নরসিংদী-২: বিএনপি নেতা মঈন খানের পিএস মিল্টনকে পিটিয়ে জখম

প্রকাশ : ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

  নরসিংদী প্রতিনিধি

আহত বাহাউদ্দিন ভূঁইয়া মিল্টন। ছবি: যুগান্তর

নরসিংদী-২ পলাশ আসনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বিএনপির প্রার্থী ড. আবদুল মঈন খানের ব্যক্তিগত সহকারী বাহাউদ্দিন ভূঁইয়া মিল্টনকে কুপিয়ে জখম করেছে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

সোমবার দুপুরে জিনারদী ইউনিয়নের পারুলিয়া মোড়ে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভাস্কর দেবনাথের কার্যালয়ে আশ্রয় নিতে গেলে হামলার শিকার হন তিনি। রাতেই মিল্টনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান চিকিৎসকরা।

বিএনপিদলীয় নেতাকর্মীরা জানান, বিএনপি প্রার্থী ড. আবদুল মঈন খান উপজেলার পারুলিয়া মোড়ে প্রচার চালাচ্ছিলেন। এ সময় তার প্রচারে প্রায় ২০০-৩০০ দলীয় নেতাকর্মী যুক্ত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিশৃঙ্খলার আশঙ্কায় তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। 

এ ঘটনায় ড. আবদুল মঈন খান ও তার ব্যক্তিগত সহকারী মিল্টন নরসিংদী-২ পলাশ আসনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পলাশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভাস্কর দেবনাথের কার্যালয়ের দিকে যান। এ সময় সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের বাইরে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী লাঠিসোটা নিয়ে মিল্টনের ওপর হামলা চালায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে  প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে রাতেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। 

পলাশ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর সাইফুল হক যুগান্তরকে বলেন, বিএনপি প্রার্থীর প্রচারে পুলিশ বাধা দেয়। ওই সময় পুলিশ নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে। মঈন খান বিষয়টি সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দিতে গেলে, সেখানে যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এতে মঈন খানের ব্যক্তিগত সহকারী মিল্টনকে বেধড়ক পিটুনি দেয় তারা। হামলায় তার নাক-মুখ ও  মাথা ফেটে যায়।

এ ব্যাপারে পলাশ থানার ওসি মকবুল হোসেন প্রচারে বাধা দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিএনপির প্রার্থী ড. আবদুল মঈন খান কয়েক শতাধিক লোক নিয়ে শোডাউন করার সময় ব্যাপক যানজট ও বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে তাকে বিষয়টি বুঝিয়ে বললে, তিনি নেতাকর্মীদের সরিয়ে দিয়ে চলে যান। পরে ইউএনওর কার্যালয়ে পিএসের ওপর কে বা কারা হামলা চালিয়েছে বলে শুনেছি।