কক্সবাজার-৪ আসনে জনপ্রিয়তায় বদি’র বিকল্প হতে পারেন শফিক মিয়া

  টেকনাফ প্রতিনিধি ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজার-৪ আসনে জনপ্রিয়তায় বদি’র বিকল্প হতে পারেন শফিক মিয়া
ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে জনপ্রিয়তায় আব্দুর রহমান বদির বিকল্প হতে পারেন ক্লিন ইমেজের নেতা কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. শফিক মিয়া এমনটাই মনে করছেন এই নির্বাচনী এলাকার ভোটাররা।

জানা গেছে, লক্ষি আসন হিসেবে পরিচিত জাতীয় সংসদের-২৯৭, (কক্সবাজার-৪) উখিয়া-টেকনাফ আসনটিতে যে দলের প্রতিনিধি এমপি নির্বাচিত হন, সেই দল সরকার গঠন করে। কয়েক যুগ ধরেই এমনটি হয়ে আসছে।

ফলে এই আসনটিতে মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে জনপ্রিয় প্রার্থীকে প্রাধান্য দিয়ে মনোনয়ন দিয়ে আসছেন প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো। তারই ধারাবাহিকতায় গত নবম ও দশম সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ আব্দুর রহমান বদিকে মনোনয়ন দেন ও তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

কিন্তু নানা কারণে আব্দুর রহমান বদি আলোচিত, সমালোচিত ও বিতর্কিত হয়ে পড়লে চলতি একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি পরিবর্তন হতে পারে এমন সম্ভাবনার কথা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। ফলে এই আসন হতে সর্বোচ্চ ২৭ জন প্রার্থী আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

উখিয়া-টেকনাফের আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থক ও ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এ আসনে জনপ্রিয়তায় যেই প্রার্থী আব্দুর রহমান বদির বিকল্প হতে পারেন তিনি হচ্ছেন আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কাণ্ডারি, সৎ ও ত্যাগী নেতা আলহাজ শফিক মিয়া। তবে তারা বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী যাকে মনোনয়ন দেবেন তার জন্য সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন।

জেলা ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পদ এইচ এম ইউনুচ বাঙ্গালী বলেন, একজন ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে শফিক মিয়া এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয়। নেত্রী যদি তাকে মনোনয়ন দেন তাহলে এ আসনে পুনরায় নৌকা জয়লাভ করবে তা অনেকটা নিশ্চিত।

মনোনয়নপ্রত্যাশী শফিক মিয়া জানান, তিনি দীর্ঘ ২৯ বছর নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান, সদস্য হিসেবে জনপ্রতিনিধিত্ব ও ১৯৮৬ সাল হতে ১৯৯১ পর্যন্ত পাঁচ বছর টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১৯৯২ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ২১ বছর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘ ২৬ বছর আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্বপালন করে গেছেন সততা, দৃঢ়তা ও সাহসের সঙ্গে। যার ধারাবাহিকতায় বর্তমানে জেলা পরিষদ সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। দলের প্রতি নিবেদিত ও জনপ্রিয়তা যাচাই করে যদি মনোনয়ন দেয়া হলে তিনি এ আসনে মনোনয়ন পাবেন বলে আশা করেন।

উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবরাং ইউপি চেয়ারম্যান নুর হোসেন জানান, দীর্ঘ ২৯ বছর জনপ্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বপালন করাই শফিক মিয়ার একটি ভোট ব্যাংক রয়েছে যা মনোনয়ন পেলে নির্বাচিত হতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। তবে নৌকা প্রতীক নিয়ে যেই নির্বাচন করুক যুবলীগ ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে বলে জানান তিনি।

সাধারণ ভোটারদের কেউ কেউ বলছে এবার শফিক মিয়ার নেতৃত্বেই ইয়াবার রাজ্য থেকে মুক্তি পাবে উখিয়া-টেকনাফবাসী। দীর্ঘদিন পর একজন যোগ্য ব্যক্তির কারণেই কক্সবাজার-৪ আসনের উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে আশার আলো দেখছে সর্বস্তরের জনগণ। জনতার বিশ্বাস প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসন থেকে আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কাণ্ডারি, সৎ ও ত্যাগী নেতা শফিক মিয়ার মতো একজন যোগ্য ব্যক্তিকে মনোনয়ন দিয়ে দেশের উন্নয়নে মানবতার কল্যাণে কাজ করার সুযোগ দিলে উন্নয়নে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

এছাড়াও তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিভিন্ন শিক্ষা সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত। ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত শফিক মিয়া। পারিবারিকভাবে তারা আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে জড়িত উল্লেখ করে বলেন তার পিতা টেকনাফ থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ছিলেন এবং মুক্তিযুদ্ধেও সময় পাক বাহিনী তার পৈতৃক বাড়ি আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছিল।

শাহপরীরদ্বীপ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ আহ্বায়ক মো. সাদেক জানান, তরুণ প্রজন্মের ভোটাররা ইয়াবার অভিশাপ থেকে মুক্তি চায়, সেক্ষেত্রে ক্লিন ইমেজের নেতা শফিক মিয়া তাদের পছন্দের প্রার্থী হতে পারেন।

এলাকার ভোটাররা মনে করেন আলহাজ শফিক মিয়াকে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেয়া হলে তিনি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে এই আসনটি উপহার দিতে পারবেন।

এ আসনে এমপি বদি ছাড়াও আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী অন্য প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, জেলা যুবলীগ সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশর, উখিয়া আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর করিব চৌধুরী, মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলমের ভাই হলদিয়া পালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আলমের নাম আলোচিত হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×