পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকি দাবি
jugantor
পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকি দাবি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:৪১:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান।

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের নেওয়া মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকি চেয়েছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান। একইসঙ্গে চলতি বছরে বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাব নবায়ন ফি সম্পূর্ণভাবে মওকুফ করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবি করেন।

দেশের অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় ৭২ হাজার কোটি টাকার সহায়তা তহবিল ঘোষণার বিষয়টিকে খুবই ইতিবাচক হিসেবে অভিহিত করেছেন রকিবুর রহমান।

তিনি বলেছেন, এই তহবিলের আওতায় শিল্প খাতের উদ্যোক্তাদেরকে ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেওয়া হবে, যদিও ব্যাংক পাবে ৯ শতাংশ। সুদের বাকী ৫ শতাংশ যোগান দেবে সরকার ভতুর্কী হিসেবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় পুঁজিবাজারবান্ধব। ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের জন্য সব সময় কিছু না কিছু করার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাই তিনি বিশেষ তহবিলের আওতায় ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকির ব্যবস্থা করবেন বলে তার আশা। এই ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীদের সুদের হতে পারে ৪ শতাংশ; সুদের বাকি অংশ যোগান দেবে সরকার। যেসব বিনিয়োগকারীর ঋণের সর্বোচ্চ স্থিতি ৫ লাখ টাকা, তাদেরকে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে এই সুবিধার আওতায় আনা যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

এছাড়াও তিনি বিনিয়োগকারীদের বিও একাউন্ট নবায়নের ফি-ও সম্পূর্ণ মওকুফ করার দাবি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর ৩০ জুনের মধ্যে বিও হিসাব নবায়ন করতে হয়। নবায়ন ফি ৪৫০ টাকা। এর মধ্যে ৩০০ টাকা পায় সিডিবিএল, ১০০ টাকা বিএইসি ও ৫০ টাকা পায় সংশ্লিষ্ট ডিপি।

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকি দাবি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৩ এপ্রিল ২০২০, ০৯:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান। ফাইল ছবি

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের নেওয়া মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকি চেয়েছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান। একইসঙ্গে চলতি বছরে বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাব নবায়ন ফি সম্পূর্ণভাবে মওকুফ করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবি করেন।

দেশের অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় ৭২ হাজার কোটি টাকার সহায়তা তহবিল ঘোষণার বিষয়টিকে খুবই ইতিবাচক হিসেবে অভিহিত করেছেন রকিবুর রহমান।

তিনি বলেছেন, এই তহবিলের আওতায় শিল্প খাতের উদ্যোক্তাদেরকে ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেওয়া হবে, যদিও ব্যাংক পাবে ৯ শতাংশ। সুদের বাকী ৫ শতাংশ যোগান দেবে সরকার ভতুর্কী হিসেবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় পুঁজিবাজারবান্ধব। ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের জন্য সব সময় কিছু না কিছু করার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাই তিনি বিশেষ তহবিলের আওতায় ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের মার্জিন ঋণের সুদে ভর্তুকির ব্যবস্থা করবেন বলে তার আশা। এই ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীদের সুদের হতে পারে ৪ শতাংশ; সুদের বাকি অংশ যোগান দেবে সরকার। যেসব বিনিয়োগকারীর ঋণের সর্বোচ্চ স্থিতি ৫ লাখ টাকা, তাদেরকে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে এই সুবিধার আওতায় আনা যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

এছাড়াও তিনি বিনিয়োগকারীদের বিও একাউন্ট নবায়নের ফি-ও সম্পূর্ণ মওকুফ করার দাবি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর ৩০ জুনের মধ্যে বিও হিসাব নবায়ন করতে হয়। নবায়ন ফি ৪৫০ টাকা। এর মধ্যে ৩০০ টাকা পায় সিডিবিএল, ১০০ টাকা বিএইসি ও ৫০ টাকা পায় সংশ্লিষ্ট ডিপি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন