ভাইরাল সেই পার্টির ভিডিও নিয়ে যা বললেন করণ জোহর
jugantor
ভাইরাল সেই পার্টির ভিডিও নিয়ে যা বললেন করণ জোহর

  বিনোদন ডেস্ক  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:৩৪:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সুশান্ত সিং রাতপুজের মৃত্যুরহস্যের মামলায় উঠে এসেছে বলিউডের মাদক কেলেঙ্কারির বিষয়টি।

সে কেলেঙ্কারিতে দীপিকা পাড়ুকোন, শ্রদ্ধা কাপূর, সারা আলি খান, রাকুল প্রীতের মতো জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের নাম এসেছে।

এরইমধ্যে ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে বলি সেলিব্রেটিদের একটি পার্টির ভিডিও।

যেখানে দেখা গেছে, রণবীর সিং, দীপিকা পাড়ুকোন, শহীদ কাপুর, ভিকি কৌশল, বরুণ ধাওয়ানসহ বলিউডের প্রথম সারির অজস্র অভিনেতা-অভিনেত্রী নেশায় চুর হয়ে আছেন। সবার চোখে-মুখে মাদকের স্পষ্ট প্রভাব দেখা গেছে। ভিডিওতে দেখা গেছে, ভিকি কৌশলের সামনে রাখা টেবিলে পাউডারের মতো দেখতে মাদক দ্রব্য।

এই পার্টিটি বলিউডের জনপ্রিয় পরিচালক করণ জোহরের বাড়িতে করা হয়েছিল বলে দাবি অনেকের।

এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন করণ ও তার ধর্ম প্রোডাকশন। ভারতের গণমাধ্যমেও করণকে জড়িয়ে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সম্প্রতি মাদক মামলায় গ্রেফতার হওয়া ক্ষিতিজ প্রাসাদ ও অনুভব নামে দুই ব্যক্তিকে করণ জোহরের কর্মচারী হিসেবে পরিচয় দেয়া হয়েছে ভারতের গণমাধ্যমে।

অবশেষে ওই পার্টি ও বলিউডে মাদক কেলেঙ্কারিতে নিজের নাম জড়ানো নিয়ে মুখ খুললেন করণ জোহর।

টুইটারে এ বিষয়ে এক পাতার বিবৃতি প্রকাশ করেছেন তিনি।

সেখানে তিনি দাবি করেছেন, তিনি কোনো দিন মাদক সেবন করেননি। কখনই কাউকে মাদক সেবন করার ব্যাপারে প্ররোচনা দেননি। তার বাড়িতে কখনো কোনো পার্টিতে মাদকের ছড়াছড়ি হয়নি। তার সঙ্গে মাদকযোগের যে তথ্য তুলে ধরা হচ্ছে সেগুলো সব মিথ্যা।

করণ লিখেছেন, একের পর মিথ্যা অভিযোগ ও ভুল খবরে আমার, ধর্ম প্রোডাকশন ও আমার পরিবারের ওপর প্রভাব পড়ছে। আমাদের ঘৃণা ও উপহাসের পাত্র হিসেবে দেখা হচ্ছে। একাধিক গণমাধ্যমে দেখানো হচ্ছে, ক্ষিতিজ প্রাসাদ নাকি ধর্ম প্রোডাকশনের ম্যানেজার। এটা সত্যি নয়। এমনকি অনুভব চোপড়াও ধর্ম প্রোডাকশনের কর্মী নয়। আমি তো অনুভবকে ব্যক্তিগতভাবে চিনিও না। ২০১১ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে একটি প্রজেক্টে সেকেন্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসেবে দুই মাসের জন্য ধর্ম প্রোডাকশনের সঙ্গে কাজ করেছিল অনুভব। তারপর আর কখনো কাজ করেনি। ক্ষিতিজ ২০১৯ সালে একটি প্রজেক্টে কাজ করেছিল ধর্ম প্রোডাকশনের সঙ্গে। কিন্তু সেই প্রজেক্ট রিলিজ করেনি।”

