ফতুল্লায় সংঘর্ষে লাঠিচার্জ, নারী শ্রমিকের মৃত্যু

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

নারী শ্রমিকের মৃত্যুতে সহকর্মীদের আহাজারি
নারী শ্রমিকের মৃত্যুতে সহকর্মীদের আহাজারি। ছবি: যুগান্তর

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা বিসিক শিল্পনগরীর পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। পরপর কয়েকটি ঘটনায় শ্রমিকদের রণমূর্তি আতঙ্কিত করে তুলেছে গোটা নারায়ণগঞ্জকেই।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেও এখানে একটি পোশাক কারখানায় উৎপাদন মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিকরা। এ সময় আন্দোলনরত শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষ দেখে ভয়ে এক নারী মারা গেছেন। এছাড়াও আহত হয়েছেন পুলিশসহ অন্তত অর্ধশত। কারো হাত-পা আবার কারো মাথা ফেটেছে। তাৎক্ষণিক আহত কারো নামই পাওয়া যায়নি।

এসব কর্মকাণ্ডে বহিরাগত শ্রমিকনেতাদের ইন্ধন থাকে বলে দাবি করেন শ্রমিক নেতারা। তবে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় কঠোর ভূমিকায় রয়েছেন পুলিশ প্রশাসন। অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা যেন আর না ঘটে সেই প্রত্যাশা পোশাক কারখানার মালিক সংগঠনের নেতাদের।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বিসিকের ‘এন আর গার্মেন্টস’ নামে কারখানার শ্রমিকরা সরকার ঘোষিত মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ করে। এতে করে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ও মুক্তারপুর সড়কের তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। পরে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে রাস্তায় নেমে আসলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ সময় ভয়ে এন আর গার্মেন্টসের বুবলী বেগম (৪৫) নামে এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু হয়। তিনি নওগাঁ জেলার পাঁচচাটিয়া এলাকার সেলিম মিয়ার স্ত্রী। বুবলী ফতুল্লার ভোলাইল এলাকার রিপন মিয়ার বাড়িতে সহকর্মীদের সঙ্গে ভাড়া থাকেন।

মৃত্যু হওয়ার পরও শ্রমিকরা তাকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে ডাক্তার তাহমিনা নাজনীন বলেন, নিহত নারীর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। ভয় পেয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা গেছেন। তাছাড়া ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ নিয়ে গেছে স্বজনরা।

এদিকে বিসিক শিল্পনগরীতে বিক্ষোভরত শ্রমিকদের শান্ত করতে ছুটে যান এমপি শামীম ওসমান। ওই সময়ে শামীম ওসমান বলেন, শ্রমিকদের দাবি নিয়ে আলোচনা হবে। আলোচনার টেবিলে সমাধান হবে। কিন্তু রাস্তায় নেমে ভাঙচুর কেন। এর পেছনে কেউ উসকানি দিচ্ছে কী না কিংবা শ্রমিকরা উসকানির ফাঁদে পড়ছে কি না খতিয়ে দেখতে হবে। নির্বাচনের আগে এ ধরনের ঘটনা বড় ধরনের ষড়যন্ত্র মনে হচ্ছে।

শামীম ওসমান এসব ষড়যন্ত্রের ফাঁদে যেন শ্রমিকরা না পড়ে সেজন্য সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। শামীম ওসমানের আহ্বানে শ্রমিকরা শান্ত হন।

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি এমএ শাহীন বলেন, শ্রমিকরা কখনো আন্দোলনে যেতে চায় না। তারা তাদের ন্যায্য পাওনা পেলেই খুশি। যারা এগুলো করে তারা সাধারণ শ্রমিকদের সঙ্গে মিশে গিয়ে বহিরাগতরা করে।

বিকেএমইএর সাবেক সহসভাপতি ও বিসিক গার্মেন্ট মালিক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, পেছন থেকে কেউ ইন্ধন দিয়ে শিল্পাঞ্চল অশান্ত করে তুলছে। কেউ না কেউ এটার সঙ্গে জড়িত। ধারণা যেসব শ্রমিক নেতাদের বিসিকে প্রবেশ করা নিষেধ তারাই এখানে হামলা করেছে। আমরা এ ধরনের কর্মকাণ্ড দেখতে চাই না।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের বলেন, পরিস্থিত শান্ত রয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছে। নিহত শ্রমিকের লাশ উদ্ধারের চেষ্টা করা হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য কিন্তু নিহতের পরিবার ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করবে বলে দাবি করেন। বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×