‘সুশান্তকে খুন করেছে মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম’

  অনলাইন ডেস্ক ১১ জুলাই ২০২০, ১৬:০৪:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

হতাশাগ্রস্ত হয়ে গত মাসে আত্মহত্যা করেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। তার মৃত্যুকে ঘিরে এখনও চলছে নানা ধরনের বিশ্লেষণ।

এরই মধ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আনলেন ভারতের সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা এন কে সুদ। তার দাবি, সুশান্তের আত্মহত্যার ঘটনার সঙ্গে আন্ডারওয়ার্ল্ডের সম্পর্ক রয়েছে।

ইন্ডিয়ান সিকিউরিটি রিসার্চ গ্রুপ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিওবার্তায় তিনি বলেন, সুশান্তের অপমৃত্যু আত্মহত্যা নয়, হত্যা; যার সঙ্গে দাউদ ইব্রাহিমের যোগসূত্র রয়েছে।

ওই ভিডিওবার্তা থেকে খবরটি প্রকাশ করেছে ইন্ডিয়ান টাইমস, এবিপি লাইভসহ বেশ কয়েকটি ভারতীয় গণমাধ্যম।

সুদের দাবি, ঘটনাটি নিখুঁতভাবে ছক কষে ঘটানো হয়েছে। ডন দাউদ ইব্রাহিম এখন মুম্বাইয়ে না থাকলেও এখনও তার প্রভাব আছে বলিউডে। পেশীবল, অর্থ ও উচ্চপদে আসীনদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের মাধ্যমে দাউদ এখনও মুম্বাইয়ের অপরাধজগৎকে নিয়ন্ত্রণ করেন।

সাবেক এই গোয়েন্দা কর্মকর্তার মনে করেন, দাউদের কোনো প্রতিনিধির হাতে সুশান্তের খুন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এমনিতে গত কয়েক মাসে সুশান্তকে হুমকি দেয়া হচ্ছিল। এ জন্য তিনি প্রায় ৫০ বার সিমকার্ড বদলেছিলেন। কেউ তাকে খুন করে ফেলতে পারে, এ আশঙ্কায় অভিনেতা গাড়িতে ঘুমাতেন।

সুদ আরও বলেন, পেশাদারেরা সুশান্তকে খুন করেছে। তার যুক্তি, অভিনেতার মৃত্যুর আগের দিন সিসিটিভি ক্যামেরা বন্ধ করে দেয়া থেকে শুরু করে, ডুপ্লিকেট চাবি হারিয়ে যাওয়ার মতো অনেক তথ্যপ্রমাণ রয়েছে, তা দেখিয়ে দেয়, কেউ অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় সুশান্তের খুনের ছক কষেছে।

গত ১৪ জুন বান্দ্রার কার্টার রোডের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের ঝুলন্ত দেহ। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা কথা বলা হলেও সুশান্তের পরিবারের অভিযোগ, তাদের সন্তানকে সুপরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত