লালমনিরহাটে একই মঞ্চে মুখোমুখি তিন প্রার্থী

  লালমনিরহাট প্রতিনিধি ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

লালমনিরহাটে একই মঞ্চে মুখোমুখি তিন প্রার্থী
লালমনিরহাটে একই মঞ্চে মুখোমুখি তিন প্রার্থী। ছবি: যুগান্তর

নির্বাচিত হলে 'দুর্নীতিমুক্ত কার্যকর ও জনকল্যাণমূলক শাসনব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করব' বলে অঙ্গীকার করেছেন লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনের প্রার্থীরা।

মঙ্গলবার বিকালে লালমনিরহাট শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সুজন (সুশাসনের জন্য নাগরিক) আয়োজিত অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই শীর্ষক ‘জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে’ এই অঙ্গীকার করেন বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা।

তবে ওই অনুষ্ঠানে একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনে লালমনিরহাট- ৩ আসন থেকে অংশগ্রহণকারী চার প্রার্থীর মধ্যে মহাজোট মনোনীত প্রার্থী জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের উপস্থিত হননি।

এতে জনগণের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত বিএনপি প্রার্থী ও সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু, বাসদের প্রার্থী আজমুল হক পাটোয়ারী পুতুল, ইসলামী শাসনতন্ত্রের প্রার্থী মোকছেদুল ইসলাম। তারা জনগণের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পাশাপাশি নানা প্রতিশ্রুতিও দেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লালমনিরহাট সুজন সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম কানু অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সুজনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার ও রংপুর বিভাগীয় সমন্বয়কারী রাজেস দে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সুজনের দেয়া নিবার্চনী প্রতিশ্রুতিসংবলিত কাগজে স্বাক্ষর করেন প্রার্থীরা। এসব লিখিত প্রতিশ্রুতির মধ্যে ছিল, নিবার্চিত হলে ‘দুর্নীতিমুক্ত কার্যকর ও জনকল্যাণমূলক শাসনব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করব, নির্বাচনে পরাজিত হলে গণরায় মাথা পেতে নেব, বিজয়ী প্রার্থীকে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে সহযোগিতা করব, সরকার বা বিরোধী দল যেখানে অবস্থান করি না কেন সব সময় সংসদকে কার্যকর রাখার জন্য সংসদ বর্জনের বিপক্ষে অবস্থান নেব'।

তবে এমন বিভিন্ন প্রতিশ্রুতিসংবলিত অঙ্গীকারপত্রে প্রার্থীরা স্বাক্ষর করলেও একাদশ সংসদ নির্বাচনে ‘অবাধ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ' এখন পর্যন্ত নেই বলে অভিযোগ তুলেন বিএনপি প্রার্থী আসাদুল হাবিব দুলু।

এদিকে প্রার্থীদের পাশাপাশি অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ভোটাররাও সেখানে সুজনের দেয়া শপথবাক্য পাঠ করেন। এতে ‘কোনো অর্থ কিংবা কোনো কিছুর ওপর অন্ধভক্ত হয়ে ভোট না দেয়ার পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধী, নারী নির্যাতনকারী, মাদক ব্যবসায়ী, চোরকারবারি, ঋণখেলাপি, বিলখেলাপি, ধর্ম ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যু, পরিবেশ ধ্বংসকারী, কালো টাকার মালিক, কোনো অসৎ, অযোগ্য ও গণবিরোধী ব্যক্তিকে ভোট দেব না, দেব না, দেব না বলে শপথ করেন ভোটাররা।

অনুষ্ঠানে প্রার্থীদের নিজ এলাকার উন্নয়নসহ তিস্তা ও ধরলা ভাঙন ঠেকাতে কার্যকর উদ্যোগ, বুড়িমারী স্থলবন্দর হতে আন্তনগর ট্রেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় লালমনিরহাটের পরিত্যক্ত বিমানবন্দর চালুসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন ভোটাররা।

এ সময় ভোটারদের মধ্যে ভাষাসৈনিক আব্দুল কাদের ভাসানী, অ্যাডভোকেট চিত্ত রঞ্জন রায়, অ্যাডভোকেট আঞ্জুমান আরা বেগম শাপলা, উপেন্দ্র নাথ দত্ত, পঙ্কজ কান্তি রায় ও আব্দুল্লাহ প্রার্থীদের কাছে তাদের এসব দাবি জানায়।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×