বাংলাদেশের জামাই হওয়ার অনুভূতি ব্যক্ত করে যা বললেন সৃজিত
jugantor
বাংলাদেশের জামাই হওয়ার অনুভূতি ব্যক্ত করে যা বললেন সৃজিত

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:৫৬:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের মডেল-অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও ভারতের পরিচালক সৃজিত মুখার্জি জীবনের নতুন ইনিংস শুরু করেছেন। 

গত শুক্রবার বিয়ে সেরেছেন তারা।  ভারতের দক্ষিণ কলকাতায় সৃজিতের ফ্ল্যাটে নিকটাত্মীয়, ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে এই বিয়ের আয়োজন করা হয়। 

এদিন মিথিলা এসেছিলেন বাংলার চিরায়ত বধূ সাজে। তার পরনে ছিল ঐতিহ্যবাহী জামদানি, কপালে ছিল টিপ। আর সৃজিত কালো পাঞ্জাবির সঙ্গে লাল জহরকোর্ট পরেছিলেন। 

অনুষ্ঠানস্থলে হাজির হয়েছিল মিথিলার মেয়ে আইরা। এ ছাড়া ছিলেন দুই পরিবারের উল্লেখযোগ্য সদস্যরা।

বিয়ের পর সাংবাদিকরা সৃজিতকে প্রশ্ন করেন-বাংলাদেশের জামাই হতে পেরে কেমন লাগছে?

জবাবে সৃজিত বলেন, নাড়ির সম্পর্ক তো আগেই ছিল, কেননা আমার বাড়ি বিক্রমপুর ও ময়মনসিংহে—বাবা ও মায়ের দিক দিয়ে। এখন নারীর সম্পর্কটা হয়ে গেল। ভালো লাগছে খুব।

‘সত্যি কথা বলতে, বাংলাদেশে এত বন্ধু আছে, আমি যখনই ওখানে যাই, আপন করে নেন মানুষ। সো ওটা যে একটা আলাদা দেশ, এমনটি আমাকে কখনোই স্ট্রাইক করেনি। তাই বাংলাদেশ আলাদা দেশ, ওরকম কিছু কখনো মনে হয়নি।’

প্রসঙ্গত সংগীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে।

সিঙ্গেল জীবনের এক পর্যায়ে ২০১৮ সালের শেষ দিক থেকে মিথিলার আলাপ হয় কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিত মুখার্জীর সঙ্গে। 

চলতি বছর ১৭ মার্চ কলকাতার সল্টলেকের অভিজাত হোটেলে জন্মদিনের এক পার্টিতে তাদের দুজনকে প্রথম প্রকাশ্যে দেখা যায়।

অবশ্য এরমধ্যে নির্মাতা ও পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমির সঙ্গে অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়।

এরপর গত নভেম্বরে সৃজিত-মিথিলার প্রেমের গুঞ্জনের খবর প্রকাশ করে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি বিয়ে করছেন তারা। কিন্তু তার আগেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেন সৃজিত-মিথিলা।  

বাংলাদেশের জামাই হওয়ার অনুভূতি ব্যক্ত করে যা বললেন সৃজিত

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:৫৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের মডেল-অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও ভারতের পরিচালক সৃজিত মুখার্জি জীবনের নতুন ইনিংস শুরু করেছেন।

গত শুক্রবার বিয়ে সেরেছেন তারা। ভারতের দক্ষিণ কলকাতায় সৃজিতের ফ্ল্যাটে নিকটাত্মীয়, ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে এই বিয়ের আয়োজন করা হয়।

এদিন মিথিলা এসেছিলেন বাংলার চিরায়ত বধূ সাজে। তার পরনে ছিল ঐতিহ্যবাহী জামদানি, কপালে ছিল টিপ। আর সৃজিত কালো পাঞ্জাবির সঙ্গে লাল জহরকোর্ট পরেছিলেন।

অনুষ্ঠানস্থলে হাজির হয়েছিল মিথিলার মেয়ে আইরা। এ ছাড়া ছিলেন দুই পরিবারের উল্লেখযোগ্য সদস্যরা।

বিয়ের পর সাংবাদিকরা সৃজিতকে প্রশ্ন করেন-বাংলাদেশের জামাই হতে পেরে কেমন লাগছে?

জবাবে সৃজিত বলেন, নাড়ির সম্পর্ক তো আগেই ছিল, কেননা আমার বাড়ি বিক্রমপুর ও ময়মনসিংহে—বাবা ও মায়ের দিক দিয়ে। এখন নারীর সম্পর্কটা হয়ে গেল। ভালো লাগছে খুব।

‘সত্যি কথা বলতে, বাংলাদেশে এত বন্ধু আছে, আমি যখনই ওখানে যাই, আপন করে নেন মানুষ। সো ওটা যে একটা আলাদা দেশ, এমনটি আমাকে কখনোই স্ট্রাইক করেনি। তাই বাংলাদেশ আলাদা দেশ, ওরকম কিছু কখনো মনে হয়নি।’

প্রসঙ্গত সংগীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে।

সিঙ্গেল জীবনের এক পর্যায়ে ২০১৮ সালের শেষ দিক থেকে মিথিলার আলাপ হয় কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিত মুখার্জীর সঙ্গে।

চলতি বছর ১৭ মার্চ কলকাতার সল্টলেকের অভিজাত হোটেলে জন্মদিনের এক পার্টিতে তাদের দুজনকে প্রথম প্রকাশ্যে দেখা যায়।

অবশ্য এরমধ্যে নির্মাতা ও পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমির সঙ্গে অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়।

এরপর গত নভেম্বরে সৃজিত-মিথিলার প্রেমের গুঞ্জনের খবর প্রকাশ করে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি বিয়ে করছেন তারা। কিন্তু তার আগেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেন সৃজিত-মিথিলা।