ভাইরাল সেই পার্টির ভিডিও নিয়ে যা বললেন করণ জোহর

 বিনোদন ডেস্ক 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুশান্ত সিং রাতপুজের মৃত্যুরহস্যের মামলায় উঠে এসেছে বলিউডের মাদক কেলেঙ্কারির বিষয়টি। 

সে কেলেঙ্কারিতে দীপিকা পাড়ুকোন, শ্রদ্ধা কাপূর, সারা আলি খান, রাকুল প্রীতের মতো জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের নাম এসেছে।

এরইমধ্যে ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে বলি সেলিব্রেটিদের একটি পার্টির ভিডিও। 

যেখানে দেখা গেছে, রণবীর সিং, দীপিকা পাড়ুকোন, শহীদ কাপুর, ভিকি কৌশল, বরুণ ধাওয়ানসহ বলিউডের প্রথম সারির অজস্র অভিনেতা-অভিনেত্রী নেশায় চুর হয়ে আছেন।  সবার চোখে-মুখে মাদকের স্পষ্ট প্রভাব দেখা গেছে।  ভিডিওতে দেখা গেছে, ভিকি কৌশলের সামনে রাখা টেবিলে পাউডারের মতো দেখতে মাদক দ্রব্য।  

এই পার্টিটি বলিউডের জনপ্রিয় পরিচালক করণ জোহরের বাড়িতে করা হয়েছিল বলে দাবি অনেকের। 

এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন করণ ও তার ধর্ম প্রোডাকশন।  ভারতের গণমাধ্যমেও করণকে জড়িয়ে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।  সম্প্রতি মাদক মামলায় গ্রেফতার হওয়া ক্ষিতিজ প্রাসাদ ও অনুভব নামে দুই ব্যক্তিকে করণ জোহরের কর্মচারী হিসেবে পরিচয় দেয়া হয়েছে ভারতের গণমাধ্যমে। 

অবশেষে ওই পার্টি ও বলিউডে মাদক কেলেঙ্কারিতে নিজের নাম জড়ানো নিয়ে মুখ খুললেন করণ জোহর। 

টুইটারে এ বিষয়ে এক পাতার বিবৃতি প্রকাশ করেছেন তিনি। 

সেখানে তিনি দাবি করেছেন, তিনি কোনো দিন মাদক সেবন করেননি। কখনই কাউকে মাদক সেবন করার ব্যাপারে প্ররোচনা দেননি। তার বাড়িতে কখনো কোনো পার্টিতে মাদকের ছড়াছড়ি হয়নি।  তার সঙ্গে মাদকযোগের যে তথ্য তুলে ধরা হচ্ছে সেগুলো সব মিথ্যা।

করণ লিখেছেন, একের পর মিথ্যা অভিযোগ ও ভুল খবরে আমার, ধর্ম প্রোডাকশন ও আমার পরিবারের ওপর প্রভাব পড়ছে। আমাদের ঘৃণা ও উপহাসের পাত্র হিসেবে দেখা হচ্ছে। একাধিক গণমাধ্যমে দেখানো হচ্ছে, ক্ষিতিজ প্রাসাদ নাকি ধর্ম প্রোডাকশনের ম্যানেজার। এটা সত্যি নয়। এমনকি অনুভব চোপড়াও ধর্ম প্রোডাকশনের কর্মী নয়। আমি তো অনুভবকে ব্যক্তিগতভাবে চিনিও না। ২০১১ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে একটি প্রজেক্টে সেকেন্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসেবে দুই মাসের জন্য ধর্ম প্রোডাকশনের সঙ্গে কাজ করেছিল অনুভব। তারপর আর কখনো কাজ করেনি। ক্ষিতিজ ২০১৯ সালে একটি প্রজেক্টে কাজ করেছিল ধর্ম প্রোডাকশনের সঙ্গে। কিন্তু সেই প্রজেক্ট রিলিজ করেনি।”