যশোরে সরে দাঁড়ালেন ১৩ প্রার্থী, বাতিল ৩

  যশোর ব্যুরো ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

যশোরের ৬টি সংসদীয় আসনে ৫৩ জন বৈধ প্রার্থীর মধ্যে ১৩ জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বিএনপির ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাদের মনোনয়ন বাতিল হয়ে গেছে। চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় ৩৭ জন প্রার্থীর নাম রয়েছে।

যশোর জেলা রির্টার্নিং অফিসার মো. আবদুল আওয়াল জানান, দলীয় মনোনয়ন নিয়ে একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারে। তারা অনেকে বৈধও হয়েছেন। নিয়মানুযায়ী প্রত্যেক দলের একজন প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। দলের বাকী প্রার্থী স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হয়ে যাবে।

যশোর-১ (শার্শা) আসনে আবুল হাসান জহির (বিএনপি) মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থী রয়েছে ৪ জন। তারা হলেন শেখ আফিল উদ্দিন (আ.লীগ), মফিকুল হাসান তৃপ্তি (বিএনপি), মো. বক্তিয়ার রহমান (ইসলামী আন্দোলন) সাজেদুর রহমান ডাবলু (জাকের পার্টি)। যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) আসনে ৩ জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। তারা হলেন আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট এটিএম এনামুল হক (ন্যাপ-মোজাফফর), মোহাম্মদ ইসহক (বিএনপি)।

এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থী রয়েছে ৭জন। তারা হলেন- মেজর জেনারেল (অব.) মো. নাসির উদ্দিন (আ.লীগ), আবু সাঈদ মোহাম্মদ শাহাদাৎ হুসাইন (বিএনপি-জামায়াত), বিএম সেলিম রেজা (বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি), মো. আলাউদ্দিন (বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল) মো. আসাদুজ্জামান (ইসলামী আন্দোলন) এম আসাদুজ্জামান (গণফোরাম), ফিরোজ শাহ্ (জাতীয় পার্টি)।

যশোর-৩ (সদর) আসনে দুজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। তারা হলেন- বিএনপির অ্যাডভোকেট সৈয়দ এএইচ সাবেরুল হক সাবু ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের মো. রবিউল আলম। এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন কাজী নাবিল আহমেদ (আ.লীগ), অনিন্দ্য ইসলাম অমিত (বিএনপি), মো. জাহাঙ্গীর আলম (জাতীয় পার্টি), মনিরুজ্জামান মনির (জাকের পার্টি), সৈয়দ বিপ্লব আজাদ (জেএসডি)।

যশোর-৪ (বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলা ও বসুন্দিয়া ইউনিয়ন) আসনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করলেন ৪ জন। তারা হলেন মতিয়ার রহমান ফারাজী (বিএনপি), তানিয়া রহমান (বিএনপি), মো. আবদুস সালাম (জেএসডি), মো. ইকবাল কবির (বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি)। যদিও বিএনপির প্রার্থী সুকৃতি কুমার মণ্ডল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। প্রতীক বরাদ্দের সময় তার মনোনয়নপত্র স্বয়ংক্রিভাবে বাতিল হবে।

এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন রনজিত কুমার রায় (আওয়ামী লীগ), টিএস আইয়ুব (বিএনপি), মো. জহুরুল হক (জাতীয় পার্টি), নাজমুল হুদা (ইসলামী আন্দোলন), লে. কর্নেল (অব.) এম শাব্বির আহমেদ (বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি), নাজিম উদ্দিন আল আজাদ (বিকল্পধারা বাংলাদেশ), মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, (বাংলাদেশ পিপলস পার্টি), লিটন মোল্লা (জাকের পার্টি)।

যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন স্বতন্ত্র (জামায়াত) মো. এনামুল হক। বিএনপির দলীয় মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন শহীদ মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন। তিন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেনি। তবে প্রতীক বরাদ্দের সময় তার মনোনয়ন বাতিল হবে।

এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- স্বপন ভট্টাচার্য (আওয়ামী লীগ), মুহাম্মদ ওয়াককাস (বিএনপি-জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম), এমএ হালিম (জাতীয় পার্টি), ইবাদুল হক খালাসি (ইসলামী আন্দোলন), শহীদ মো. ইকবাল হোসেন (বিএনপি), কামরুল ইসলাম বারী (স্বতন্ত্র-আ.লীগ বিদ্রোহী) নিজাম উদ্দিন অমিত (জাগপা), রবিউল ইসলাম (জাকের পার্টি)।

যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে দুজন মনোনয়নপত্র জমা দেন। তারা হলেন- বিএনপির আবদুস সামাদ বিশ্বাস ও স্বতন্ত্র (জামায়াত) মোক্তার আলী। এই আসনে বিএনপির অমলেন্দু দাস মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। তার মনোনয়নপত্র স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হবে প্রতীক বরাদ্দের সময়।

এই আসনে চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- ইসমাত আরা সাদেক (আওয়ামী লীগ), আবুল হোসেন আজাদ (বিএনপি), আবু ইউসুফ বিশ্বাস (ইসলামী আন্দোলন), মো. মাহবুব আলম (জাতীয় পার্টি), মো. সাইদুজ্জামান (জাকের পার্টি)।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×