কুলাউড়ায় ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর প্রথম নির্বাচনী সভায় ছাত্রদলের হাতাহাতি

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

  কুলাউড়া প্রতিনিধি

কুলাউড়ায় ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর প্রথম নির্বাচনী সভায় ছাত্রদলের হাতাহাতি। ছবি: যুগান্তর

কুলাউড়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুরের প্রথম নির্বাচনী সভায় ছবি তোলাকে কেন্দ্র ছাত্রদলের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সোমবার বিকালে ডাকবাংলো মাঠে এ নির্বাচনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় স্টেজে বক্তব্য রাখছিলেন ঐক্যফ্রন্টের কুলাউড়া নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক সাবেক এমপি নওয়াব আলী আব্বাছ খান। তাৎক্ষণিক তিনি নেতাকর্মীদের শান্ত রাখতে দলীয় এক কর্মীকে দিয়ে কবিতা আবৃত্তি শুরু করেন। এরপর ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুর এসে বিষয়টি পরে দেখা হবে বলে নেতাকর্মীদের সান্ত্বনা দেন।

জানা যায়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুরের প্রথম জনসভায় স্টেজে উঠে ছবি তুলছিলেন স্থানীয় সাংবাদিক শাকির আহমদ। তিনি উপজেলা ছাত্রদলের ফয়েজ-গিয়াস গ্রুপের যুগ্ম আহ্বায়ক। এ সময় ছাত্রদলের অপর গ্রুপের রেজাউল আলম ভূঁইয়া খোকন এসে তাকে (শাকির) স্টেজ থেকে গলা ধাক্কা দিয়ে নামিয়ে দেন।

সঙ্গে সঙ্গেই উপজেলা ছাত্রদলের ফয়েজ-গিয়াস গ্রুপের নেতাকর্মীরা খোকনের দিকে তেড়ে আসেন। তখন দু’গ্রুপের মধ্যেই হাতাহাতি শুরু হয়। এ নিয়ে প্রায় ২০ মিনিট সভার কার্যক্রম স্থগিত ছিল। পরবর্তীতে বিষয়টি দেখে দেয়া হবে এমনটি বলে নেতাকর্মীদের শান্ত করেন সুলতান মো. মনসুর।  

এ বিষয়ে জানতে তাৎক্ষণিক উভয় গ্রুপের সভাপতি-সম্পাদকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা ছাত্রদলের ফয়েজ-গিয়াস গ্রুপের এক নেতা বলেন, খোকন যেটি করেছেন তা চরম অন্যায়। এর খেসারত তাকে দিতে হবে। বিষয়টি সুষ্ঠু সমাধান না হলে আমরাও এর শেষ দেখে নেব।

সভাশেষে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে একটি মিছিল কুলাউড়া শহর প্রদক্ষিণ করে উত্তরবাজারের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে প্রবেশ করে। মিছিলের অগ্রভাগে ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মীদের সরব উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। দীর্ঘদিন পর শহরের কোনো মিছিলে সক্রিয় দেখা যায় ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীদের।