‘নুসরাত আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছে’
jugantor
‘নুসরাত আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছে’

  বিনোদন ডেস্ক  

১১ জুন ২০২১, ১১:৫৭:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নুসরাত আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন: নিখিল

স্বামীর সঙ্গে বিয়ের নামে প্রতারণা করেছেন টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত। রাজ্যসভার সংসদ সদস্য নুসরাত জাহানের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেছেন নিখিল জৈন, যার সঙ্গে তিনি এতোদিন সংসার করেছেন।

‘নিখিলকে বিয়েই করেননি’-টালিউড নায়িকার এমন বক্তব্যের জবাবে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এই অভিযোগ করেন নিখিল।

নিখিলের বিবৃতির বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজ ও আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়েছে, নুসরাতকে ভালোবেসে তিনি বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। সেই প্রস্তাব আনন্দের সঙ্গে গ্রহণ করেছিলেন নুসরাত। পরে দুজন ২০১৯-এর জুন মাসে তুরস্কের বোদরুমে গিয়েছিলাম ডেস্টিনেশন ওয়েডিংয়ের জন্য। তারপর কলকাতায় ফিরে রিসেপশন পার্টিও করা হয়।

নিখিলের দাবি, ‘আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বাস করেছি, সমাজে পরিচিত হয়েছি। স্বামী হিসাবে আমার দায়িত্ব এবং কর্তব্য নিয়ে সন্দেহের কোনো অবকাশ নেই। আমি নুসরাতের জন্য কী কী করেছি তা আমার পরিবার এবং বন্ধুরা জানেন। ২০২০ সালের আগস্ট মাসে একটি সিনেমার শুটিংয়ের পর থেকে আমার প্রতি নুসরাতের ব্যবহার পাল্টে যায়। কী কারণে সেটি নুসরাতই ভালো বলতে পারবেন।’

বিবৃতিতে নিখিল আরও উল্লেখ করেন, তিনি নুসরাতকে বহুবার বিয়ের রেজিস্ট্রেশন করানোর জন্য অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু নায়িকা কিছুতে রাজি হননি।

নিখিল জানান, ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর নিজের সব জিনিসপত্র এবং মূল্যবান সামগ্রী নিয়ে স্বামীর ফ্ল্যাট ছেড়ে নুসরাত চলে যান। বালিগঞ্জে নিজের ফ্ল্যাটে ওঠেন। তার পর থেকে দুজন কখনও স্বামী-স্ত্রী হিসাবে একসঙ্গে বসবাস করেননি। বাকি কিছু জিনিস এবং দরকারি কাজপত্র ইত্যাদি ছিল যা পরে ওর ফ্ল্যাটে পাঠানো হয়।

নিখিল বলেন, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে নুসরাতের নানা খবর দেখার পর অনুভব করি ও আমার সঙ্গে তিনি চিট করেছেন। বাধ্য হয়ে ২০২১ সালের ৮ মার্চ নুসরাতের বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা করি আলিপুর জজ কোর্টে। এটা এখন বিচারাধীন বিষয় তাই আমি কোনো মন্তব্য করতে চাইনি। তবে ওর জারি করা বিবৃতির পর বাধ্য কিছু ঘটনা জানালাম।

নিখিল বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করেন, বিয়ের পর বিরাট অঙ্কের গৃহঋণ থেকে মুক্ত করার জন্য তাদের পারিবারিক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বড় অঙ্কের টাকা ট্রান্সফার করা হয়। সরল বিশ্বাসের ভিত্তিতে সে টাকা দেওয়া হয়েছিল নুসরাতকে। যে ট্রান্সফার নুসরাত দাবি করছে তা ঋণ মেটানোর কিস্তি। এখনও বড় অঙ্কের টাকা বাকি রয়েছে বলে দাবি করেন নিখিল। যে অভিযোগ নুসরাত তার বিরুদ্ধে করেছেন তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অসত্য-বিবৃতিতে এমনটাই জানালেন নিখিল৷

প্রসঙ্গত, বিয়ের বছর না যেতে নুসরাত-নিখিলের সংসারে কলহের সংবাদ আসতে থাকে। প্রথম দিকে দুজনেই কেউ এ বিষয়ে মুখ খোলেননি। পরে জানা যায়, টালিউড নায়ক যশের সঙ্গে প্রেম করে বেড়াচ্ছেন নুসরাত। যদিও এ বিষয়ে যশ কিংবা নুসরাত কোনো বক্তব্য দেননি। যশ-নুসরাত সম্পর্কের গুঞ্জন ঢালপালা ছড়ানোর মধ্যেই নিখিলের সঙ্গে টালিউড সেনসেশনের ভাঙন স্পষ্ট হল।

‘নুসরাত আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছে’

