সুশান্তের ১৫ কোটি রুপি হাতিয়ে নিয়েছেন রিয়া, জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি

  বিনোদন ডেস্ক ০৭ আগস্ট ২০২০, ১৫:৪৪:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

রিয়া চক্রবর্তী

গত ২৮ জুলাই ভারতের বিহারের পাটনার রাজেন্দ্রনগর থানায় সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা, বাড়ির জিনিস চুরি, চুক্তিভঙ্গ এবং প্রতারণা অভিযোগে মামলা দায়ের করেন অভিনেতার বাবা কেকে সিং।

আর মামলা করার পর থেকেই গা ঢাকা দেন রিয়া। সেদিন থেকে রিয়া ‘নিরুদ্দেশ’হয়ে গেছেন বলে জানিয়েছে বিহার পুলিশ।

যে কারণে রিয়াকে সপ্তাহ খানেক ধরে হন্যে হয়ে খুঁজছিল বিহার পুলিশ। অবশেষে মুম্বাইয়ের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) অফিসে এসে হাজির হলেন ‘পলাতক’ বাঙালি অভিনেত্রী রিয়া।

সুশান্তের মৃত্যুরহস্যের পাশাপাশি সংস্থাটির করা আর্থিক দুর্নীতির মামলায় রিয়াকে ইডির অফিসে প্রকাশ হতে হলো।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, ছেলের অ্যাকাউন্ট থেকে রিয়া ১৫ কোটি রুপি হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ সুশান্তের বাবা কে কে সিংয়ের। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছে মুম্বাইয়ের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

তবে সংস্থাটি রিয়াকে তলব করলে প্রথমে সাড়া দেননি রিয়া। জিজ্ঞাসাবাদের প্রক্রিয়া পিছিয়ে দেয়ার আবেদন করেছিলেন।

সেই আবেদন খারিজ করে দিয়ে ইডি তার বিরুদ্ধে সমন জারি হয়। আর সে খবর পেয়েই শুক্রবার সকালে ইডির কার্যালয়ে হাজির হন রিয়া।

হাজির হয়ে বয়ান রেকর্ড করতে সাড়া না দেয়ায় বিহার পুলিশের ডিজি পাণ্ডে দাবি করেছিলেন, গ্রেফতারের ভয়েই হাজির হচ্ছেন না রিয়া।

এদিকে সুশান্ত মৃত্যুরহস্যে নতুন এফআইআর দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে ভারতের কেন্দ্ৰীয় অনুসন্ধান সংস্থা (সিবিআই)।

এফআইআরে সুশান্তের প্রেমিকা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, চুরি, প্রতারণা, জোর করে আটকে রাখা ও ভয় দেখানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

রিয়া ছাড়াও অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে আরও চার জনের নামে। তারা হলেন, রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী, শ্রুতি মোদী, স্যামুয়েল মিরান্দা ও ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী।

সেই তদন্তে জানা গেছে, সুশান্তর মৃত্যুর পর তার ই-মেইল ব্যবহার করেছেন রিয়া। সুশান্তের সমস্ত তথ্য হাতিয়ে নিয়ে মুছে ফেলেন বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ই-মেইল।সুশান্তর ব্যাংকের গুরুত্বপূর্ণ কিছু নথিও ডিলিট করে দেন রিয়া। এরপর পাসওয়ার্ড বদলে দেন তিনি।

সিবিআইয়ের তদন্তে এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত