অবশেষে ভারতের পাসপোর্ট নিচ্ছেন অক্ষয়
jugantor
অবশেষে ভারতের পাসপোর্ট নিচ্ছেন অক্ষয়

  বিনোদন ডেস্ক  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩২:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমারের নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তিনি মূলত কানাডার নাগরিক। এ নিয়ে তার ব্যাপক সমালোচনা আছে। 

ভারতের নাগরিকত্ব না থাকায় গত নির্বাচনে ভোট দিতে পারেননি। তখন সমালোচকরা বলেছিলেন, অক্ষয়ের কোনো দেশপ্রেম নেই। তিনি যেহেতু ভারতীয় নাগরিকই নন, তাই ভারতের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করার সুযোগ নেই তার।  

নাগরিকত্ব নিয়ে বরাবরই ট্রলের শিকার হচ্ছেন অক্ষয়। এ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারায় নিন্দুকের সমালোচনা শুরু হলে শেষমেষ এক বিবৃতিতে কানাডার নাগরিকত্ব থাকার কথা স্বীকার করেন অক্ষয়।

সমালোচনা থেকে বাঁচতে অবশেষে ভারতীয় পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছেন অক্ষয়। শিগগিরই এটি তার হাতে আসছে এই নাগরিকত্ব সনদ। 

শুক্রবার দিল্লিতে হিন্দুস্তান টাইমস লিডারশিপ সামিটের ১৭তম আসরে সুখবরটি দেন অভিনেতা নিজেই। এ সময় মঞ্চে তার পাশে ছিলেন কারিনা কাপুর খান। তাদের নতুন ছবি ‘গুড নিউজ’ মুক্তির অপেক্ষায় আছে।

কানাডার নাগরিকত্বকে ঘিরে বিতর্ক প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অক্ষয় বলেন, ‘অনেক আগের কথা। আমার ১৪টি ছবি ফ্লপ হয়েছিল। এ কারণে তখন ভেবেছিলাম অন্য কিছু হয়তো করতে হবে। কানাডায় আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের একজন থাকে। তাকে ধারাবাহিক ছবি ফ্লপের কথা জানাই। সে আমাকে বলেছিল, ‘অক্ষয় তুই কানাডায় চলে আয়। আমরা মিলেমিশে কাজ করব।’ সে ভারতীয় বংশোদ্ভূত, তবে কানাডাপ্রবাসী। তাই কানাডায় কাজ করতে কানাডিয়ান পাসপোর্ট পাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করি। বলিউডে আমার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে কাজটা করেছি। যাই হোক, ভাগ্য ভালো ১৫তম ছবিটি হিট হয়েছে। এর পর আর পেছনে তাকাতে হয়নি। যদিও কখনও ভাবিনি পাসপোর্ট বদলাব। তবে এখন ভারতীয় পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছি। কারণ এ বিষয় নিয়ে লোকে পেছনে লেগে থাকে বলে আমার দুঃখ হয়। 

নিন্দুকের সমালোচনায় ব্যথিত অক্ষয় বলেন, নিজেকে হিন্দুস্তানি বোঝাতে আমাকে ছোট একটি বই দেখাতে হবে, এটি অনেক কষ্টের। তবে এ জন্য কাউকে আর কটুকথা বলার সুযোগ দিতে চাই না। তাই ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেছি। আশা করছি শিগগিরই পাসপোর্ট পেয়ে যাব।

অবশেষে ভারতের পাসপোর্ট নিচ্ছেন অক্ষয়

 বিনোদন ডেস্ক 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমারের নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তিনি মূলত কানাডার নাগরিক। এ নিয়ে তার ব্যাপক সমালোচনা আছে।

ভারতের নাগরিকত্ব না থাকায় গত নির্বাচনে ভোট দিতে পারেননি। তখন সমালোচকরা বলেছিলেন, অক্ষয়ের কোনো দেশপ্রেম নেই। তিনি যেহেতু ভারতীয় নাগরিকই নন, তাই ভারতের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করার সুযোগ নেই তার।

নাগরিকত্ব নিয়ে বরাবরই ট্রলের শিকার হচ্ছেন অক্ষয়। এ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারায় নিন্দুকের সমালোচনা শুরু হলে শেষমেষ এক বিবৃতিতে কানাডার নাগরিকত্ব থাকার কথা স্বীকার করেন অক্ষয়।

সমালোচনা থেকে বাঁচতে অবশেষে ভারতীয় পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছেন অক্ষয়। শিগগিরই এটি তার হাতে আসছে এই নাগরিকত্ব সনদ।

শুক্রবার দিল্লিতে হিন্দুস্তান টাইমস লিডারশিপ সামিটের ১৭তম আসরে সুখবরটি দেন অভিনেতা নিজেই। এ সময় মঞ্চে তার পাশে ছিলেন কারিনা কাপুর খান। তাদের নতুন ছবি ‘গুড নিউজ’ মুক্তির অপেক্ষায় আছে।

কানাডার নাগরিকত্বকে ঘিরে বিতর্ক প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অক্ষয় বলেন, ‘অনেক আগের কথা। আমার ১৪টি ছবি ফ্লপ হয়েছিল। এ কারণে তখন ভেবেছিলাম অন্য কিছু হয়তো করতে হবে। কানাডায় আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের একজন থাকে। তাকে ধারাবাহিক ছবি ফ্লপের কথা জানাই। সে আমাকে বলেছিল, ‘অক্ষয় তুই কানাডায় চলে আয়। আমরা মিলেমিশে কাজ করব।’ সে ভারতীয় বংশোদ্ভূত, তবে কানাডাপ্রবাসী। তাই কানাডায় কাজ করতে কানাডিয়ান পাসপোর্ট পাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করি। বলিউডে আমার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে কাজটা করেছি। যাই হোক, ভাগ্য ভালো ১৫তম ছবিটি হিট হয়েছে। এর পর আর পেছনে তাকাতে হয়নি। যদিও কখনও ভাবিনি পাসপোর্ট বদলাব। তবে এখন ভারতীয় পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছি। কারণ এ বিষয় নিয়ে লোকে পেছনে লেগে থাকে বলে আমার দুঃখ হয়।

নিন্দুকের সমালোচনায় ব্যথিত অক্ষয় বলেন, নিজেকে হিন্দুস্তানি বোঝাতে আমাকে ছোট একটি বই দেখাতে হবে, এটি অনেক কষ্টের। তবে এ জন্য কাউকে আর কটুকথা বলার সুযোগ দিতে চাই না। তাই ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেছি। আশা করছি শিগগিরই পাসপোর্ট পেয়ে যাব।