বেঁচে আছেন কাদের খান, টুইটে নিশ্চিত করলেন ছেলে

  যুগান্তর ডেস্ক ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

বলিউড বর্ষীয়ান অভিনেতা কাদের খান
বলিউড বর্ষীয়ান অভিনেতা কাদের খান

বলিউড বর্ষীয়ান অভিনেতা কাদের খান বেঁচে আছেন। তিনি মারা গেছেন খবরটি আদৌ সত্য নয়।

এমনটিই জানিয়েছেন কাদের খানের ছেলে সরফরাজ খান।

ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তিনি।

এ ছাড়া কানাডা থেকে টুইট করেছেন সরফরাজ।

টুইটে তিনি লিখেছেন-'এ খবরটি সম্পূর্ণ মিথ্যে৷ একেবারেই রটনা৷ আমার বাবা হাসপাতালে৷'

রোববার গভীর রাতে হঠাৎ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে যায় যে কাদের খান না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন।

হাসপাতালেই মৃত্যু হয়েছে ৮১ বছরের ওই অভিনেতার। সে গুজবের পালে হাওয়া দেয় কিছু ভারতীয় গণমাধ্যমও।

তাকে শ্রদ্ধা জানানোর হিড়িক পড়ে যায় নেটিজেনদের মধ্যে।

কানাডা প্রবাসী ছেলে সরফরাজ ও তার স্ত্রী শশীতার সঙ্গে বাধ্যক্যের শেষ সময়টা সেখানেই কাটাচ্ছেন প্রবীণ বলি অভিনেতা কাদের খান।

নিউমনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সেখানে গত কয়েক দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি আছেন তিনি।

কাদের খানের মৃত্যুকে নিছকই গুজব বলে দাবি করে সরফরাজ বলেন, বাবার শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা আবারও বেড়েছে। তাই তাকে ভেন্টিলেশনে দেয়া হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসকদের একটি দল তার শারীরিক পরিস্থিতির ওপর সার্বক্ষণিক নজর রাখছেন।

এখন পর্যন্ত তার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন সরফরাজ।

এর আগের খবর ছিল, সুপ্রানিউক্লিয়ার পালসিতে আক্রান্ত কাদের খান৷ এই রোগে মানুষের স্মৃতিভ্রংশ হয়, হাঁটতে পারেন না এবং শরীরে ভারসাম্য থাকে না৷

সে প্রসঙ্গে সরফরাজ জানান, বাবার হাঁটুতে অস্ত্রোপচার হয়েছে। তবে তিনি ভগ্নস্বাস্থ্যের কারণে হাঁটতে পারছেন না।

বুকের সংক্রামণটা সেরে উঠলেই কাদের খান আবার হাঁটতে শুরু করবেন ও কথা বলা শুরু করবেন বলে আশা প্রকাশ করছেন সরফরাজ।

প্রসঙ্গত আফগানিস্তানের কাবুলে জন্মগ্রহণ করেন কাদের খান৷ ১৯৭৩ সালে রাজেশ খান্নার সঙ্গে 'দাগ' ছবিতে বলিউডে ডেবিউ হয় তার৷ ৩০০ বলিউড ছবিতে কাজ করেছেন তিনি৷ এ ছাড়া ২৫০টি ছবির সংলাপ লিখেছেন৷

কাদের খানের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে শুক্রবার বিগবি অমিতাভ বচ্চন টুইট করেছেন। তিনি লেখেন-'কাদের খান একজন অসাধারণ প্রতিভা৷ আমার প্রিয় বন্ধু। হাসপাতালে রোগশয্যায়৷ ওকে স্টেজে পারফর্ম করতে দেখেছি। দেখেছি সিনেমার অনবদ্য স্ক্রিপ্ট লেখার দক্ষতা৷ অনেকেই জানেন না উনি একসময় অঙ্কের শিক্ষক ছিলেন৷'

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×