 বিনোদন ডেস্ক 
১১ জুন ২০২১, ১১:৫৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নুসরাত আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন: নিখিল
ছবি: সংগৃহীত

স্বামীর সঙ্গে বিয়ের নামে প্রতারণা করেছেন টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত।  রাজ্যসভার সংসদ সদস্য নুসরাত জাহানের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেছেন নিখিল জৈন, যার সঙ্গে তিনি এতোদিন সংসার করেছেন।  

‘নিখিলকে বিয়েই করেননি’-টালিউড নায়িকার এমন বক্তব্যের জবাবে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এই অভিযোগ করেন নিখিল।

নিখিলের বিবৃতির বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজ ও আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়েছে, নুসরাতকে ভালোবেসে তিনি বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন।  সেই প্রস্তাব আনন্দের সঙ্গে গ্রহণ করেছিলেন নুসরাত।  পরে দুজন ২০১৯-এর জুন মাসে তুরস্কের বোদরুমে গিয়েছিলাম ডেস্টিনেশন ওয়েডিংয়ের জন্য।  তারপর কলকাতায় ফিরে রিসেপশন পার্টিও করা হয়।  

নিখিলের দাবি, ‘আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বাস করেছি, সমাজে পরিচিত হয়েছি।  স্বামী হিসাবে আমার দায়িত্ব এবং কর্তব্য নিয়ে সন্দেহের কোনো অবকাশ নেই। আমি নুসরাতের জন্য কী কী করেছি তা আমার পরিবার এবং বন্ধুরা জানেন।  ২০২০ সালের আগস্ট মাসে একটি সিনেমার শুটিংয়ের পর থেকে আমার প্রতি নুসরাতের ব্যবহার পাল্টে যায়।  কী কারণে সেটি নুসরাতই ভালো বলতে পারবেন।’

বিবৃতিতে নিখিল আরও উল্লেখ করেন, তিনি নুসরাতকে বহুবার বিয়ের রেজিস্ট্রেশন করানোর জন্য অনুরোধ করেছিলেন।  কিন্তু নায়িকা কিছুতে রাজি হননি।  

নিখিল জানান, ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর নিজের সব জিনিসপত্র এবং মূল্যবান সামগ্রী নিয়ে স্বামীর ফ্ল্যাট ছেড়ে নুসরাত চলে যান।  বালিগঞ্জে নিজের ফ্ল্যাটে ওঠেন। তার পর থেকে দুজন কখনও স্বামী-স্ত্রী হিসাবে একসঙ্গে বসবাস করেননি।  বাকি কিছু জিনিস এবং দরকারি কাজপত্র ইত্যাদি ছিল যা পরে ওর ফ্ল্যাটে পাঠানো হয়।  

নিখিল বলেন, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে নুসরাতের নানা খবর দেখার পর অনুভব করি ও আমার সঙ্গে তিনি চিট করেছেন।  বাধ্য হয়ে ২০২১ সালের ৮ মার্চ নুসরাতের বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা করি আলিপুর জজ কোর্টে।  এটা এখন বিচারাধীন বিষয় তাই আমি কোনো মন্তব্য করতে চাইনি।  তবে ওর জারি করা বিবৃতির পর বাধ্য কিছু ঘটনা জানালাম।

নিখিল বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করেন, বিয়ের পর বিরাট অঙ্কের গৃহঋণ থেকে মুক্ত করার জন্য তাদের পারিবারিক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বড় অঙ্কের টাকা ট্রান্সফার করা হয়। সরল বিশ্বাসের ভিত্তিতে সে টাকা দেওয়া হয়েছিল নুসরাতকে।  যে ট্রান্সফার নুসরাত দাবি করছে তা ঋণ মেটানোর কিস্তি।  এখনও বড় অঙ্কের টাকা বাকি রয়েছে বলে দাবি করেন নিখিল।  যে অভিযোগ নুসরাত তার বিরুদ্ধে করেছেন তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অসত্য-বিবৃতিতে এমনটাই জানালেন নিখিল৷

প্রসঙ্গত, বিয়ের বছর না যেতে নুসরাত-নিখিলের সংসারে কলহের সংবাদ আসতে থাকে।  প্রথম দিকে দুজনেই কেউ এ বিষয়ে মুখ খোলেননি।  পরে জানা যায়, টালিউড নায়ক যশের সঙ্গে প্রেম করে বেড়াচ্ছেন নুসরাত।  যদিও এ বিষয়ে যশ কিংবা নুসরাত কোনো বক্তব্য দেননি।  যশ-নুসরাত সম্পর্কের গুঞ্জন ঢালপালা ছড়ানোর মধ্যেই নিখিলের সঙ্গে টালিউড সেনসেশনের ভাঙন স্পষ্ট হল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন