‘আর নয় সন্ত্রাস-শুধু ভালোবাসা বিনিময়’
jugantor
‘আর নয় সন্ত্রাস-শুধু ভালোবাসা বিনিময়’

  গোপালপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  

০১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৯:০২:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনির

জাতীয় সংসদ নির্বাচন মানেই সন্ত্রাস। বাড়িঘর ভাঙচুর। হামলা, মামলা, লুট ও খুনখারাবি। ১৯৭৯ সাল থেকে চলে আসছে এ রেওয়াজ। টাঙ্গাইল-২ আসনে গোপালপুর উপজেলায় নির্বাচন পূর্ব ও নির্বাচনোত্তর এ সহিংস ঘটনা নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন সব সময় থাকেন উৎকণ্ঠার মধ্যে।

পৌরসভার আভঙ্গী মহল্লার ৯৯ ভাগ বাসিন্দা বিএনপির কর্মী ও সমর্থক। মহল্লার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা রাজনৈতিক কর্মসূচি যেমন হরতাল, অবরোধ ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। মহল্লাটি বস্তির মতো ঘিঞ্জি হওয়ায় সন্ত্রাসীরা এটিকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করে।

দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে এ মহল্লার বিএনপির কর্মীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কর্মীদের বহুবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ও প্রাণহানি ঘটেছে। সর্বশেষে ২০১৩ সালে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন এ মহল্লার বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের হাতে নিহত হন।

এসব খুনোখুনি বন্ধ এবং মহল্লাবাসীকে সন্ত্রাস ও সংঘর্ষের পথ থেকে সরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনির। তিনি মঙ্গলবার ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে ওই মহল্লায় প্রবেশ করেন।

নবনির্বাচিত এমপি মহল্লার প্রতিটি বাড়িঘর, দোকানপাটে ফুল নিয়ে হাজির হন। ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর সময় তিনি সেখানকার বিএনপি কর্মী-সমর্থকদের বলেন, আর নয় সংঘর্ষ, বোমাবাজি ও রক্তক্ষরণ। আজ থেকে ফুল বিনিময় হবে। ভালোবাসা বিনিময় হবে।

তিনি বলেন, বছরের প্রথম দিন থেকেই শিশুরা অস্ত্র হাতে নয়, বই হাতে নিয়ে স্কুলে যাবে। মা-বোনরা দা-কোদাল নিয়ে রাস্তায় মারামারি করতে বেরোবে না। তারা শান্তিপূর্ণভাবে ঘর সংসার সামলাবে।

এ সময়ে মহল্লার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা তার হাত থেকে ফুল নিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন।

নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনিরের সঙ্গে আভঙ্গী মহল্লায় যান পৌর মেয়র রকিবুল হক ছানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলামসহ দলীয় নেতাকর্মী ও মিডিয়া কর্মীরা।

‘আর নয় সন্ত্রাস-শুধু ভালোবাসা বিনিময়’

 গোপালপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি 
০১ জানুয়ারি ২০১৯, ০৭:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনির
ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনির

জাতীয় সংসদ নির্বাচন মানেই সন্ত্রাস। বাড়িঘর ভাঙচুর। হামলা, মামলা, লুট ও খুনখারাবি। ১৯৭৯ সাল থেকে চলে আসছে এ রেওয়াজ। টাঙ্গাইল-২ আসনে গোপালপুর উপজেলায় নির্বাচন পূর্ব ও নির্বাচনোত্তর এ সহিংস ঘটনা নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন সব সময় থাকেন উৎকণ্ঠার মধ্যে।  

পৌরসভার আভঙ্গী মহল্লার ৯৯ ভাগ বাসিন্দা বিএনপির কর্মী ও সমর্থক। মহল্লার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা রাজনৈতিক কর্মসূচি যেমন হরতাল, অবরোধ ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। মহল্লাটি বস্তির মতো ঘিঞ্জি হওয়ায় সন্ত্রাসীরা এটিকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করে।

দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে এ মহল্লার বিএনপির কর্মীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কর্মীদের বহুবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ও প্রাণহানি ঘটেছে। সর্বশেষে ২০১৩ সালে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন এ মহল্লার বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের হাতে নিহত হন।

এসব খুনোখুনি বন্ধ এবং মহল্লাবাসীকে সন্ত্রাস ও সংঘর্ষের পথ থেকে সরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনির। তিনি মঙ্গলবার ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে ওই মহল্লায় প্রবেশ করেন।

নবনির্বাচিত এমপি মহল্লার প্রতিটি বাড়িঘর, দোকানপাটে ফুল নিয়ে হাজির হন। ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর সময় তিনি সেখানকার বিএনপি কর্মী-সমর্থকদের বলেন, আর নয় সংঘর্ষ, বোমাবাজি ও রক্তক্ষরণ। আজ থেকে ফুল বিনিময় হবে। ভালোবাসা বিনিময় হবে।

তিনি বলেন, বছরের প্রথম দিন থেকেই শিশুরা অস্ত্র হাতে নয়, বই হাতে নিয়ে স্কুলে যাবে। মা-বোনরা দা-কোদাল নিয়ে রাস্তায় মারামারি করতে বেরোবে না। তারা শান্তিপূর্ণভাবে ঘর সংসার সামলাবে।

এ সময়ে মহল্লার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা তার হাত থেকে ফুল নিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন।

নবনির্বাচিত এমপি ছোট মনিরের সঙ্গে আভঙ্গী মহল্লায় যান পৌর মেয়র রকিবুল হক ছানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলামসহ দলীয় নেতাকর্মী ও মিডিয়া কর্মীরা।