা হয়নি। সবমিলিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ৪৭টি অনিয়ম চিহ্নিত হয়েছে। এরমধ্যে ১০টি অনিয়মকে অধিকতর তদন্তের সুপারিশ করা হয়েছে।

অন্যদিকে আইডিআরএ'র চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ করেছে ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। আর ঘুষ না দিলে বড় ধরনের জরিমানা আরোপসহ কোম্পানিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

সম্প্রতি গুলশানের নিজস্ব অফিসে সংবাদ সম্মেলনে কোম্পানির সাবেক মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা আদিবা রহমান এ অভিযোগ করেন। এ সময় ঘুষ চাওয়া সংক্রান্ত মোবাইলের ৮ মিনিটের একটি কল রেকর্ড সাংবাদিকদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এছাড়াও এসব রেকর্ড দুদকে দেওয়া হয়েছে বলেও অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ
প্রতীকী ছবি

বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঘুষ দাবি সংক্রান্ত অভিযোগ প্রত্যাহারে ডেল্টা লাইফের কর্মকর্তাকে চাপ দেওয়া হয়েছে। ডেল্টা লাইফের নতুন প্রশাসক সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা বুধবার প্রতিষ্ঠানটির জয়েন্ট এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট পল্লব ভৌমিককে চিঠি দিয়ে এই চাপ দেন। চিঠি দেওয়ার বিষয়টি প্রশাসক স্বীকার করেন। 

উল্লে­খ্য, ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবির অভিযোগে সম্প্রতি আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) অভিযোগ করে ডেল্টা লাইফ। এই অভিযোগের চিঠিতে পল্ল­ব ভৌমিকের স্বাক্ষর ছিল। সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠানের পর্ষদ ভেঙে সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে প্রশাসক নিয়োগ দেয় আইডিআরএ। এরপর দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারে চাপ দেওয়া হলো। 

জানতে চাইলে সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা বৃহস্পতিবার যুগান্তরকে বলেন, প্রতিষ্ঠানটির সাবেক অডিট কমিটি পল্ল­ব ভৌমিককে চাপ দিয়ে এই অভিযোগ দাখিল করতে বাধ্য করেছিল। প্রশাসক নিয়োগের পর বিষয়টি নিয়ে নতুন করে একটি তদন্ত কমিটি হয়। এই কমিটির ৪ জন সদস্য। তদন্ত শেষে কমিটি জানতে পেরেছে এটি অভিযোগ বানোয়াট। এরপর ওই কমিটিই আমাকে চিঠি দিয়েছে, প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে, আমি যাতে পল্লব ভৌমিককে এই অভিযোগ প্রত্যাহার করতে বলি। ফলে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি কমিটির সিদ্ধান্ত। 

দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহার সংক্রান্ত চিঠিতে উল্লে­খ করা হয়, ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ অডিট কমিটির সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আইডিআরএ'র চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবির অভিযোগ দাখিলে আপনাকে বাধ্য করেছিল। আপনি ভীত ও বিভ্রান্ত হয়ে এটা দাখিল করেছেন। এই অভিযোগ অসত্য বানোয়াট এবং হয়রানি করার জন্য। ফলে এ সংক্রান্ত তদন্ত কমিটির সুপারিশে দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত দেওয়া হলো।

জানা গেছে, আইডিআরএ এবং ডেল্টা লাইফের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই টানাপোড়েন চলছে। এর আগে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ এনে প্রশাসক নিয়োগ দেওয়া হয়। এসব অভিযোগের মধ্যে রয়েছে- গ্রাহককে পলিসির টাকা না দেওয়া, তহবিল বাড়িয়ে দেখানো এবং সরকারের রাজস্ব ফাঁকি। এছাড়াও ভাড়াটিয়ার কাছ থেকে টাকা আদায় হলেও তা কোম্পানির হিসাবে দেখানো হয়নি। ব্যাংক হিসাবে ব্যাপক গড়মিল। কোম্পানির আর্থিক রিপোর্ট তৈরির ক্ষেত্রেও মানদণ্ড মানা হয়নি। সবমিলিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ৪৭টি অনিয়ম চিহ্নিত হয়েছে। এরমধ্যে ১০টি অনিয়মকে অধিকতর তদন্তের সুপারিশ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে আইডিআরএ'র চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ করেছে ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। আর ঘুষ না দিলে বড় ধরনের জরিমানা আরোপসহ কোম্পানিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

সম্প্রতি গুলশানের নিজস্ব অফিসে সংবাদ সম্মেলনে কোম্পানির সাবেক মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা আদিবা রহমান এ অভিযোগ করেন। এ সময় ঘুষ চাওয়া সংক্রান্ত মোবাইলের ৮ মিনিটের একটি কল রেকর্ড সাংবাদিকদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এছাড়াও এসব রেকর্ড দুদকে দেওয়া হয়েছে বলেও অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন