বিএনপির নেতাকর্মীদের এলাকা ছেড়ে দেওয়ার হুমকি আ'লীগের

প্রকাশ : ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

  বাগেরহাট প্রতিনিধি

বিএনপির নেতাকর্মীদের এলাকা ছেড়ে দেওয়ার হুমকি আ'লীগের

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের রাতে বিএনপির নেতাকর্মীদের এলাকা ছেড়ে যেতে হুমকি দিচ্ছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এমনটি দাবি করেছেন বাগেহরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি ও বাগেরহাট ২ আসনের বিএনপি প্রার্থী। 

শনিবার তিনি অভিযোগ করে বলেন,আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাদের  দলীয় নেতাকর্মীদের মারপিট করে এলাকাছাড়া করছে। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে নৌকায় ভোট না দিলে ভোককেন্দ্রে যেতে নিষেধ করছে।  তিনি বলেন, জেলা বিএনপিসহ আমার নেতাকর্মীদের রাতের মধ্যে এলাকা ছেড়ে দিতে বলছে। যাদেরকে এজেন্ট হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে  আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হুমকির ভয়ে তারা বাড়িতেই থাকতে পারছেন না।  এরপরও আমরা নিরুপায় হয়ে গত কয়েক দিন ধরে ভোটাদের ভোটকেন্দ্র যেতে মোবাইলে আহ্বান জানিয়েছি। 

নির্বাচন বিষয়ে বাগেরহাট ৪ আসনের বিএনপির প্রার্থী জেলা জামায়াত নেতা আব্দুল আলীম জানান আমি গত কয়েক দিন ধরে অনেকটা অবরুদ্ধ হয়ে আছি। দলীয় নেতাকর্মীদের এলাকা ছেড়ে যেতে হুমকি অব্যাহত রয়েছে। আমরা অগণিত নেতাকর্মীরা প্রাণভয়ে বাড়িছাড়া হয়ে রয়েছে। এখন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকায় ভোট না দিলে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে। 

এদিকে নির্বাচনের একদিন আগে বাগেরহাট শহরে আওয়ামী লীগের একটি দলীয় কার্যালয় আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বিএনপি-জামায়াত নেতারা এমন অভিযোগ আওয়ামী লীগের।  শনিবার ভোরে বাগেরহাট পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের দলীয় কার্যালয়টি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়। বাগেরহাট পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুক্ত বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত দলের নেতাকর্মীরা কার্যালয়ে নির্বাচনী কার্যক্রম শেষ করে যে যার মতো বাড়িতে চলে যাই। রাত সাড়ে ৩টার দিকে আমাদের দলীয় কার্যালয়ে আগুন লাগার খবর পেয়ে ছুটে আসি।  আগুনে একটি টেলিভিশন, কাঠ ও প্লাস্টিকের চেয়ার এবং মূল্যবান কাগজপত্র পুড়ে গেছে। নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে অশান্ত করতে এবং ভোটারদের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করতে জামায়াত-বিএনপি এই আগুন দিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

এদিকে বাগেরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি ও ধানের শীষের প্রার্থী এমএ সালাম আওয়ামী লীগের অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন। গত কয়েক দিন ধরে আমিসহ নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের অব্যাহত হামলার কারণে খুলনা গিয়ে আবস্থান করছি। আমাদের কোনো নেতাকর্মীকে তারা এলাকায় থাকতে পর্যন্ত দিচ্ছে না।  তারা নিজেরাই আগুন লাগিয়ে উল্টো আমাদের নেতাকর্মীদের দোষ দিচ্ছে।

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) সরদার মাসুদ বলেন, রাত পৌনে ৪টার দিকে আমরা আগুন লাগার খবর পেয়ে সেখানে যাই। ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট প্রায় পৌনে ১ ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। 

বাগেরহাট মডেল থানার ওসি মাহাতাব উদ্দিন বলেন, আগুনে পুড়ে যাওয়া আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয় পুলিশ পরিদর্শন করেছে। দলীয় কার্যালয়ে কারা আগুন দিয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।