টিকা নেওয়ার ভাইরাল সেই ছবি নিয়ে যা বললেন কুদ্দুস বয়াতি
jugantor
টিকা নেওয়ার ভাইরাল সেই ছবি নিয়ে যা বললেন কুদ্দুস বয়াতি

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ মে ২০২১, ০৩:১৪:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

গত মাসের শেষ দিকে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন জনপ্রিয় লোকশিল্পী কুদ্দুস বয়াতি। এবার টিকা নেওয়ার সময় তাকে বেশ হাস্যজ্জ্বল ও সাবলীল ভঙ্গিতে দেখা গেছে।

অথচ টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার ছবে তার মুখখানা এতোটাই বিকৃত দেখা গিয়েছিল যে, মনে হচ্ছিল অসহ্য যন্ত্রণায় ভুগেছেন তখন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বয়াতির সেই ছবি ভাইরাল হয়ে পড়ে। যা নিয়ে এখনও ফেসবুক সরব। এ নিয়ে কম হাসি-তামাসাও হয়নি।

নেটিজেনদের টাইমলাইলে কুদ্দুস বয়াতির করোনা টিকার প্রথম ডোজের ছবি ঘুরপাক খেয়েছে রসালো সব ক্যাপশনে।

কিন্তু দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ছবিতে তেমন চিত্র ফুটে না ওঠায় বিষয়টি আবার মাথাচাড়া দিয়েছে।

এ বিষয়ে কুদ্দুস বয়াতি জানালেন, প্রথম বা দ্বিতীয় কোনোবারই টিকা নিতে গিয়ে ব্যথা পাননি তিনি। এ টিকা সবারই গ্রহণ করা উচিত।

কিন্তু ছবি তো ভিন্ন কথা বলছে।

বিষয়টি খোলাশা করেছেন বয়াতি নিজেই। বললেন, ‘প্রথমবার একটা ছবি ভাইরাল হয়েছিল একটু মুখটা ব্যাজার করছিলাম বলে। আসলে ব্যথা পাইনি। ভয় পেয়েছিলাম। আসলে এর আগে টিকা নেওয়ার যে স্মৃতি আমার আছে তা অনেক ব্যাথা আর ভয়ের। বয়স অনেক কম ছিল। তখন কলেরার টিকা নিয়েছিলাম। তখন ব্যথাও পেয়েছিলাম খুব। তো করোনার টিকার প্রথম ডোজ দেওয়ার সময় সেই স্মৃতি মনে পড়ে যায়। সে কারণে মুখটা বিকৃত হয়ে গিয়েছিল। আসলে ব্যথা পাইনি। দ্বিতীয় টিকা নিলাম। এখন ভালোই আছি। যে পারেন, টিকাটা নিয়ে নেন।’

কাউন্দিয়া উপজেলার কুদ্দুস বয়াতি এখন লোকশিল্পীদের দুনিয়ায় সর্বাধিক জনপ্রিয়। তিনি কাঙালিনী সুফিয়া, আবদুর রহমান বয়াতি ও আনুশেহ আনাদিলের সঙ্গে দল বেঁধে গান করতেন। বিভিন্ন সময় মঞ্চ ও টেলিভিশনে গান করেছেন তিনি। অমর কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের লেখা ‘এই দিন তো দিন নয়, আরো দিন আছে’ গানটি গেয়ে তুমুল জনপ্রিয়তা পান কুদ্দুস বয়াতি।

টিকা নেওয়ার ভাইরাল সেই ছবি নিয়ে যা বললেন কুদ্দুস বয়াতি

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ মে ২০২১, ০৩:১৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গত মাসের শেষ দিকে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন জনপ্রিয় লোকশিল্পী কুদ্দুস বয়াতি। এবার টিকা নেওয়ার সময় তাকে বেশ হাস্যজ্জ্বল ও সাবলীল ভঙ্গিতে দেখা গেছে।

অথচ টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার ছবে তার মুখখানা এতোটাই বিকৃত দেখা গিয়েছিল যে, মনে হচ্ছিল অসহ্য যন্ত্রণায় ভুগেছেন তখন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বয়াতির সেই ছবি ভাইরাল হয়ে পড়ে। যা নিয়ে এখনও ফেসবুক সরব। এ নিয়ে কম হাসি-তামাসাও হয়নি।

নেটিজেনদের টাইমলাইলে কুদ্দুস বয়াতির করোনা টিকার প্রথম ডোজের ছবি ঘুরপাক খেয়েছে রসালো সব ক্যাপশনে।

কিন্তু দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ছবিতে তেমন চিত্র ফুটে না ওঠায় বিষয়টি আবার মাথাচাড়া দিয়েছে।

এ বিষয়ে কুদ্দুস বয়াতি জানালেন, প্রথম বা দ্বিতীয় কোনোবারই টিকা নিতে গিয়ে ব্যথা পাননি তিনি। এ টিকা সবারই গ্রহণ করা উচিত।

কিন্তু ছবি তো ভিন্ন কথা বলছে।

বিষয়টি খোলাশা করেছেন বয়াতি নিজেই। বললেন, ‘প্রথমবার একটা ছবি ভাইরাল হয়েছিল একটু মুখটা ব্যাজার করছিলাম বলে। আসলে ব্যথা পাইনি। ভয় পেয়েছিলাম। আসলে এর আগে টিকা নেওয়ার যে স্মৃতি আমার আছে তা অনেক ব্যাথা আর ভয়ের। বয়স অনেক কম ছিল। তখন কলেরার টিকা নিয়েছিলাম। তখন ব্যথাও পেয়েছিলাম খুব। তো করোনার টিকার প্রথম ডোজ দেওয়ার সময় সেই স্মৃতি মনে পড়ে যায়। সে কারণে মুখটা বিকৃত হয়ে গিয়েছিল। আসলে ব্যথা পাইনি। দ্বিতীয় টিকা নিলাম। এখন ভালোই আছি। যে পারেন, টিকাটা নিয়ে নেন।’

কাউন্দিয়া উপজেলার কুদ্দুস বয়াতি এখন লোকশিল্পীদের দুনিয়ায় সর্বাধিক জনপ্রিয়। তিনি কাঙালিনী সুফিয়া, আবদুর রহমান বয়াতি ও আনুশেহ আনাদিলের সঙ্গে দল বেঁধে গান করতেন। বিভিন্ন সময় মঞ্চ ও টেলিভিশনে গান করেছেন তিনি। অমর কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের লেখা ‘এই দিন তো দিন নয়, আরো দিন আছে’ গানটি গেয়ে তুমুল জনপ্রিয়তা পান কুদ্দুস বয়াতি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন